খেলাধূলা

অবহেলায় মেয়েদের ক্রিকেট

দিন দিন বাংলাদেশ দলের উন্নতি হয়েছে । আগের মতো আর পিছিয়ে নেই আমাদের ক্রিকেট খেলা । সেই ২০০০ সালের দলের সাথে আজকের দলের তুলনা করলে আমরা দেখতে পাবো কতটা পরিবর্তন হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট । দেশে বিদেশ বিভিন্ন খেলা খেলে জয় ছিনিয়ে এনেছে বাংলার ছেলেরা । ঘরের মাঠে তারা হারিয়েছে অনেক বড় বড় দলকে । এমন কি বিদেশের মাটিতেও বিভিন্ন দল কে করেছে বাংলা ওয়াশ । আজ তারা রাঙ্কিং এ .৬ নাম্বারে উঠে এসেছে । চারিদিকে ছেলেদের জয় জয় কার ।

কিন্তু আমরা কি একটা বার আমাদের নারী বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে নিয়ে ভেবেছি । তাদের আজ কি অবস্থা ? তারা কেমন খেলছে ? তাদের রাঙ্কিং পজিশন কি ?
আসলে বাংলাদেশ পুরুষ ক্রিকেট দল যেভাবে মিডিয়া কভারেজ পেয়ে থাকে , সেদিক থেকে বাংলাদেশ নারী দল অনেক পিছিয়ে । তাদের নিয়ে খুব কম ম্যাচ রিভিউ লেখা হয় । আমি যদি আপনাকে জিজ্ঞেস করি বর্তমানে বাংলাদেশ দেশ নারী দলের ক্যাপ্টেন এর নাম কি ? আমি নিশ্চিত আপনি হয়তো বলতে পারবেন না । আর যদি বলেও থাকেন প্রথমে আপনাকে ভাবতে হবে , তারপর উত্তর দিতে পারবেন । কিন্তু আপনাকে যদি প্রশ্ন করি বাংলাদেশ পুরুষ দলের ১৫ জন খেলোয়াড়ের নাম বলুন , তাহলে আপনি ২০ জনের নাম বলে দিবেন । তাহলে এই দিক থেকে কি আমাদের নারী দল পিছিয়ে নেই ? সর্ব শেষ বাংলাদেশ নারী দলের অধিনায়ক পরিবর্তন করা হয়েছে । এই খবর অনেকে জানলেও বর্তমানের অধিনায়কের নাম অনেকে জানে না । এইটা আমাদের জন্য খুবই লজ্জার বিষয় । বর্তমানে বাংলাদেশ নারী দলের নেতৃত্বে আছে জাহানারা আলম । সালমা খাতুন কে সরিয়ে বিসিবি নতুন অধিনায়কের নাম ঘোষণা করেন । এই খবর কিছু খুব বেশি প্রচার হয়নি । সেই সাথে বাংলাদেশে খুব কম কথা হয়েছে । আপনি খেয়াল করলে বুঝবেন , কিছু দিন আগে বাংলাদেশ ক্রিকেট এর টি টুয়েন্টি ভার্সন থেকে মাশরাফি বিন মুর্তজা অবসর নিলে কি রকম অস্থিরতা শুরু হয় । নিউজ থেকে শুরু করে পাড়ার চায়ের দোকানে এই খবর । এমন কি মানব বন্ধন করতে দেখা গিয়েছে । আবার সেই মানব বন্ধ প্রচার করা হয়েছে টিভি এবং পত্রিকায় ।

আমি বাংলাদেশ পুরুষ দল নিয়ে কোন সমালোচনা করছি না । বাংলাদেশ নারী দলকে কেন প্রচার বিমুখ করে রাখা হয়েছে ? আপনি যখন কোনো দল কে সাপোর্ট করবেন তখন সেই দল খেলতে অনেক স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবে । কিন্তু আপনি যখন তাদের পাশে থাকবেন না তারা খুব হতাশ থাকবে । আপনি একটা বার চিন্তা করেন , আমাদের মাশরাফি বাহিনী যখন খারাপ খেলে আমরা যতই গালাগাল করি না কেন , আবার তাদের খেলা হলে তাদের সমর্থন করতে টিভির সামনে বসে যাই । এতে করে তারা অনেক অনুপ্রাণিত হয় ।আবার তারা আগের মতো খেলার চেষ্টা করে । আমরা যদি আমাদের নার ক্রিকেট দলকে সাপোর্ট করতাম পুরুষ দলের মতো তাহলে আমি নিশ্চিত ভাবে বলতে পারে তারা এখন যা খেলছে তার থেকে অনেক বেশি ভালো খেলতো । তাহলে কি আমরা নিজেরাই পুরুষ ও নারীর মাঝে ভেদাভেদ তৈরি করছি ?

বাংলাদেশ নারী দল ইচ্ছা করলে আমাদের দেশে বা বাহিরের দেশে গিয়ে ক্রিকেট খেলতে পারে না । কারণে তাদের স্পন্সর খুব কম হয় । কেনই বা হবে । যদি সেই খেলা প্রচার করা না হয় , তাহলে কেউ সহজে স্পন্সর হতে চাইবে না । যার কারণে অনেক সময় ইচ্ছা থাকলেও খেলা আয়োজন করা যায় না ।

লাস্ট যেই বিশ্বকাপ হলো সেটি তে খেলতে পারেনি নারী দল । তারা বাছাই পর্বে ছিটকে পরে গ্রুপ থেকে । তাহলে বোঝা যাচ্ছে নারী দল অনেক পিছিয়ে । বাংলাদেশ পুরুষ দলের জন্য যেই রকম বিদেশী স্টাফ দিয়ে কোচিং করানো হয় , সেই দিক থেকে বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দল অনেক পিছিয়ে । এতো দিন তাদের জন্য দেশি কোচ ছিল । কিছু দিন যাবত শোনা যাচ্ছিলো তাদের জন্য বিদেশী কোচ এর ব্যবস্থা করে দিবে । আরেকটি কথা হলো আপনি যত বেশি ক্ৰিকেট খেলবেন ততো বেশি ইন্টারন্যাশনাল ম্যাচে ভালো খেলবেন । কিন্তু আপনার খেলার পরিধি যদি হয় ইন্টারন্যাশনাল ম্যাচ পর্যন্ত তাহলে ইন্টারন্যাশনাল ম্যাচে ভালো করার সুযোগ নেই বললে চলে । আমি এই কথা বলছি কারণ ছেলেদের জন্য ঘরোয়া ক্রিকেট এর যেমন সুব্যবস্থা আছে , মেয়েদের জন্য নেই বলেই চলে । প্রতি বছর তাদের জন্য বলা হয়ে সুব্যবস্থা রাখা হবে কিন্তু ওই সব কথা কাগজে কলমে বন্ধী থাকে ।

যদি ফিটনেস নিয়ে কথা বলি তাহলে আরো খারাপ অবস্থা । মেয়েদের জন্য আলাদা ফিটনেস ঠিক রাখার তেমন ব্যবস্থা নেই বিসিবির । আর যা আছে তা বিশ্ব মানের না ।

আমি চাই বাংলাদেশ ক্রিকেট খেলা এগিয়ে যাক । কিন্তু আমার শরীরের এক অংশ বেড়ে যাবে আর আরেক অংশ ছোট থাকবে তা কিন্তু বেমানান লাগবে । আমি চাই পুরুষ ক্রিকেট এর সাথে সাথে মেয়েদের ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা করা হোক , খবর বের করা হোক , তাদের নিয়ে নিয়মিত আর্টিকেল লেখা হোক । আর আমাদের উচিত তাদের খেলা হলে বিশেষ করে দেশের মাটিতে খেলা হলে মাঠে গিয়ে বসে তাদের উৎসাহ দেয়া । একদিনে তারা বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করতে পারবে না জানি । কিন্তু একদিন না একদিন ঠিক উজ্জ্বল করবে সেই সাথে মেয়েদের ক্রিকেটে ওয়ার্ল্ড রাঙ্কিং এ এক নাম্বারে থাকবে ।

একই রকম আরো কিছু ফুটপ্রিন্ট

বিশ্বের সেরা ১০০ জন ক্রীড়া ব্যক্তিত্বের তালিকায় বাংলাদেশের তিন জন

MD BILLAL HOSSAIN

আয়ারল্যান্ড থেকে হারিয়ে গিয়েছে মুস্তাফিজ !!!!!!!!!!!!!!!!

Rohit Khan fzs

‘জুতা নেবে না, জীবনই তো নিয়ে গেল’

MD BILLAL HOSSAIN

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy