সমসাময়িক চিন্তা

আমাদের সিস্টেম-ই যখন সিস্টেমে নেই…..

প্রতি বছর আমরা দেখি পরীক্ষার রেজাল্ট প্রকাশের পর দেশের বিভিন্ন স্থানে শিক্ষার্থীরা আত্মহত্যা করার চেষ্টা করে৷ কেউ সেই চেষ্টায় চলে যায় না ফেরার দেশে আবার কেউ বা সারাজীবনের জন্য ডিপ্রেশন নামক একটি পরম বন্ধুকে নিজের সঙ্গী করে নেয় সারাজীবনের জন্য৷

বইতে পড়েছিলাম- “শিক্ষার কাজ জ্ঞান পরিবেশন নয়, মূল্যবোধ সৃষ্টি করা”

কিন্তু, এই সমস্ত ছেলে-মেয়েরা শিক্ষিত হয়ে কাগজের তৈরী একটি সনদ না পেয়েই নিজেদের মূল্যবোধকে বিসর্জন দেয় প্রতিবছর৷
জন্মের পর থেকে মা-বাবা কত কষ্ট করেই না এদের লালন পালন করেছে। যখন যা চেয়েছে তা-ই দিয়েছে। যা আর কেউই ওদের কখনোই দিবেনা।

এখন মনে হচ্ছে,
শিক্ষা জীবনে পা রাখার পর ১২ বছর ধরে মা-বাবার কষ্টার্জিত অর্থ, সেবা, মায়া-মমতা, পরিশ্রম সবকিছু এরা একটি মাত্র উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন করার জন্যই গ্রহণ করেছে।

সেটি হচ্ছে – “ফলাফলকে কেন্দ্র করে বাবা-মায়ের যত্নে গড়ে দেওয়া শরীর/প্রাণটাকে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে দেয়া, অথবা বিষের কবলে শেষ করে দেওয়া”

Michael H. Hart তার লেখা ‘The 100: A Ranking of the Most Influential Persons in History’ অর্থাৎ ‘পৃথিবীর সর্বকালের সেরা ১০০ মনিষীর জীবনী’ বইতে নবী করীম (স.), উইলিয়াম সেক্সপিয়র, আব্রাহাম লিংকন, আলবার্ট আইনস্টাইন, আলেকজেন্ডার সহ ১০০ জন ব্যক্তির জীবনী তুলে ধরেছেন।

সব থেকে আশ্চর্যের বিষয় হলো – তার বইতে বর্ণিত ১০০ জনের বেশীরভাগ ব্যক্তিই জীবনে SSC/HSC তো দূরের কথা, কোনদিন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে/পেছনেও যায়নি। এদের নেই কোনো রুই-কাতলা টাইপের সার্টিফিকেট/ডিগ্রী!!!

তবুও এরা সর্বকালের সেরা৷ কারণ এরা কোনো কিছু শেখার জন্য শেখার চেষ্টা না করে বরং জীবনের জন্যে শিখেছে। অথছ আমরা শেখার জন্যেই জীবনের সবটুকু ব্যায় করে দেই।

আমরাও আর কি করবো?????

আগে থেকেই যে সিস্টেম কায়েম হয়ে এসেছে সেটিকেই সবাই ফলো করছি৷ ঐযে কথায় আছে- ‘আগের হাল যেই ভাবে যায়, পেছনের হালও ঠিক একই ভাবেই যায়’

আমরা কাগজের তৈরী একটি সনদ না পেয়ে জীবনকে থামিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করি, পরীক্ষায় কম নাম্বার পেলে হতাশ হই, GPA-5 না পেলে মনেকরি সবই বৃথা৷ ডিপ্রেশনে পড়ে জীবনটাকে ঠেলে দেই বিষন্নতায়৷ আমরা ভুলে যাই, আমাদের এই প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার আসল কাজ শুধুমাত্র একটি সনদ নয়, জ্ঞান-মূল্যবোধ তৈরী করা নিজেদের মাঝে৷ যে মূল্যবোধ নেই বলেই আমাদের সমাজ আজও অনেক পিছিয়ে৷

আমাদের এসব বুঝার সঠিক মানসিকতা থাকতে হবে যা আমাদের মাঝে নেই, মূল্যবোধ তৈরী করতে হবে যার অভাবে আমরা নিজেদের প্রতি আস্থা হারিয়ে ফেলি৷

যদিও মূল্যবোধ আর মানুষিকতার দোষ দিয়ে কোন লাভ আদৌতে নেই৷
দোষ তো সিস্টেমের…….যা আমাদের মত জাতির পক্ষে পরিবর্তনযোগ্য নহে….

একই রকম আরো কিছু ফুটপ্রিন্ট

রোবট সোফিয়া

Mohammad Abubakker Mollah

সমাজ আমাদের কী? দিচ্ছে!!! আমরা সমাজকে কী? দিচ্ছি!!!!…

MD. SHOHIDUL ISLAM

বিশ্বকাপ ফুটবল-আবেগ…. সাপোর্ট নাকি বাড়াবাড়ি?

ih imon

Login

Do not have an account ? Register here
X

Register

%d bloggers like this: