আন্তর্জাতিক রাজনীতি

প্রথম বিশ্ব যুদ্ধে যে সব ভুলের কারণে জার্মানির পরাজয় ঘটেছিল

এই রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ ১৯১৪ সালের জুলাই মাসের ২৮ তারিখে অস্ট্রো-হাঙ্গেরি এবং সার্বিয়ার মধ্যেকার যুদ্ধের মাধ্যমে প্রথম বিশ্ব যুদ্ধের সূচনা ঘটে। অল্প কিছু দিনের মধ্যেই এই যুদ্ধের প্রভাব পুরো ইউরোপ জুড়ে ছড়িয়ে পরে। পরবর্তিতে যা আটলান্টিক পার হয়ে মার্কিনমুল্লুকে বিস্তার ঘটে। তবে এশিয়ার কিছু দেশও এই ধ্বংসযজ্ঞে মেতে উঠেছিল। ১৯১৪ থেকে ১৯১৮ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ সময় ছিল এই মহাযুদ্ধের ব্যাপ্তি, এতে উভয়পক্ষের হতাহতের সংখ্যা এবং ধ্বংসযজ্ঞ এতটাই ভয়াবহ ছিল যে যা অতীত কালের অন্য সকল যুদ্ধের নৃশংসতা কে হার মানিয়েছে! শুধু তাই নয়, যে পরিমাণ অর্থনৈতিক ও ভৌগলিকভাবে যে পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা বিশ্বের জন্য ছিল পুরোপুরি নতুন এক অভিজ্ঞতা। এই যুদ্ধে বিশ্বের একাধিক রাষ্ট্রের অংশগ্রহণের ফলে এটাকে বলা হয় মহাযুদ্ধ বা বিশ্বযুদ্ধ।

প্রথম বিশ্ব যুদ্ধে সামরিক দিক থেকে জার্মানি ছিল সব দিক থেকে শ্রেষ্ঠ। কিন্তু রনাঙ্গনে ভুল চাল দেয়া হচ্ছে যুদ্ধ কৌশলের ব্যর্থতা। আসুন জেনে নিই কি কি কারণ ছিল জার্মানির পরাজয়ের পেছনে?

প্রথমত, জার্মানির পক্ষে দীর্ঘস্থায়ী যুদ্ধ পরিচালনা করা সম্ভব ছিলনা। কিন্তু ব্রিটেন ও ফ্রান্স উপনিবেশগুলো থেকে অর্থ ও লোকবল সংগ্রহ করে যুদ্ধকে বিলম্বিত করে।

দ্বিতীয়ত, সেনা পরিচালনা করার দিক থেকে জার্মানির বেশ অসুবিধা ছিল। ইউরোপের পূর্ব ও পশ্চিম সীমান্তে জার্মানিকে সেনা সমাবেশ করতে হয়েছিল- ফলে জার্মান সেনাবাহিনী দুভাগে বিভক্ত হয়ে যায়, যা তাদের যুদ্ধে পরাজয়ের অন্যতম কারণ।

তৃতীয়ত, রাশিয়ার বিপুল পরিমাণ সেনাবাহিনীর সামনে জার্মানি তার নিজ ভূখণ্ডে নিজস্ব সেনাবাহিনীকে এক রনাঙ্গন থেকে অন্য রনাঙ্গনে স্থানান্তর করা অসম্ভব ছিল। চারদিক হতে মিত্র পক্ষ জার্মানির সীমান্তে চাপ সৃষ্টি করলে জার্মানির বিপর্যয় ঘটে।

চতুর্থত, ব্রিটেন, ফ্রান্স ও আমেরিকার নৌ বাহিনীর তুলনায় জার্মান নৌবাহিনী ছিল অপেক্ষাকৃত দুর্বল। যা তাদের পরাজয়ের অন্যতম কারণ হিসেবে স্বীকৃত।

পঞ্চমত, সমুদ্রের উপর ব্রিটিশ নৌ শক্তির প্রাধান্য জার্মানির অর্থনৈতিক কাঠামোর উপর প্রচণ্ড আঘাত হানে। এছারা নিতান্ত প্রয়োজনীয় খাদ্যের অভাব ও অপুষ্টির ফলে জার্মানদের প্রতিরোধব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়ে। সর্বোপরি প্রথম বিশ্ব যুদ্ধ ছিল একটি জনযুদ্ধ।

এসব কারণে প্রথম বিশ্ব যুদ্ধে জার্মানি হেরে যায়। জার্মানির পরাজয় ছিলো তাদের জন্য অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক এবং জাতিগত অপমান। কিন্তু যে উগ্রবাদ জার্মানিকে প্রথম বিশ্ব যুদ্ধে টেনে নিয়ে গিয়েছিল, সেই উগ্রবাদিতার কারণেই জার্মানি পুনরায় দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের সূচনা করেছিল।

একই রকম আরো কিছু ফুটপ্রিন্ট

মিয়ানমারের কেন এই লুকোচুরি?

MP Comrade

শান্তির পথে উত্তর কোরিয়া

MP Comrade

পরস্পর বিরোধী তিন দেশের প্রত্যেকেই চীনের পরম মিত্র

MP Comrade

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy