Now Reading
সপ্তাহে মাত্র ৪দিনের শারীরিক ব্যায়াম ঠেকিয়ে দিতে পারে অনাকাঙ্ক্ষিত হৃদরোগ



সপ্তাহে মাত্র ৪দিনের শারীরিক ব্যায়াম ঠেকিয়ে দিতে পারে অনাকাঙ্ক্ষিত হৃদরোগ

হৃদপিণ্ডের সাথে যুক্ত প্রধান ধমনীগুলো অকার্যকর হয়ে পড়া রোধ করতে সপ্তাহে অন্তত চারদিন শরীরচর্চার প্রয়োজন। এর ফলে হৃদপিণ্ড নতুন করে সতেজ হয়ে কর্মক্ষম হয়ে উঠতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রে নতুন এক গবেষণায় উঠে এসেছে এমন তথ্য। তবে মার্কিন এই গবেষণায় মানুষের খাদ্যাভ্যাস, শিক্ষা এবং সামাজিক অবস্থানের বিষয়গুলো বিবেচনায় নেয়া হয়নি। আর এ বিষয়গুলোও দেহের সুস্থতায় ভূমিকা রাখতে সহায়ক।

মার্কিন এই নতুন গবেষণায় দেখা গেছে, সপ্তাহে কেবল দুই বা তিনদিন শরীরচর্চা করলে শরীরের সবগুলো ধমনীকে সতেজ রাখা সম্ভব হচ্ছেনা। কিন্তু সপ্তাহে চারদিন শরীর চর্চা করলে প্রায় সবকটি ধমনী কার্যকর হয় আর এই দিন যদি আরও বাড়ানো যায় তবে সবচেয়ে ভালো কাজ দেবে।  উপযুক্ত শরীরচর্চা করে হৃদপিণ্ড এবং রক্তবাহী নালীর দুরবস্থাকে বদলে ফেলা সম্ভব। তবে ষাটোর্ধ ব্যাক্তির পক্ষে এই সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ কেননা এই বয়সে হৃদপিণ্ডের অবস্থা বদল করা সম্ভব হয়না।

গবেষকদের মতে, যে কোনো ধরণের শরীরচর্চা হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। উপযুক্ত বয়স ও সময়ে প্রয়োজনীয় মাত্রার শরীরচর্চা হৃদপিণ্ড,ধমনী এবং শিরা-উপশিরা নতুন করে সতেজ করে তোলে। ফলে হৃদপিণ্ডে রক্ত সরবরাহ করা এবং পুনরায় তা বের করে শরীরের সর্বত্র ছড়িয়ে দেয়ার ভূমিকা পালন করে বেশ কিছু ধমনী। শরীরের ভেতরে থাকা এই ধমনীগুলোর আকৃতি চিকন নলের মত। বয়স বাড়ার সাথে সাথে এগুলো সংকুচিত হতে থাকে। এছাড়াও, অস্বাস্থ্যকর ও বিশৃঙ্খল জীবন যাপন ধমনীতে চর্বির আস্তরণ পড়তে সাহায্য করে। সপ্তাহের দুই থেকে তিনদিন ৩০ মিনিট নিয়মিত শরীরচর্চা করলে মাঝামাঝি আকৃতির যেসব ধমনী মাথায় ও ঘাড়ে রক্ত সরবরাহ করে, সেগুলো সতেজ ও কার্যকর থাকে। আর সপ্তাহে চার থেকে পাঁচদিন শরীরচর্চার ফলে মাঝারি ধমনীগুলোর পাশাপাশি প্রধান যে ধমনীগুলো বুক এবং পেটে রক্ত সরবরাহ করে, সেগুলোও সতেজ হয়ে উঠে।

About The Author
MP Comrade
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment