Now Reading
ঘুরে আসুন বিছানাকান্দি



ঘুরে আসুন বিছানাকান্দি

ঘুরতে কে না ভালোবাসে । আর সেটা যদি হয় নিজের দেশে তাহলে তো কথাই নেই । যেখানে বাংলাদেশ কে বলা হয় প্রকৃতির ভূস্বর্গ , আর সেই দেশ যদি ভালোমতো দেখা না হয় তাহলে তো এ জীবনটাই বৃথা । কি নেই আমাদের এই বাংলাদেশ । নদী , সাগর , পাহাড় , ঝর্ণা সব যেন আমাদের জন্য উপর ওলার দেয়া উপহার । এই দেশের মাটি থেকে আসা গন্ধ আপনাকে প্রেমে মাতাল করবেই । নদীর বুকে জেগে ওঠা চর আপনাকে অবাক করে দিয়ে অন্য রকম এক আনন্দ দিবে ।

আজ আমি আপনাদের কে পরিচয় করিয়ে দিবো সিলেট জেলার বিছানাকান্দির সাথে । সিলেট এমনি তে অনেক বিখ্যাত একটি জেলা । যাকে বাংলাদেশের লন্ডন বলা হয় । আছে দেখার মতো সুরমা নদী , শাহ জ্বালালের মাজার , শাহ পরানের মাজার , জাফলং সহ আরো অনেক কিছু । তার মধ্যে বিছানাকান্দি এক অপূর্ব জায়গা ।

কিভাবে যাবেন ?

আপনি ট্রেনে করে যেতে পারেন আবার বাসে করে যেতে পারেন । যারা বাসে করে যেতে পারেন না তারা ট্রেনে করে যেতে পারেন ।
আপনি কমলাপুর বা ঢাকা বিমানবন্দর থেকে ঢাকা টু সিলেট এর ট্রেনের টিকেট কেটে নিতে পারেন । ভাড়া পর্বে ৩৫০ টাকা শোভন চেয়ার । আপনি যদি বিকেলের ট্রেনে রওনা দেন তাহলে আপনি রাত ১২ টার মধ্যে পৌঁছে যাবেন । আমি শেষ বার যখন গিয়েছিলাম তখন ট্রেন মাঝ পথে কিছুটা দেরি করেছিল যার জন্য আমার প্রায় রাত ১১.৩০ বেজেছিল । আপনি আপনার সুবিধা-মত সময়ে যেতে পারেন । আমি বলবো আপনি কম সময়ে ঘুরে আসতে চান তাহলে বিকেলের ট্রেনে রওনা দিন । রাতে নেমে বাহির থেকে সিএনজি নিয়ে সোজা কদমতলী বাজার চলে যান । সেখানে আপনি খুব সস্তায় থাকার হোটেল পাবেন । আমি যখন গিয়েছিলাম তখন ভাড়া নিয়েছিল দুই বেডের ২২০ টাকা । না ভাই অবাক হবার কিছুই নেই কারণ আপনি শুধু থাকতে পারবেন মানে রুমের ভেতরে আপনার মাপের একটি খাট আছে । আপনি ডান , বাম নড়ানড়ি করতে পারবেন না । মূল কথা কোনো রকম রাত পার করে দেয়া । সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে ইচ্ছা করলে মাজার জিয়ারত করতে পারেন । বা আম্বরখানা থেকে আপনি সিএনজি করে চলে আসুন হাদারপাড়া । ভাড়া পড়বে 120 থেকে ১৮০ টাকার মধ্যে । আপনি চাইলে আরো কমে আসতে পারেন , যদি আপনি শেয়ার করতে পারেন সিএনজি । তখন আপনার খরচ প্রায় ১০০ টাকার নিচে নেমে যাবে । সিএনজি আপনাকে হাদারপাড়া নামিয়ে দিলে আপনি সেখান থেকে নৌকা ঠিক করতে পারেন ।এই নৌকা আবার দুই ভাবে ভাড়া করতে পারেন -১ নৌকা আপনি ঘণ্টা হিসেবে বা আপনাকে বিছানাকান্দি ঘোরাবে সেই হিসেবে ঠিক করতে পারেন আবার ২- আপনাকে বিছানাকান্দি নিয়ে যাবে এবং বাকি পথ আপাকে অন্য নৌকা বা হেঁটে দেখতে হবে । আবার আপনি হাদারপাড়া থেকে হেঁটে যেতে পারবেন বিছানাকান্দি পর্যন্ত । ২০ মিনিট লাগবে ।

আপনি যদি বাসে যেতে চান তাহলে নিয়ম একই । ট্রেনে গেলে আপনাকে কদমতলী পর্যন্ত যেতে হবে আর বাসে গেলে তারা আপনাকে কদমতলী নামিয়ে দিবে । আর ভাড়া পড়বে কিছুটা বেশি । ঢাকা থেকে সিলেট ৫৫০ টাকা থেকে শুরু ।

বিছানাকান্দি

বিছানাকান্দি আপনাকে মুগ্ধ করবেই । আপনি যখন সিএনজি যোগে হাদারপাড়া যাবেন তখন আপনি মেঘালয়ের পাহাড় দেখবেন । মনে হবে মেঘের সাথে যেন মিশে গিয়েছে । মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে রাস্তার দুপাশে । আপনি যখন নৌকা করে বিছানাকান্দি যাবেন তখন আপনার কাছে মনে হবে চারদিক দিয়ে পাহাড় আপনাকে ঘিরে রেখেছে । আর পাহাড়ের বুক চিরে আপনি এগিয়ে যাচ্ছেন সামনের দিকে । আপনি সামনে তাকালে দেখতে পাবেন পাহাড়ের এর বুক বেয়ে ঝর্ণার পানি এসে মিশে যাচ্ছে নদীর সাথে । সাদা কালো মেঘের সাথে যেন পাহাড় লুকোচুরি খেলছে । আপনি সামনে যেই সব রাস্তা ও পাহাড় দেখতে পাচ্ছেন তা পড়েছে ইন্ডিয়ার মেঘলায় রাজ্যের শিলং এ । আপনি যদি হেঁটে যান তাহলে আপনাকে পারি দিতে হবে কিছু ছোট ছোট খাল । মাঝে মাঝে নৌকা পাবেন আবার অনেক সময় বুক সমান পানিতে নেমে পার হতে হবে । আমি গিয়েই নেমে পড়েছিলাম বিছানাকান্দি নদীতে ।

অসুবিধা

আম্বরখানা থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত রাস্তা মোটামুটি ভালো । কিন্তু এর পর থেকে রাস্তা খুবই খারাপ । আর আপনি যদি বিছানাকান্দির আসল মজা নিতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে বর্ষা কালে যেতে হবে । আর বর্ষা কালে বিছানাকান্দির রাস্তা আর রাস্তা থাকে না । আপনি যদি ঘাট থেকে নৌকা ভাড়া করেন তাহলে তারা অনেক সময় বেশি ভাড়া চায় । আপনি যদি ভাড়া না বলে উঠেন তাহলে আপনাকে বিপদে পড়তে হবে । আর আপনি যদি হেঁটে যান তাহলে অবশ্যই বিজিবি এর সাথে পড়া পরামর্শ করে যাবেন । অনেক সময় সীমান্তে উত্তেজনা থাকে । থাকার জন্য বিছানাকান্দিতে ভালো কোনো থাকার হোটেল নেই । আপনাকে সিলেটের কদমতলীতে এসে থাকতে হবে ।

About The Author
Rohit Khan fzs
Rohit Khan fzs
বি.এস.সি করছি ইলেকট্রনিক এন্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং। লিখতে ভালবাসি। নতুন নতুন মানুষদের সাথে পরিচিত হতে পছন্দ করি।
2 Comments
Leave a response

You must log in to post a comment