Now Reading
ক্রিকেটকে আরও আকর্ষণীয় করতে আইসিসির নতুন নিয়ম কানুন



ক্রিকেটকে আরও আকর্ষণীয় করতে আইসিসির নতুন নিয়ম কানুন

gn.jpg

খেলাধুলার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় যে খেলা, তা হল ক্রিকেট। ক্রিকেট নিয়ে মানুষের মাঝে উত্তেজনার কখনো কমতি হয়না। পরিবর্তনের পথে ক্রিকেট,এমন কথা যেন অনেক দিন ধরেই শুনে আসছিলেন খেলাটির সাথে সংশ্লিষ্টরা। বিশেষ করে যারা নিয়মিত খোঁজ-খবর রাখেন তারা তো নানা ভাবনাও ভেবে রেখেছেন। তবে পরিবর্তনটা সময়ের প্রয়োজনে কিনা সে প্রশ্ন কিন্তু থেকেই যাচ্ছে। সময়ের প্রয়োজনে যুগে যুগে সব ধরনের অবকাঠামোতেই আসে পরিবর্তন। মাঠের খেলা ক্রিকেটও এর ব্যতিক্রম নয়। তবে পরিবর্তনটা সময়ের প্রয়োজনে কিনা সে প্রশ্ন কিন্তু থেকেই যাচ্ছে। সময়ের প্রয়োজনে যুগে যুগে সব ধরনের অবকাঠামোতেই আসে পরিবর্তন। মাঠের খেলা ক্রিকেটও এর ব্যতিক্রম নয়। এক সময় টেস্ট খেলা হত যার কোনো নির্দিষ্ট সময় বাধা ছিল না। এরপর একসময় তা বেধে দেয়া হয় সময়ের বেড়াজালে। সেই সময় কমতে কমতে এখন পাঁচ দিনে এসে ঠেকেছে। তেমনি ৬০ ওভারের একদিনের ক্রিকেটও এখন অতীত। আর হালের টোয়েন্টি-২০ তো আছেই। এছাড়া বিভিন্ন দেশের সাথে পারস্পারিক ক্রিকেট আয়োজনেই আছে অনেক নিয়ম-কানুন। ক্রিকেটে আগের নিয়মের সংস্কার ও বেশ কয়েকটি নতুন নিয়ম চালু করতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।১ অক্টোবর থেকে ক্রিকেটে বেশ কিছু নতুন নিয়ম চালু হচ্ছে। নতুন নিয়মে ব্যাটের দৈর্ঘ ও প্রস্থের সীমাবদ্ধতা আসছে। এছাড়া মাঠে বাজে আচরণের কারণে খেলোয়াড়কে লালকার্ড দেখিয়ে মাঠ ছাড়া করার অধিকার পাবেন আম্পায়ার। ডিআরএস সিস্টেমেও পরিবর্তন আসছে।

আসুন জেনে নেই সেই নিয়মগুলোঃ

ICC-Review-Cricket-Bat-Size-Laws-Feature.png

ব্যাটের আকার: অনেক খেলোয়াড়ই তার নিজের পছন্দ মত ব্যাট দিয়ে ব্যাটিং করে থাকেন। যার ফলে তারা একটু বেশী সুবিধা আদায় করে নিতে পারতেন। কিন্তু এখন থেকে আর ব্যাটসম্যানদের ইচ্ছামত ব্যাট ব্যবহার করতে পারবেনা। ব্যাট এবং বলের আকারে সমন্বয় করতে নির্দিষ্ট একটি আকার ঠিক করে দিয়েছে আইসিসি। এখন থেকে কোনও খেলোয়াড়ের ব্যাটের প্রস্থ ১০৮ মি.মি’র বেশি হতে পারবে না। ব্যাট পুরু হবে সর্বোচ্চ ৬৭ মি.মি। কানা পর্যন্ত পরিমাপ ৪০ মি.মি। নতুন নিয়ম অনুযায়ী ব্যাটের প্রস্থ ১০৮,পুরু ৬৭ ও কিনারা হবে সর্বোচ্চ ৪০ মিলিমিটার।

out.jpg

ডিআরএস: স্টেম চালু হওয়ার পর থেকেই বিতর্ক ছিল, যা চলমান আছে। ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস) এ পরিবর্তন এসেছে। এখন থেকে আম্পায়ার্স কলের বিপরীতে রিভিউ ডেকে কোনও দল হেরে গেলে তাদের নির্ধারিত রিভিউটি নষ্ট হবে না। তারা আরেকবার রিভিউ নিতে পারবে। যেহেতু ‘আম্পায়ার্স কল’র ক্ষেত্রে মাঠের সিদ্ধান্ত উল্টো হলেই রিভিউ সঠিক হয়ে যেত, সেক্ষেত্রে রিভিউটি বাতিল হওয়া দুর্ভাগ্যজনক। তাই রিভিউতে সফল হলে তাদের নির্ধারিত রিভিউটি অক্ষত থাকবে। বর্তমান নিয়মানুযায়ী, টেস্টের প্রথম ৮০ ওভারে প্রতিটি দল দুটি করে রিভিউ নিতে পারে। ওডিআইতে ইনিংসে একটি করে। নতুন নিয়মে প্রতি ৮০ ওভারে নতুন দুটি রিভিউ পাওয়ার নিয়মটা বাতিল হয়ে পুরো ইনিংসেই শুধু দুটো রিভিউ থাকবে। এখন থেকে টি-টুয়েন্টিতেও রিভিউ পদ্ধতি চালু হবে। আগে টি-টুয়েন্টিতে এই নিয়ম ছিলনা।

জরিমানাঃ খেলোয়াড়দের অতিরিক্ত আবেদনের ব্যাপারেও আসছে নিয়ম। এমনটা হলে প্রথমে খেলোয়াড়কে আম্পায়ার সতর্ক করে দিবেন। একই অপরাধ দ্বিতীয়বার করা হলে তাদের পাঁচ রান করে জরিমানা করতে পারবেন আম্পায়ার। প্রতিপক্ষ কোনো খেলোয়াড়ের সঙ্গে ইচ্ছা করে ধাক্কা খেলে বা কারো দিকে বল ছুড়ে মারলেও পাঁচ রান জরিমানা করা হবে।

red card in cricket.jpg

খেলোয়াড় বহিষ্কার বা লাল কার্ড: আর এক জনপ্রিয় খেলা ফুটবলের মতো শারীরিক শক্তি প্রদর্শনের বিষয় সেভাবে নেই ক্রিকেটে। কিন্তু স্লেজিং ও অন্যান্য বাজে আচরণের ঘটনা প্রায়ই ঘটতে দেখা যাচ্ছে ক্রিকেট মাঠে। কেউ সে রকম শাস্তিযোগ্য অপরাধ করলে এতদিন সেই শাস্তিটা দেওয়া হতো খেলার পর। যা নিয়ে কিছুটা বিতর্ক থেকে যেত। কিন্তু নতুন নিয়ম কার্যকর হলে মাঠেই খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবেন আম্পায়াররা। খারাপ আচরণ করা কোনো খেলোয়াড়কে তাৎক্ষণিকভাবে মাঠ থেকে বের করে দেওয়ার ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে আম্পায়ারদের হাতে। সেই দলের অধিনায়ক যদি আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত মেনে না নেন,তাহলে সঙ্গে সঙ্গেই জয়ী ঘোষণা করা হবে প্রতিপক্ষ দলকে। আর দুই দলের অধিনায়কই যদি আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেন,তাহলে ম্যাচটি পরিত্যক্ত ঘোষণার অধিকারও থাকবে আম্পায়ারের।

out2.jpeg

রানআউট: এছাড়া রান নেয়ার সময় ব্যাটসম্যান নিরাপদে ক্রিজ পার হওয়ার পর আবারও যদি তাঁর ব্যাট এবং শরীর- দু’টোই শূন্যে ভেসে ওঠে আর এই সময় তার স্টাম্প ভেঙে দেয়া হয় তাহলে ব্যাটসম্যান আউট হবে না। একবার ক্রিজ পার হলেই ব্যাটসম্যান তখনকার মতো নিরাপদ হয়ে যাবে। সম্প্রতি এমন ঘটনায় বেশ কয়েকজন ব্যাটস্যমান আউট হয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়েছে। তবে এবার সেটা বন্ধ হতে যাচ্ছে।

out1.jpg

মানকড় আউট: বোলার বোলিং করার সময় নন-স্ট্রাইকার ব্যাটসম্যান উইকেট থেকে বেরিয়ে এলে তাঁকে রানআউট করতে হলে বোলারকে আগে ক্রিজে ঢুকতে হয়। নতুন নিয়ম অনুযায়ী ক্রিজে না ঢুকেই বোলার ওই ব্যাটসম্যানকে রানআউট করতে পারবেন। তাই ব্যাটসম্যানদের আরও বেশী সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে ও বোলারদের আরও বেশী কৌশলী হতে হবে।

  • বল ডেড হওয়ার আগে ব্যাটসম্যান হাত দিয়ে বল ধরলে ফিল্ডারদের আবেদনের প্রেক্ষিতে ‘হ্যান্ডল দ্য বল’আউট দেওয়া হতো। এই আউট থাকছে। তবে তার নাম হচ্ছে ভিন্ন। সামনে থেকে এটাকে ‘অবস্ট্রাক্টিং দ্য ফিল্ড’হিসেবে অভিহিত করে আউট দেয়া হবে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এই নতুন নিয়ম গুলি চালু হলে ক্রিকেট খেলা আরও বেশী আকর্ষণীয় ও প্রতিযোগিতা মূলক হয়ে উঠবে, যা দর্শক সহ সকল মহলের জন্য উপভোগ্য হবে। এখন দেখার বিষয় আসলেই নতুন নিয়ম গুলো ক্রিকেটের আকর্ষণ বাড়াতে কোন ভূমিকা পালন করতে পারে কিনা।

About The Author
Md. Nizam Uddin
HR & Admin In-Charge at my office & article writer.
1 Comments
Leave a response

You must log in to post a comment