Now Reading
সিডনিকে বদলে ফেলছে অস্ট্রেলিয়া



সিডনিকে বদলে ফেলছে অস্ট্রেলিয়া

অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে ব্যস্ততম শহর সিডনিকে তিন ভাগে  বিভক্ত করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে সে দেশের সরকার।শুধু তাই নয়, বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহরের তালিকার প্রথম ৩০টির মধ্যে রয়েছে সিডনি। জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়াতে  ‘গ্রেটার সিডনি কমিশন’ শহরটিকে বিভক্ত করার এ পরিকল্পনা করেছে। সিডনির জনসংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়ায় তার নাগরিক সেবা নিশ্চিত করতে ২০ বছরের পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। জনসংখ্যার এ সমস্যা মোকাবেলায় শহরটিকে তিন ভাগে বিভক্ত করার প্রাথমিক কাজ ইতিমধ্যে শুরু করেছে দেশটি। ধাপে ধাপে এ পরিকল্পনা বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে গত মাসে সিডনি বিভক্ত করার পরিকল্পনা প্রকাশ করা হয়। দেশটির অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় সিডনিতেই বিনিয়োগ বেশি। জনসংখ্যার বৃদ্ধির কারণে সিডনিতে আবাসন সমস্যা, কর্মসংস্থান সমস্যা ইত্যাদি প্রকট আকার ধারণ করতে পারে ভেবে এ পরিকল্পনা আগে ভাগেই নেয়া হচ্ছে। তিন ভাগে বিভক্ত করা হলে শহরটির অধিবাসীরা সহজেই বাসস্থান, চাকরির ও অন্যান্য নাগরিক সেবা দ্রুত পাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

শহরটির বিভক্ত তিনটি ভাগের নামও আলাদা আলাদা হচ্ছে। তিনটি অংশ হচ্ছে- ওয়েস্টার্ন পার্কল্যান্ড সিটি, সেন্ট্রাল রিভার সিটি ও ইস্টার্ন হারবার সিটি। বর্তমানে সিডনির জনসংখ্যা প্রায় ৫০ লাখ যা আগামী ৪০ বছরে বেড়ে দাঁড়াবে ৮০ লাখ এর মত। জনসংখ্যার বৃদ্ধির এই আশঙ্কায় তাদের নাগরিকদের সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতে এখন থেকেই ব্যাবস্থা নিচ্ছে দেশটি। ২০০৯-১০ অর্থবছর এবং ২০১৫-১৬ অর্থবছরের মধ্যে নিউ সাউথ ওয়ালস রাজ্যে শুধুমাত্র ঘরবাড়ি কিংবা জমিজমা কেনার হার বেড়েছে ১৪ শতাংশ যা দেশটির অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় দ্বিগুণ বেশি। পাশাপাশি বেড়েছে সাধারণ জীবনযাত্রার ব্যয়ও। জীবনযাত্রার মান দ্রুত ব্যয়বহুল হওয়ার পেছনে শহরটির আবাসন ও শিক্ষাঙ্গন এই দুটি খাতকেই কারণ হিসেবে দেখছেন দেশটির অর্থনীতিবিদরা।

অস্ট্রেলিয়ার অন্যান্য রাজ্যের রাজধানী মেলবোর্ন, ব্রিসবেন, পার্থ ও অ্যাডিলেডের তুলনায় সিডনির দৈনন্দিন ব্যবহৃত জিনিসপত্রের দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬.৪ শতাংশ। সিডনিতে জীবন যাত্রার মানের বৃদ্ধির হার অদূর ভবিষ্যতে শহরটিকে অর্থনৈতিক মন্দায় ফেলবে কিনা তা নিয়ে এখন থেকেই ভেবে রাখা হচ্ছে। তাই সব দিক বিবেচনায় নিয়ে আগেভাগেই পরিস্থিতি সামাল দিতে কাজ শুরু করে দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান কর্তৃপক্ষ। সিডনিকে তিন ভাগে বিভক্ত করে তৈরি হবে তিনটি শহর, আর এ তিনটি শহরে থাকবে পৃথক পৃথক নগর কর্তৃপক্ষ।  তিন শহরের যাতায়াত ব্যবস্থাতেও আনা হচ্ছে উন্নত প্রযুক্তি। সুতরাং আশা করা যায় নতুন এক সিডনির রুপ শিগ্রই দেখতে যাচ্ছে বিশ্ববাসী।

 

About The Author
MP Comrade
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment