খেলাধূলা

আর্জেন্টাইন সমর্থকরা নিষিদ্ধ রাশিয়া বিশ্বকাপে!

আর্জেন্টিনা ফুটবল দলের পাগলা একটি সমর্থক গোষ্ঠীর নাম ‘বারাস ব্রাভাস’। ফুটবল মাঠে সমর্থক হিসেবে এই বারস ব্রাভাসদের সুখ্যাতির চেয়ে কুখ্যাতিটাই দ্বিগুণ। ১৯৫০ সালে আর্জেন্টিনায় সর্বপ্রথম প্রতিষ্ঠা হয় বারাস ব্রাভাস নামের এই সংগঠনটি। ইউরোপের অন্যান্য চরমপন্থী সমর্থক সংগঠনের আদলে গড়ে উঠেছে দলটি এবং ধীরে ধীরে তা ছড়িয়ে পড়েছে লাতিন আমেরিকার অন্য দেশগুলোতেও। বারাস ব্রাভাস গ্রুপ আর্জেন্টিনার স্থানীয় ফুটবলে কুখ্যাত হিসেবে পরিচিত। গ্রুপটি আর্জেন্টিনার স্থানীয় ফুটবলের আসরে প্রায় প্রতিটিতেই তুলকালাম বাঁধিয়ে দেয়। মাঠে বোমা-পটকা ফাটানো, স্ল্যাং করা, বিকট সুরে চিল্লানো, বিকৃত অঙ্গভঙ্গি, মারামারি, বিশৃঙ্খলা থেকে শুরু করে যত সহিংস কাজ করা সম্ভব তার যেন সবটুকুই উজার করে দেয় তারা। আর্জেন্টিনা দল মাঠে খেললে দর্শক সাড়িতে বারাস ব্রাভাসরা এসব কর্মকাণ্ডের প্রায় সবগুলোই ‘সফল’ বাস্তবায়ন ঘটায়। অর্থাৎ আর্জেন্টিনা মাঠে খেলবে আর বারাস ব্রাভাসরা হট্টগোল পাকাবে না, এ যেন কল্পনাই করা যায় না। যার ফলে এদের অনেককেই চিহ্নিত করে স্থানীয় ফুটবল স্টেডিয়ামগুলোতে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাই আর্জেন্টাইন ফুটবল কর্তৃপক্ষ (এএফএ) বদনাম থেকে বাঁচতে আগেভাগেই রাশিয়াকে এমন তিন হাজার উগ্র সমর্থকদের তালিকা সরবরাহ করে। কেননা প্রতি বিশ্বকাপেই এই বারাস ব্রাভাসদের কারণে কথা শুনতে হয়েছে আর্জেন্টাইন ফুটবল ফেডারেশনকে (এএফএ)। আর্জেন্টাইন ফুটবল সংস্থাটি এই বারাস ব্রাভাসদের অসামাজিক কর্মকাণ্ডে এতটাই বিরক্ত যে শুধু তালিকা দিয়েই তারা ক্ষান্ত হয়নি, তারা সরকারি ছয়জন নিরাপত্তা কর্মকর্তাকে রাশিয়ায় প্রেরণ করছেন যারা সার্বক্ষণিক খেয়াল রাখবেন যেন আর্জেন্টিনার বারাস ব্রাভাসরা ফাঁকি দিয়ে মাঠে ঢুকে পড়তে না পারে। ফলে বারাস ব্রাভাসরা রাশিয়া গেলেও কোন ভেন্যুতে প্রবেশ করার সুযোগ থাকছেনা।

এদিকে রাশিয়াও স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে, দাঙ্গাবাজ কিংবা বিতর্কিত কোনো আর্জেন্টাইন সমর্থককে তারা অনুমোদন দেওয়া কিংবা স্বাগত জানাবে না। বিশেষ করে বারাস ব্রাভাস গ্রুপ এর সদস্যদের প্রতি তাদের বাড়তি মনযোগ থাকবে এবং বিশ্বকাপের ভেন্যুগুলোতে তারা কোনভাবেই প্রবেশ করতে পারবেনা। আর্জেন্টাইন ফুটবল ম্যাচের নিরাপত্তা পরিচালক গুইলারমো মাডেরো স্বীকার করেছেন আর্জেন্টাইন সমর্থকদের নামের তালিকা রাশিয়ার কাছে হস্তান্তরের বিষয়টি। ঐ কর্মকর্তা আরো জানিয়েছেন বিষয়টি নিয়ে রাশিয়ান ফেডারেশনের সাথে তাদের একটি চুক্তি হয়েছে। উল্লেখ্য যে, ২০১০ বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা-জার্মানি মধ্যকার কোয়ার্টার ফাইনালের পূর্বেই বারাস ব্রাভাসের নিজেদের মারামারিতে কেপটাউনে নিহত হয়েছে এক আর্জেন্টাইন সমর্থক, তখন এই সংগঠনটি ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দেয়। ফুটবল নিয়ে দাঙ্গায় আর্জেন্টিনার ঘরোয়া ফুটবলে প্রতি বছর হতাহতের ঘটনা প্রায় স্বাভাবিক বিষয় বলা যায়।

রাশিয়ায় ঢুকতে নিষেধাজ্ঞা এসেছে বটে আর্জেন্টাইন সমর্থকদের জন্য, তবে আশার কথা হচ্ছে সেটা কেবল আর্জেন্টিনা ফুটবল দলের উগ্র সমর্থক গোষ্ঠী ‘বারাস ব্রাভাস’ এর জন্য। শান্ত আর্জেন্টিনার ফুটবল সমর্থকদের মাঠে গিয়ে খেলা দেখতে কোন বাঁধা নেই।

একই রকম আরো কিছু ফুটপ্রিন্ট

বাংলাদেশ ফুটবলের পরিক্রমা

Rajib Rudra

ফিনিশারঃমাইকেল বেভান

Atikur Rahman Titas

মুস্তাফিজ ও একটি মুদ্রার কয়েন

MD GOLAM KIBRIA SAWON

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy