সাফল্যের গল্প

ব্রিলিয়ান্ট মাইন্ড! ব্রিলিয়ান্ট মার্কেটিং!

অনেক বছর আগে একজন ব্যবসায়ীর সাথে মিটিং হয়েছিল আমার। তিনি পাইকারী বাজারে নিজের তৈরী ঘি বিক্রি করেন। ফ্যাক্টরীও আছে। পাইকারী বাজারেই তার দুই রুমের অফিস। ভদ্রলোক অনুরোধ করেছিলেন তার সাথে যেন একটি মিটিং-এ বসি।

গেলাম একদিন। কথায় বুঝলাম তিনি স্থানীয়। লোকাল মার্কেটে বেশ ভালই ব্যবসা তার। তিনি তার নতুন ঘি এর মার্কেটিং করতে চান। আসলে ব্র্যান্ডিং করতে চান। ঘি এর কৌটা, লোগো, থেকে শুরু করে বিলবোর্ড – সবকিছুই।

নতুন পন্যের ব্যাপারে জিজ্ঞেস করলাম তার মাথায় কোন ধরনের থিম আছে কিনা। তিনি আমাকে পুরোনো কিছু প্রোডাক্ট দেখিয়ে বললেন, এরকম হলেই চলবে। কেমন যেন সব ক্যাটক্যাটে কালার, টেক্সটগুলো পুরাই খ্যাত, প্রেজেন্টেশন একেবারেই যা তা টাইপের। উনি বিজ্ঞাপনও চান ঠিক সে ধরনের থিমে।< আমি আইপ্যাড বের করে তাকে কিছু আধুনিক স্যাম্পল দেখালাম। বললাম কৌটার ডিজাইনগুলো আমন হতে পারে। ডিজাইন গুলো বেশ মডার্ন ছিল, টিনের কৌটাগুলো দেখতে অসাধারন আকষনীয়। যে কোন শেলফে রাখলে মানুষের আগ্রহ বাড়বে। তিনি জোর করলেন, উনি যা বলেছেন তাই হতে হবে। আমার মেজাজ খারাপ হলেও তাকে জিজ্ঞেস করলেম - কেন? একটু আপগ্রেড করলে ক্ষতি কি? উনি বললেন "আমার এই ঘি সবচেয়ে বেশী কোথায় বিক্রি হয় জানেন? গ্রামে। আপনারা শহরের মানুষরা কিন্তু এই ঘি জীবনেও দেখেন নি। কিন্তু আমার এই ঘি বিক্রি হয় হট কেকের মত গ্রামে গঞ্জে। আমি বললাম "তো কি হয়েছে"? জবাবে তিনি বললেন "আংকেল, গ্রামের দোকানগুলো কোনদিন দেখেছ? কেমন হয় জান? গ্রামে ৪০ ওয়াটের হলুদ রঙের একটা বাতি দিয়েই পুরো দোকান চলে। আধা অন্ধকার, আধা আলো। সেই আলোতেই সব কাজ চলে। সেই আলোতেই তাদের রঙ উঠে যাওয়া শেলফে তাদের পন্য রাখে। দোকানের বাইরে থেকে মানুষ প্রোডাক্ট খুজে। এবং ঠিক সেখানেই, আমার হলুদ রঙের ঘি এর কোটায় লাল কটকটে ঘি এর নামটি পরিস্কার ফুটে উঠে সেই আধা আলোর দোকানে যা বাইরে থেকেও মানুষ দেখে। এমন কি মোমবাতির আলোতেও আমার ঘি এর কৌটা অন্য কিছু থেকে উজ্জ্বল হয়ে থাকে। আপনার কালো, নীল, সিলভার ব্র্যান্ডিং দেখতে অনেক সুন্দর কিন্তু গ্রামের ঐসব দোকানে আপনার ব্র্যান্ডিং ফেল মারবে কারন প্রোডাক্ট দেখাই যাবে না। তাই আমার লাল-হলুদ ক্যাটক্যাটে কালারের থিম চাই। আমার সেল মার্জিন মাসে কোটি টাকা এই ব্র্যান্ডিং দিয়েই" । আমি তার যুক্তি কোনদিন খন্ডানোর সাহস করি নি। মার্কেটিং কি, ব্র্যান্ডিং কি, আসলেই এধরনের অভিজ্ঞ মানুষের সাথে দেখা না হলে জীবনেও শিখতাম না, জানতামই না। মার্কেটিং, ব্র্যান্ডিং - এগুলো এমন একটা ব্যাপার যা স্থান কাল পাত্র ভেদে হতে পারে নানা রকম। অনেক সময় মানুষের সাইকোলজির উপরও নির্ভর করে। যে ভদ্রলোকের কথা আমি বললাম তিনি চট্টগ্রামের চাকতাইয়ের পাইকারী মার্কেটের ব্যবসায়ী এবং অনেক সফল একজন ব্যাবসায়ী। টার্গেট মার্কেট অনেক বড় একটা ম্যাটার মার্কেটিং দুনিয়ায়। আপনি যদি আপনার টার্গেট মার্কেট বুঝতে না পারেন তাহলে আপনার পন্য কোনদিনও সফলতার মুখ দেখবে না কোটি টাকার মার্কেটিং ক্যাম্পেইন করলেও। ব্রিলিয়ান্ট ব্রেইন!

একই রকম আরো কিছু ফুটপ্রিন্ট

পৃথিবীর এক টুকরো স্বর্গরাজ্য, যার সুখ-আনন্দ আস্বাদনে উন্মুক সকলেই

MP Comrade

ছিলেন বস্তির ছেলে, হয়েছেন জীবন্ত কিংবদন্তী !!!

Ashraful Kabir

আছাড় খেলেই হাটতে শেখা যায়!

Asif Shehzad

Login

Do not have an account ? Register here
X

Register

%d bloggers like this: