খেলাধূলা

বিপিএল এবং আমাদের আক্ষেপ!

04_BPL2+1st+Semi+Final+Dhaka+vs+Sylhet+Gayle+bat+150213.jpg

 

বিপিএল আমাদের দেশের সবচেয়ে বড় ক্রীড়াআসর।আইপিএলের আদলে ২০১২ থেকে হয়ে আসছে বিপিএল।শুরু থেকেই একে নিয়ে অনেক বিতর্ক  ছিল।বিপিএল হতে আমাদের কিছু প্রাপ্তি থাকলেও আক্ষেপও আছে অনেক।প্রথমেই বলতে চাই কিছু প্রাপ্তির কথা বিপিএল পরবর্তী বাংলাদেশ এর যে পারফরমেন্সে উন্নতি হয়েছে তাতে বিপিএলের ও যথেষ্ট অবদান রয়েছে।বিপিএল থেকেই আমরা পেয়েছি সাব্বির রহমান,মমিনুল হকের মতো প্লেয়ার।বিপিএলের ফলে আমাদের তরুন খেলোয়াড়েরা বিদেশি প্লেয়ারদের সাথে ড্রেসিংরুম শেয়ার করতে পাচ্ছে যার ফলে তারা অনেক কিছু শিখতে পারে যা তারা পরবর্তীতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কাজে লাগাতে পারে।তারপরও যে আসর হতে পারে বাংলাদেশের ক্রিকেট ব্র্যান্ডিংয়ের কেন্দ্রবিন্দু, তার গায়ে কাল দাগ কেন? কেন এত আক্ষেপ এবং অপূর্ণতা।দুঃখজনক হলেও সত্য, ‘বিপিএল’ ‘বিতর্ক’ আর ‘অনিয়ম’ প্রায় পাশাপাশি। প্রথম আসর থেকে সেই যে বিতর্ক শুরু হয়েছে, তা বন্ধ হয়নি। বিপিএলের প্রাপ্তির মধ্যে রয়েছে অনেক আক্ষেপ।তেমনই কিছু আক্ষেপ হলঃ

১.ভেন্যু স্বল্পতাঃ বিপিএলে শুরু থেকেই খেলা হয়ে আসছে ২ কিংবা ৩টি মাঠে এরচেয়ে বেশি মাঠ কখনই ব্যাবহার করা হয়নি।তাই বিপিএল কে সারা দেশব্যাপী ছড়িয়ে দেয়া সম্ভব হয়নি।প্রতিবারই বিপিএল হয় ঢাকা,চট্টগ্রামে।মাঝেমধ্যে এদের সাথে যুক্ত হয়েছে খুলনা বা সিলেট স্টেডিয়াম কিন্তু কখনই বিপিএল হয়নি হোম অ্যান্ড এ অ্যাওয়ে ভিত্তিতে অথচ বিশ্বে অন্য যেসব টুর্নামেন্ট রয়েছে যেমনঃআইপিএল,সিপিএল,বিগ ব্যাশ এরা সবই হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে হয়।এইকারনেই বিপিএল এর প্রথম দিকে অনেক দর্শক হলেও পরে দর্শক সংখ্যা কমে যায় যেকারনে প্রতিবারই বিপিএল এর প্রথম দিকে টিকেটের চওড়া মূল্য থাকলেও পরে দাম অর্ধেক এ নেমে আশে ।কিন্তু খেলা যদি সারা দেশে হত তাহলে এরকম কখনই হত না ।একি মাঠ এ অতিরিক্ত ম্যাচ খেলানোর ফলে বিপিএল এ আমাদের অনেক লো স্কোরিং ম্যাচ প্রত্যক্ষ করতে হয়েছে।এই বছরও খেলা হবে শুধুমাত্র ৩টা স্টেডিয়ামে।তাই এই বছর ও হয়ত এইরকম কিছু হতে পারে।

২.ব্রডকাস্টিং ইস্যুঃবিপিএল এর প্রথম দুই আসর এ মোটামটি ভাল ভাবেই সম্প্রচার করেছিল চ্যানেল নাইন কিন্তু গত দুই আসর ধরে তাদের সম্প্রচার নিয়ে নানারকম প্রশ্ন উঠেছে কারন তাদের নিম্নমানের ক্যামেরাব্যাবহার,প্রতিশ্রুতি মোতাবেক ক্যামেরার সংখ্যা না হওয়া।গত আসর এ প্রথম দিকে বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি ছিল যেমনঃজিং বেল থাকবে কিন্তু শুধুমাত্র কয়েক ম্যাচ বাদে সেই বেইল আর দেখা যাইনি।আর সবথেকে বড় যে ইস্যু হচ্ছে মাত্রাতিরিক্ত বিজ্ঞাপন।তাদের বিজ্ঞাপন দেয়ার মাত্রা এতই বেশি ছিল যে দর্শকরা রীতিমত অতিষ্ঠ ছিলেন।ওভার শেষে তো বটেই তারা তো খেলা চলাকালীন অবস্থায় ও বিজ্ঞাপন দিয়েছিল।যদিও এবার সম্প্রচার সত্ত্ব আছে জি টিভির কাছে তাই আশা করা যায় এবার ভালরকম সম্প্রচার দেখা যাবে।

৩.ফিক্সিং কেলেঙ্কারিঃ বিপিএলের প্রথম আসরে এইরকম কোন বিতর্ক না হলেও দ্বিতীয় আসরেই ধরা পরে ফিক্সিং কেলেঙ্কারি যার ফলে নিষিদ্ধ হতে হয় আমাদের জাতীয় দলের অন্যতম খেলোয়াড় মোহাম্মাদ আশরাফুল।এছাড়াও নিষিদ্ধ হয় প্রথম দুই আসরের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস।এর ফলে বিপিএল এক বছর বন্ধ দিয়ে আবার নতুন করে শুরু হয় ২০১৫ সালে।

৪.পেমেন্ট ইস্যুঃগত আসরের পেমেন্ট নিয়ে তেমন একটা বিতর্ক না হলেও এর আগের ৩ আসর নিয়ে ছিল অনেক বিতর্ক।অনেক প্লেয়াররাই তাদের পেমেন্ট ঠিকমত পাননি কেউ পেয়েছেন অর্ধেক,কেউবা একটু বেশি পেয়েছিলেন কেউ পেয়েছিলেন তার চেয়েও কম।এই সমস্যার জন্য বিসিবি ৩য় আসর থেকে প্লেয়ারস ড্রাফ্‌ট শুরু করে।

৫.নিম্নমানের বিদেশি প্লেয়ারের সমারোহঃবিপিএলের প্রথম দুই আসরে মোটামটি ভালমানের বিদেশি প্লেয়ার আসলেও তৃতীয় আসর থেকে এখন পর্যন্ত বিপিএল শুধুমাত্র কয়েকটি দল ব্যতীত প্রায় প্রতিটি দলই পাকিস্তান , শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজের নিম্নমানের প্লেয়ার দিয়েই চলছে।কিন্তু এবারের বিপিএল এ দলগুলো অনেক ভাল খেলোয়াড়দের নিজের দলে নিয়েছে।তাই আশা করা যায় এবার বিপিএলটা হয়ত আগের চেয়ে ভাল হবে।

৬.বিদেশি প্লেয়ার কোটা বিতর্কঃ এবছর বিদেশি প্লেয়ার খেলানোর ক্ষেত্রে নতুন নিয়ম করেছে বিসিবি,যেখানে আগে একাদশে খেলতে পারত শুধু ৪ জন বিদেশি প্লেয়ার সেখানে এই বছর খেলতে পারবে ৫ জন।তাই এ নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক কারন একজন বিদেশি প্লেয়ার যদি বেশি খেলে তবে আমাদের দেশের একজন ক্রিকেটার সুযোগ পাবেনা তার ফলে হয়ত আমাদের দেশের তরুন খেলোয়াড়েরা নিজেদের প্রমানের সুযোগ কম পাবে। তাই বিদেশি প্লেয়ারের সংখ্যাবৃদ্ধিকে কেউ ভাল চোখে দেখছেনা।

বিপিএলের গত আসরগুলো নিয়ে নানারকম বিতর্ক থাকলেও বিপিএল এই বছর অনেক ভাল একটা টুর্নামেন্ট উপহার দিবে বলে আশা করি।হয়ত এইবার আমরা আন্তর্জাতিক মানের একটা টুর্নামেন্ট দেখতে পারব কারন এইবার প্রতিটা দলই অনেক ভাল প্লেয়ার নিয়ে মাঠে নামবে।এইবার হয়ত বিসিবি আমাদের একটা বিতর্কহীন,জমজমাট বিপিএল উপহার দিতে পারবে।

একই রকম আরো কিছু ফুটপ্রিন্ট

সবাইকে অবাক করে ফাইনালে পাকিস্তান

Rohit Khan fzs

তামিম কি তবে অদৃশ্য শক্তির চাপে সত্য গোপন করলেন?

Rohit Khan fzs

রানমেশিনঃ বিরাট কোহেলি

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy