Now Reading
এডবাস্টনে ১৫ই জুনের সেমিফাইনালে কার কপালে জুটবে ফাইনালের টিকিটঃ বাংলাদেশ নাকি ভারত?



এডবাস্টনে ১৫ই জুনের সেমিফাইনালে কার কপালে জুটবে ফাইনালের টিকিটঃ বাংলাদেশ নাকি ভারত?

ক্রিকেট প্রেমীদের কাছে ক্রিকেট মানেই উন্মাদনা। বিশ্বকাপের পর আইসিসি এর দ্বিতীয় বড় টুর্নামেন্ট হল চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। প্রতি চার বছর পর পর অনুষ্ঠিত এই আসরে এবার যোগ দিয়েছিল ক্রিকেট বিশ্বের সেরা আটটি দল। ১২ বছর পর প্রথম বারের মত ওয়েস্ট ইন্ডিজ কে পেছনে ফেলে সপ্তম দল হিসেবে জায়গা করে নেয় আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ২০১৭ এ। গ্রুপ পর্বের বাধা টপকে বাংলাদেশ পৌঁছে গেছে সেমিফাইনালে। সামনাসামনি ভারত। কি হবে পরিনতি? কে যাবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ২০১৭ এর ফাইনালে।

263793.jpg

হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে গ্রুপ পর্বের খেলা প্রায় শেষ করে নক আউট পর্বের খেলা শুরু ১৪ জুন ২০১৭ থেকে। এর ভিতর নিজেদের স্থানকে সেমিতে করে নিয়েছে ইংল্যান্ড এবং ২ এশিয়ান টিম ভারত এবং বাংলাদেশ। বাংলাদেশ এবার প্রথমবারের মত আইসিসি আয়োজিত কোন বড় আসরের সেমিফাইনালে। এর আগে ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫ এর কোয়াটার ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল এই দুই এশিয়ান টিম। ফলাফল টা বাংলাদেশী ক্রিকেট প্রেমীদের হতাশ করলেও এবার হয়তো আবার আশার মুখ দেখবে টাইগার সমর্থকরা।  সুযোগ টা বড় করে দেখে কঠোর পরিশ্রম আর আত্মবিশ্বাস দিয়ে বাংলাদেশ কি পারবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ২০১৭ এর ফাইনালে যেতে?

263808.jpg

১ লা জুন থেকে শুরু হওয়া চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ২০১৭ এর দুইটা গ্রুপ এ এবং বি  এর আটটি টিমের মধ্যে থেকে নিজেদের সেমিফাইনালে নিশ্চিত করা বাংলাদেশ ও ভারত যথাক্রমে গ্রুপ এ থেকে দ্বিতীয় সেমিগাইনালিস্ট হিসেবে এবং গ্রুপ বি থেকে ভারত প্রথম সেমিফাইনালিস্ট হিসেবে নিজেদের নাম লেখায়।

অপর সেমিফাইনালিস্ট এবারের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ২০১৭ এর আয়োজক ইংল্যান্ড।এবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ২০১৭ এর সেমিফাইনালে দেখা যাবে ৩ এশিয়ান টীম কে। বাকি আছে গ্রুপ বি এর একটি খেলা। শ্রীলঙ্কা আর পাকিস্থান নিজেদের কে সেমিফাইনালে দেখার জন্য মাঠে নামবে আজ। ঠিক হবে ইংল্যান্ডের সাথে কে খেলবে ১৪ জুন ২০১৭ এর সেমিফাইনালে।

ভারত বাংলাদেশ ক্রিকেট যুদ্ধের শুরুটা বেশ পুরাতন। ১৯৮৮ সালের এশিয়া কাপ থেকে শুরু করে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ২০১৭ পর্যন্ত ভারত এবং বাংলাদেশ মোট ৩২ টা টুর্নামেন্টে একসাথে অংশগ্রহন করেছে। এবং এর ভিতর একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে নিজেদের মুখোমুখি হয়েছে ৩৩ বার। তৈরি হয়েছে অনেক রেকর্ড, আছে অনেক ইতিহাস। জেনে নেওয়া যাক ভারত আর বাংলাদেশের এই পর্যন্ত মুখোমুখি হওয়া ক্রিকেটের রেকর্ড গুলোঃ

Champions Trpophy Semi Final.jpg

টেস্ট রেকর্ডঃ

প্রথম মাচঃ

তারিখঃ নভেম্বর ১০-১৩, ২০০০।

ভেনুঃ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম।

ফলাফলঃ ভারত ৯  উইকেটে জয়ী।

 

টেস্ট সিরিজঃ  ৬ টি।

মোট টেস্ট মাচঃ ৯ টি।

ভারত  জয়ীঃ ৮ টি।

ড্রঃ ১ টি।

সর্বোচ্চটীম সংগ্রহঃ ৬৮৭ (ভারত ২০১৭ )

সর্বনিন্ম টীম সংগ্রহঃ ৯১(বাংলাদেশ ২০০০)

সর্বোচ্চজয়ঃ

  • ইনিংস হিসেবেঃ ১ ইনিংস এবং ২৩৯ রান (ভারত ২০১০)
  • রান হিসেবেঃ ২০৮ রান( ভারত ২০১৭)
  • উইকেট হিসেবেঃ ১০ উইকেট ( ভারত ২০১০)

সর্বোচ্চব্যক্তিগত রানঃ ৮২০ শচিন টেন্দুলকার ( ভারত ২০০০-২০১০)

  • সর্বোচ্চঃ ২৪৮*
  • ইনিংসঃ ৯ ।
  • মাচঃ ৭।

ভারতের হয়ে সর্বাধিক শতকঃ ৫ টি (শচিন টেন্দুলকার, ভারত)

বাংলাদেশের হয়ে সর্বাধিক শতকঃ  ২ টি (মুশফিকুর রহিম, বাংলাদেশ)

সর্বাধিক উইকেটঃ

  • বাংলাদেশের হয়েঃ ১৫ টি, সাকিব-আল-হাসান(বেষ্ট ৫/৬২)
  • ভারতের হয়েঃ ৩১ টি, জাহির খান(বেষ্ট ৭/৮৭)

 

একদিনের আন্তর্জাতিক মাচঃ

প্রথম মাচঃ

তারিখঃ ২৭ অক্টোবর ১৯৮৮।

ভেনুঃ চট্টগ্রাম।

ফলাফলঃ ভারত ৯ উইকেটে জয়ী।

 

একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ সিরিজঃ  ৩২ টি।

মোট একদিনের আন্তর্জাতিক মাচঃ ৩৩ টি।

ভারত  জয়ীঃ ২৫ টি।

ড্রঃ ২ টি।

বাংলাদেশ জয়ীঃ ৬ টি।

সর্বোচ্চটীম সংগ্রহঃ ৩৭০ (ভারত ২০১১)

সর্বনিন্ম টীম সংগ্রহঃ ৫৮(বাংলাদেশ ২০১৪)

সর্বোচ্চজয়ঃ

  • রান হিসেবেঃ ২০০ রান( ভারত ২০০৩)
  • উইকেট হিসেবেঃ ৯ উইকেট ( ভারত ১৯৮৮)

সর্বোচ্চব্যক্তিগত রানঃ ৫৯২, গৌতম গাম্ভির( ভারত ২০০৩-২০১২)

  • সর্বোচ্চঃ ১০৭*
  • ইনিংসঃ ১১ ।
  • মাচঃ ১১।

বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চরানঃ ৫১৭, মুশফিকুর রহিম(বাংলাদেশ ২০০৭-২০১৫)

  • সর্বোচ্চঃ ১১৭
  • ইনিংসঃ ১৭ ।
  • মাচঃ ১৮।

ভারতের হয়ে সর্বাধিক শতকঃ ৩ টি (বিরাট কোহলি, ভারত)

বাংলাদেশের হয়ে সর্বাধিক শতকঃ  ১ টি (অলোক কাপালি, বাংলাদেশ)

সর্বাধিক উইকেটঃ

  • বাংলাদেশের হয়েঃ ২০ টি, মাশরাফি মুর্তজা(বেষ্ট ৪/৩৮)
  • ভারতের হয়েঃ ১৬ টি, এ বি আগারকার(বেষ্ট ৩/১৮)

 

টি টুয়েন্টি ম্যাচঃ

প্রথম মাচঃ

তারিখঃ ৬ ই জুন ২০০৯।

ভেনুঃ নটিংহাম।

ফলাফলঃ ভারত ২৫ রানে জয়ী।

 

টি টুয়েন্টি সিরিজঃ  ৭ টি।

মোট টি টুয়েন্টি ম্যাচঃ ৫ টি।

ভারত  জয়ীঃ ৫ টি।

 

সর্বোচ্চটীম সংগ্রহঃ ১৮০ (ভারত ২০০৯)

সর্বনিন্ম টীম সংগ্রহঃ ১২১(বাংলাদেশ ২০১৬)

সর্বোচ্চজয়ঃ

  • রান হিসেবেঃ ৪৫ রান( ভারত ২০০১৬)
  • উইকেট হিসেবেঃ ৮ উইকেট ( ভারত ২০১৪)

সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানঃ ১৯৪, রোহিত শর্মা( ভারত ২০০৯-২০১৬)

  • সর্বোচ্চঃ ৮৩।
  • ইনিংসঃ ৫ ।
  • মাচঃ ৫।

বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চরানঃ ১০২, সাব্বির রহমান(বাংলাদেশ ২০১৬-)

  • সর্বোচ্চঃ ৪৪।
  • ইনিংসঃ ৩ ।
  • মাচঃ ৩।

সর্বাধিক উইকেটঃ

  • বাংলাদেশের হয়েঃ ৭ টি, আল-আমিন হোসেন(বেষ্ট ৩/৩৭)
  • ভারতের হয়েঃ ৬ টি, রবিচন্দন অশ্বিন(বেষ্ট ২/১৫)

5.jpg

২০১৫ সালের বিশ্বকাপের পর থেকে শুরু হয় বাংলাদেশ ক্রিকেটের ভিন্ন পথ চলা। বিগত ২ বছরে বাংলাদেশ হারিয়েছে ক্রিকেটের নামিদামি সব পরাশক্তি কে। টানা ৫ টি সিরিজ জয়ে বাংলাদেশ নিঃসন্দেহে যে কোন ক্রিকেট টীমের উদ্বেগের কারন। বাংলাদেশ হারিয়েছে ভারত পাকিস্থান এবং দক্ষিন আফ্রিকার মত বাঘা টিমকে। নিউজিল্যান্ডকে প্রথমবারের মত বিদেশের মাটিতে হারিয়ে একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ রাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশ এখন ৬ এ। ২০১৬ সালে সর্বোচ্চ জেতার সমীকরণে সেরা ১০ এর দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল বাংলাদেশ। ২০০৭ সালের বিশ্বকাপের পুনরাবৃত্তি ঘটিয়ে বাংলাদেশ কি পারবে সেমিফাইনালে ভারত কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে যেতে?

About The Author
Engr. Mohammad Nizamuddin
I'm a creative and proactive content writer with a profound ability to stay up-to-date with modern industry trends and great familiarity with content management systems.
3 Comments
Leave a response

You must log in to post a comment