Now Reading
বাংলাদেশিজম থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে একটি কবিতা ।



বাংলাদেশিজম থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে একটি কবিতা ।

2_17.jpg

বাংলাদেশিজম এর লিখনি অনেক আগে থেকেই নিয়মিত পড়ি। সব থেকে ভাল একটা পোস্ট ছিল বিভিন্ন ধর্ম ও তাদের শ্রেনীবিভাগ নিয়ে। বাংলাদেশিজম শেখানে দেখিয়েছিল অনেক কিছুর সংমিশ্রন ।হয়ত বাংলাদেশিজম এরই মনে নেই এই পোস্ট এর কথা। আমি ভাল লিখনি গল্প মনে রাখার জন্য একটা পদ্ধতি অবলম্বন করি তা হল ঐ লিখনিকে একটা কবিতার আকারে নিজের কাছে সংরক্ষন করে রাখি। বাংলাদেশিজম এর সেই পোস্ট টা আমার কবিতাটা পরলেই বুজতে পারবেন।জানি না আমার এই আজীব পোস্ট টা থাকে নাকি বাদ হয়ে যাবে। তবুও বাংলাদেশিজম এর প্রতি ভালবাসা থেকেই লিখা।

 

ধর্মযুদ্ধ

ধর্ম,ধর্ম, ধর্ম বলে কর্ম থেকেই দূরে,
জানিনা কবে মানবতার কথা বলব সব্বাই এক সুরে ।
কেউ করে নিখুত কূটনীতি,কেউ দেয় বালি গুঁড়ে,
জানি সবাই এক হবই হয়ত কিয়ামতের আগে নইলে পরে ।
কিকরেছে মহানবী কি করেছে কৃষ্ণ,
কখনও কি করেছি নিজের কাছে প্রশ্ন ।
সত্যের সন্ধান না করেই করি সত্যের বরাই,
এই থেকেই জন্ম নেয় নির্ঘাত বাক কিংবা হস্থ লড়াই ।
একটা প্রথা খুব বেশি, না পারলে দেই গালি,
ও… গালি টাও তো তেমন কিছু না আমাদের নিত্যদিনেরই বুলি।
সাবধান,কারে দেও গালি বুজে শুনে দিও,
অন্যরে গালি দাও না নিজ কে, সেটা একবার যাচাই করে নিও।
দুনিয়ায় কত যুগে কত কালে আসল কত পয়গম্বর আর নবি,
না জানি সব নাম,না জানি দেখেছি ছবি।
ধর্ম বলে পয়গম্বর ছিল লক্ষের অধিক,
মতান্তরে সংখ্যা দেওয়া নয় ঠিক সঠিক।
বি,পয়গম্বর পাব,
বাকি লক্ষ লক্ষ আল্লাহর দূত কোথায় খুজে পাব?
কে জানে কোন ধর্মের কোনায় আসেন আমার কোন নবী?
আমি জানিনা আল্লাহ জানেন সবই।
কালের বিবর্তনে কোন পয়গম্বর কোন ধর্মের দূত,
হিন্দু, বৌদ্দ,খ্রিস্টান,শিক্ নাকি শুত?
অন্য ধর্ম কে গালি দেওয়ার আগে তাদের স্মরণ করে নিও,
সাবধান,কারে দেও গালি বুজে শুনে দিও,
মোসলমানের সন্তান আমি কে আমারে ঠেকায়?
বিদায় হাজ্জ এ নবি আমার, বংশ অহংকারকে করে গেছেন বিদায় ।
ব্রাম্নন আমি, কে আমার সমতুল্য ?
জাত পাত নিয়ে ব্যাবসা করলে নরকে দিতে হবেই মূল্য ।
খ্রিস্টের পুত্র আমি স্বয়ং ঈশ্বর আমার বাবা, আমার তো জান্নাত আছেই কিছু করি আর না করি,
না ছুয়ে কাদা আর পানি, মৎস্য আমি ধরি।
আমাকে একটা ধর্ম দেখাও যেখানে আছে কিছু বৈরি,
তবে কেন কথায় কথায় আমরা মরনাস্ত্র করি তৈরি?
কেন আমাদের এমন এই দশা?
এক বাক্যেই বলতে  পারব না সহসা।
আল্লাহ দেখছে,ঈশ্বর দেখছে তাই করি ভাল?
ধরি, কেউ দেখসে না কোন শাস্তি নেই,তাহলেই কি আমদের রুপ হবে কালো
?
জান্নাতের লোভে কর্ম আর জাহান্নের ভয়ে ধর্ম যদি ঘটে,
কিয়ামত এর আর বাকি নাই,খুব ই সন্নিকটে ।
নেকি কামাও একদিন উঠতে হবে মরার খাটে,
এত ধর্ম নয় ধর্ম ব্যাবসা হল বটে।
প্রতিবেশি না খেয়ে মরে, আমরা ঈদে পরি নতুন জামা আর কোরবানিতে গরু কিংবা খাসী,
আমদের অবস্থা এমন আল্লাহ কে শুধু ভয় পাই, না ওনার মত চলি না ভালবাসি ।
সত্য জানতে রাসুল আমার করেসেন ৪০ বছর সাধন,
আর সাড়া জীবন করে গেছেন উম্মতের জন্য ক্রন্দন ।
৪০ বছর পর নবী আমার হয়েছেন উন্মুক্ত মহাজ্ঞানী,
আজ দু এক পাতা বই পড়ে কে কোদ্যুর জাণে তাও আমি জানি।
হানাহানি ছেড়ে চল একে অপরের হাত ধরি,

সব্বাই মিলে সুস্থ,সুন্দর একটা পৃথিবী গড়ি।

(ফাহাদ বিন হুসনে আলি)

 

About The Author
FAHAD BIN HUSNE ALI
Like to Travel a lot.Fond of travel writing.i am a part time poet.Student of diploma in computer .
2 Comments
Leave a response

You must log in to post a comment