Now Reading
প্রসংগ চট্টগ্রামের ডাক্তার বনাম সাংবাদিক



প্রসংগ চট্টগ্রামের ডাক্তার বনাম সাংবাদিক

ডাক্তার যখন কসাই, সাংবাদিক যখন সাংঘাতিক…… আম জনতা কি?

আমের দামও কম না!

এবার থাম!

কোন কিছুই জাস্টিফায়েড না। মারামারি কর, কাঁদা ছোড়াছুড়ি কর – সব রোগীকে আরও রোগী বানাও – ব্যাপার না। সবাই একেবারে দেশ উদ্ধার করে ফেলছে।

যখন ডাক্তারদের ধর্মঘট চলছে একজন বা হাজার রোগী তার চিকিতসা অধিকার হারাচ্ছে। রাষ্ট্র তোমাদের ডাক্তারের লাইসেন্স দিয়েছে রোগীদের চিকিতসা করার জন্য, রাজনীতি না।

সাংবাদিকতার লাইসেন্স আছে কিনা জানিনা কারন আজকাল ঘরে ঘরে অনলাইন পত্রিকা চলে। কিন্তু, তাদেরও অধিকার নাই, অন্য হাজারো রোগীর চিকিতসা অধিকার হরন করার।

দোষ যে করেছে তাকে ধর, তাকে জেলে ঢোকাও। আইনের পথে যাও, আইন না থাকলে আইন বানাও সংসদে।

তু তু মে মে করে কিছু আসবে না। কে কি করে উলটে ফেলবে? কেউ ধোয়া তুলসী পাতা না – সুযোগ পেলে সবাই ব্যবসা করে নেয়। শুধু এক একজনের ধরন এক এক রকম।

যত খেলাই খেলো, সাধারন মানুষ এবং যত হাজারো রোগী সাফার করছে, ওদের ক্ষতিপূরন কে দিবে? সাংবাদিক নাকি ধর্মঘটে থাকা ডাক্তার? এটার জবাব দাও আগে।

একজন রোগী ভুল চিকিতসায় মারা গেছে, এরকম আগেও হাজারবার হয়েছে, কোনদিন দেখলাম না সাংবাদিকদের এগিয়ে এসে আন্দোলন করতে উলটো হাসপাতালের পক্ষে গেছে তাদের স্টেটমেন্ট। বুঝলাম এবার শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে এবং চেপে ধরার চেষ্টা চলছে কিন্তু তার মানে এই না যে আরো হাজারো রোগিকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিবে পরিস্থিতি খারাপ করে দিয়ে।

আর ডাক্তার যখন কসাই হয়ে যায় তখন রোগীর জীবনের মূল্য কমে যায়। যদি কসাই না হয়ে থাকেন তাহলে এসব সস্তা রাজনীতি ছেড়ে হাসপাতালে ফিরে যান আর রোগীদের সেবা করেন। রাষ্ট্র আপনাদের লাইসেন্স দিয়েছে রোগী বাঁচানোর জন্য, রাজনীতির জন্য না।

এন্ড অফ স্টোরি।

About The Author
NahidRains vLog
Independent Film Maker, CEO of NahidRains Pictures and President of Bangladeshism Project.
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment