Now Reading
দুই পরাশক্তির বাণিজ্যের কঠিন লড়াইয়ের যাঁতাকলে পিষ্ট হবে বিশ্ব!



দুই পরাশক্তির বাণিজ্যের কঠিন লড়াইয়ের যাঁতাকলে পিষ্ট হবে বিশ্ব!

ইতিমধ্যে চীন আর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে শুরু হয়েছে ইতিহাসের কঠিনতম বাণিজ্যিক যুদ্ধ। ইতিমধ্যে গোটা বিশ্ব এর ভয়াবহতার আঁচ পেতে শুরু করেছে। বিষয়টি এমন নয়জে তা এই দুটি দেশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে, এর প্রভাব কিন্তু বিশ্ব ব্যাপী ছড়াবে। বিশ্বের এক নম্বর এবং দুই নম্বর অর্থনীতির মধ্যে এই বাণিজ্য যুদ্ধের পরিণতি নিয়ে বিশ্ব জুড়ে উদ্বেগ গভীর থেকে গভীরতর হচ্ছে। মি. ট্রাম্প কোনভাবেই এই উদ্বেগকে পাত্তা দিতে রাজী নন। তিনি প্রকাশ্যে বলেছেন – বাণিজ্য যুদ্ধ ভালো এবং আমেরিকার তাতে লাভই।

এরই মধ্যে পরস্পর দুই দেশের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়েছে, একে অপরকে দিয়েছে পণ্যের উপর শুল্ক আরোপের কড়া হুমকি। অবশ্য শুরুটা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, তার মতে- চীনের কাছে বাজার খুলে দিয়ে আমেরিকার মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে। তিনি বলছেন, ২০১৭ সালে আমেরিকার বাণিজ্য ঘাটতি ৮০০ বিলিয়ন (৮০,০০০ কোটি) ডলারে পৌঁছেছে যার প্রধান কারণ চীনের সাথে বাণিজ্যের ব্যাপকতা এবং তার ফলে ক্রমবর্ধমান ভারসাম্যহীনতা।

তিনি স্পষ্ট উল্লেখ করেছেন- চীন নানান কারসাজি করে যুক্তরাষ্ট্রে তাদের পণ্য পাঠায় যার পরিণতিতে আমেরিকার শত শত শিল্প-কারখানা বন্ধ হয়েছে ফলে লাখ লাখ মানুষ চাকরিহীন হয়েছে। তাই চীনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে গত সপ্তাহেই মি ট্রাম্প আমদানি করা ৬,০০০ কোটি ডলারের অ্যালুমিনিয়াম এবং ইস্পাত সহ চীনা পণ্যের ওপর শুল্ক আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন। এদিকে চীনও বসে নেই, তারা যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে গত সোমবারেই মার্কিন মদ, ফল, শুয়োরের মাংস সহ প্রায় ৩০০ কোটি ডলার মুল্যের আমদানি করা মার্কিন পণ্যের উপর শুল্ক বসিয়েছে।

এই যুদ্ধে কে জিতবে আর কে জিতবেনা তার চেয়ে বড় কথা হল এর নেতিবাচক প্রভাব গোটা বিশ্বকেই ভুগতে হবে। চলুন জেনে নিই কি কি মারাত্মক প্রভাব সৃষ্টি হতে পারে শক্তিধর এই দুই দেশের মধ্যকার বানিজ্যিক যুদ্ধে।

  • বাড়তি শুল্কের ফলে ইস্পাত শিল্পে দাম বাড়বে আমেরিকায় যা সেখানকার মধ্যবিত্ত পরিবারগুলোর জীবন যাত্রায় মারাত্মক প্রভাব ফেলবে।
  • আমেরিকায় স্টিল এবং অ্যালুমিনিয়াম শিল্প পুনর্জীবিত করতে এসব পণ্য আমদানিতে শুল্ক আরোপ করা হলেও আদৌ এই শিল্পে কত খানি চাকরির সুযোগ সৃষ্টি হবে কিংবা নাগরিকগণ আগ্রহী হবে তা নিয়ে বিশেষজ্ঞগণ সন্ধিহান।
  • বাড়তি শুল্কে যে চীন ক্ষতিগ্রস্ত হবে তা কিন্তু নয় এতে মার্কিনীদের মিত্ররাও যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত হবে এবং এতে তারা পাল্টা ব্যবস্থাও নিতে পারে।
  • চীনের অনমনীয় মনোভাব এবং যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে ১৮০টির মত মার্কিন পণ্যের ওপর শুল্ক বসিয়েছে।
  • ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্ত আমেরিকার অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে ইতিমধ্যে প্রভাব ফেলেছে। এই সিদ্ধান্তে সংসদেই নিজ দলের সদস্যদের তীব্র সমালোচনায় বিদ্ধ হয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এবং হোয়াইট হাউজের নীতি নির্ধারকদের মধ্যেও পক্ষ-বিপক্ষ নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত হয়েছে।
About The Author
MP Comrade
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment