Now Reading
বিশেষ দিনের প্রিয় মুহূর্ত গুলোকে ফ্রেমবন্দি করার কিছু কৌশল



বিশেষ দিনের প্রিয় মুহূর্ত গুলোকে ফ্রেমবন্দি করার কিছু কৌশল

ব্যস্ততার এই জনবহুল শহরকে ছেড়ে নিজেকে একটু প্রাকৃতির মাঝে বিলিয়ে দেওয়া যে কি আনন্দের তা শুধু মাত্র উপভোগকারী ই বুজবে।
নিজেকে যখন ওই প্রকৃতির মাঝে বিলিয়ে দিবেন, তখন সাথে যদি থাকে নিজের প্রিয়জনরা তাহলে তো ‘আপনি সোনায় সোহাগা”।

আনন্দ তো আর কিনতে পাওয়া যায় না। তাই যখন এই ব্যস্ততার জীবন ফাঁকি দিয়ে একটু সময় পেয়েছেন নিজেকে গুছিয়ে নেওয়ার, তাহলে কি আর দেরি করা ঠিক?
প্রিয়জনদের সাথে ঘুরতে গেলেই বুঝা যায় আনন্দ মুহূর্ত কাকে বলে। আর যখন এই মজার মুহূর্ত একবার চলে যায়, তখন কি একে আর ধরে রাখা যায়? না, তা অবশ্যই সম্ভব না।
কিন্তু সেই মুহূর্ত গুলো তো ভুলাও বেশ কষ্টকর। তাই কি আপনি সেই মজার মুহূর্তকাল ফ্রেমে বন্দি করায় ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন। হ্যাঁ, অবশ্যই মধ্য কোনা অস্বাভাবিকতা ও নেই বোটে।
কারন, কর্মব্যস্ততার মধ্য যখন, পুরানো সেই প্রিয়জনের সাথে মজার মুহূর্তগুলা ফ্রেমের মধ্যে বন্দি থেকে ই আমাকে যেন প্রতিস্থাপন করে সেই পুরানো মুহূর্তে, তখন আসলেই নিজের মধ্যে এক অজানা ভালোলাগা কাজ করতে থাকে।
আর আপনাকে এই অজানা ভালোলাগাকে উপভোগ করতে হলে, প্রিয়জনের সাথে মজার মুহূর্তের সময় গুলোকে ফ্রেমে বন্দি করতে হবে।

কিন্ত??

কোন কিন্তু নয়, আপনি কি ভাবছেন, যে আমি তো পেশাদার ফটোগ্রাফার না! আমার ছবি তোলার জন্য তেমন কোন ভালো ক্যামেরা ও নেই?
আপনি যদি এই সামান্য বিষয় নিয়ে চিন্তিত হন, তাহলে আমি আপনাকে বলি, এই সকল অযথা চিন্তা করা বাদ দেন। এই প্রশ্নের উত্তরের জন্য আপনাকে কিছু সময় ধারাবাহিক শব্দটির সাথে পড়তে পড়তে নিচের দিকে যেতে হবে।

এদিকে, মার্কিন সংবাদপত্র দ্য নিউইয়র্ক টাইমস – এর সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন ভ্রমন আলোকচিত্রী নাটালি আম্রোসি। ক্যামেরা নির্মাতা প্রতিষ্ঠান গুলোর মধ্য ক্যানন বেশ পরিচিত একটি নাম সবার কাছে। আর ক্যামেরা নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের এই শুভেচ্ছাদূত ৫০ টির বেশি দেশে ঘুরে ঘুরে ছবি তুলেছেন।
এই ফ্রেম প্রিয় ব্যক্তি আরো বলেন যে – ভ্রমনের ছবিগুলো তাৎক্ষণিকভাবে আপনাকে সেই জায়গায় ফিরিয়ে নিয়ে যায় এবং মধুর স্মৃতি মনে করিয়ে দেয়।
ক্যাননের এর শুভেচ্ছাদূত আরো বলেন যে – তবে ভালো ছবি তুলতে হলে আপনাকে পেশাদার আলোকচিত্রী হতে হবে না, মাথায় রাখলেই চলবে সাধারণ কিছু কৌশল।

★ জরুরী পেশাদার ক্যামেরা দরকার নেই >

ছবি তুলার কথা বললেই বাতাসের থেকে ভেসে আসে ক্যামেরা ভালো না। আরে ছবি তোলার জন্য তেমন দামি ক্যামেরার দরকার নেই। স্মৃতি ফ্রেমে বন্দি করে রাখাই ছিলো আসল কথা। এখন ডিজিটাল যুগ তাই একটা স্মার্টফোন ই যথেষ্ট, কারণ, এর সাথে যেই ক্যামেরা থাকে তা দিয়ে সাধারণ ছবি ভালো ই হয়ে থাকে। কিন্তু, কথায় ছিলো, বিশেষ কিছুর সঙ্গে বিশেষ কিছু না হলে, ঠিক হয়ে উঠে না। আপনার বিশেষ মজার মুহূর্তে যদি সাথে থাকে একটি ডিজিটাল ক্যামেরা, তাহলে আপনি স্মার্টফোন থেকে ভালো কোয়ালিটির ছবি পাবেন। যা আপনার মূল্যবান এই স্মৃতিময় ছবিকে রাখবে যতন করে। আর ডিজিটাল ক্যামেরা নেওয়ার সময় আপনাকে মনে রাখতে হবে, এইটা যাতে আকারে ছোট হয়।ছোট হলে যে কোন জায়গায় চট করে নিয়ে যাওয়া যায়, মনে রাখতে হবে ক্যামেরাটি যাতে তারবিহীন হয়,এতে করে ঝামেলা মুক্ত থাকা যায়। ডিজিটাল যুগ এখন সবাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে ঝুঁকছে। তাই আপনার ক্যামেরা টি যদি হয়ে থাকে ওয়াই ফাই যুক্ত তাহলে আপনে ক্যামেরা থেকে খুব সহজে ছবিগুলো মোবাইলে নিতে পারবেন এবং এর ই সাথে খুব সহজেই বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপনি আপনার মজার মুহূর্ত গুলো শেয়ার করতে পারবেন।

★ পরিকল্পনা আগের থেকে >

পরিকল্পনা আসলেই কোন কিছু করার নীল নকশা। কোথায়, কখন, কোন কাজ করা হবে তা আগে থেকে ই ঠিক করে নেওয়াই পরিকল্পনা। সাধারণত ঘুরতে যাওয়ার ক্ষেত্রে সবাই পর্যাটক এলাকাই বেছে নেয়, এতে তেমন কোন বিশেষ ছবি খুঁজে পাওয়া যায় না অবশ্যই। তাই আপনার ঘুরতে যাওয়ার পরিকল্পনায় একটু ভিন্নতা আনুন। আপনার ঘরের পাশে রাস্তার, ওই ঘাসে যেই শিশির বিন্দু জমে প্রাকৃতির খেলা দেখায়, নিঃসন্দেহ ভাবে তা বিলাশ বহুল পর্যাটক স্থান থেকে উত্তম। তাই এমন কোন স্থান ঠিক করুন যেইটা আপনার কাছে, একটু ভিন্ন এবং যেখানে আপনি আপনাকে এক অন্য আপনি আবিষ্কার করতে পারবেন। এর মাধ্যমে আপনি পাবেন ভিন্নতর মজা, আর ছবিগুলো র মাধ্যমে হয়তো আপনি, সৃজনশীল নতুন কোন প্রাকৃতির লীলাখেলা উপস্থাপন করতে সক্ষম হবেন।

★ সূর্যাস্ত ও সূর্যোদয়ের সময় >

সূর্যাস্ত ও সূর্যোদয় আসলেই উপরওয়ালার অতুলনীয় সৃষ্টিগুলোর মধ্য অন্যতম। সাধারণত পর্যাটকেরা প্রাকৃতির এই অকৃত্রিম সৌন্দর্যকে নিজেদের উপলব্ধির বিশেষ জায়গায় ই স্থান দিয়ে থাকেন। তাই তো কুয়াকাটায় সূর্যাস্ত দেখার জন্য পর্যাটকদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা যায়। সব স্থানেই ছবির মধ্য সূর্যাস্ত ও সূর্যোদয়ের ছবিগুলো বিশেষভাবে উপস্থাপন করা হয়ে থাকে। সূর্যাস্ত ও সূর্যোদয়ের ছবির মাধ্যমেই কোন স্থানকে সম্পূর্ণ অন্যভাবে উপস্থাপন করা সম্ভব।
এই দিকে এই বিষয় প্রেক্ষিতে,
নাটালি বলেন – সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তের একই জায়গায় ছবি তুলেও দুই সময়ের পার্থক্য উপস্থাপন করা যেতে পারে।

★ নিয়মের বাইরে >

জীবন টা আসলেই নিয়মে মধ্য বন্দি। নিয়মে থাকতে থাকতে একেবারে নিয়মের দাস হয়ে যেতে বসেছি আমরা। আর আজ নিয়ম আমার বন্দি না হয়ে, আমি নিয়মের বন্দি। নিয়মও জীবনে দরকার আছে। তা না হলে আবার, আপনাকে অগোছালো চুল হতে হবে। কিন্তু, এ ও বাস্তব সত্যি যে, সব সময় আপনি আপনি ডাক ভালো লাগে না, কিছু সময় নিয়ম ভেঙ্গে তুই ডাক টা শুনতে ই বেশি ভালো লাগে। তাই নিয়মকে কিছু সময়ের জন্য ছুটি দিন, আর আপনার মনের যা ভালো লাগে তাই ফ্রেম বন্দি করে ফেলুন।
কে জানে তা হয়তো আপনার মন খারাপের সময়, ভালোলাগার শ্রেষ্ঠ উপকরণ হতে পারে।

★★★ঈদ মোবারক ★★★
এই ঈদে ছবি তোলার মজার কৌশলকে কাজে লাগিয়ে আপনার মজার মুহূর্তগুলোকে যত্নসহকারে ফ্রেম বন্দি করে রাখুন। আমাদের এই লেখা আপনাদের জন্য ই,আমাদের সাথেই থাকুন,

ধন্যবাদ।

About The Author
AH Arman
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment