ভ্রমন কাহিনী

বান্দরবানের বিস্ময়কর কিছু জলপ্রপাত!

বান্দরবান

চট্টগ্রাম বিভাগের দক্ষিণ-পূর্ব বাংলাদেশে অবস্থিত। এটি তার আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্য এবং স্বর্গীয় সৌন্দর্যের জন্য বাংলাদেশের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ও সুন্দর পর্যটক স্থান। কেউ বান্দরবান পরিদর্শন করলে গেলে অবশেষে তা শেষ না করে আসাটা অনেক কঠিন হয়ে পড়ে।কারন বান্দরবনের এক একটি জায়গা এতোটাই সুন্দর যে একটি ঘুরে আসার পর অন্যটিতে ঘুরার আগ্রহ আরও বেশি হয়ে যায়।এইসকল জায়গার অপরুপ সৌন্দর্য নিঃসন্দেহে আপনার আত্মা ছুয়ে যাবে। পাহাড়, নদী ও ঝর্ণার মিলনে এক অপরূপ সুন্দর বান্দরবান জেলা।এছাড়াও উপজাতীয় মানুষের খাবার, উপজাতীয় হস্তশিল্প ইত্যাদি দেখা এক অপরুপ আনন্দ দেয় মনকে।হাইকিংয়ে বান্দরবানের পাহাড়ে লুকিয়ে আছে অনেক জলপ্রপাত।যার একটি থেকে আরেকটির সৌন্দর্য মুগ্ধ করার মতো।

এরকমই কিছু জলপ্রপাত নিয়ে আজ আমরা আলোচনা করবো-

নাফাখুম জলপ্রপাত-

ছবি সংগ্রহ – flickr.com

বাংলাদেশে সবচেয়ে সুন্দর ও সর্ববৃহৎ জলপ্রপাতগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে নাফাখুম জলপ্রপাত।নাফাখুম জলপ্রপাত বাংলাদেশের বান্দরবান পার্বত্য জেলার অধীনে থানচি উপজেলার রিমাক্রি নামে একটি দূরবর্তী এলাকায় বন্য পাহাড়ী সুঙ্গু নদীর উপর অবস্থিত।নাফাখুম রেমাক্রি জলপ্রপাত নামেও পরিচিত।রেমাক্রি খালের পানি নাফাখুমে এসে প্রায় ২৫-৩০ ফুট নিচে গিয়ে এই জলপ্রপাতের জন্ম।এটি অত্যন্ত Adventure মূলক একটি জলপ্রপাত।

আমিয়াখুম জলপ্রপাত-

ছবি সংগ্রহ – plus.google.com

বিশ্বের অনেক বিখ্যাত পর্যটক স্থান হিসেবে বাংলাদেশের অনেকগুলি স্থান আকর্ষণীয়। আমিয়াখুম জলপ্রপাত তাদের মধ্যে একটি।আমিয়াখুম জলপ্রপাত বাংলাদেশে সবচেয়ে সুন্দর জলপ্রপাত। এটি ভ্রমণ করার জন্য একটি চমৎকার জায়গা। এটি বান্দরবন জেলার অন্তর্গত থানচি উপজেলার তিন্দু নামে একটি দূরবর্তী এলাকায় অবস্থিত। এই জলপ্রপাত বাংলাদেশ-মায়ানমার সীমান্তবর্তী বান্দরবান অঞ্চলে সবচেয়ে দূরবর্তী এলাকায় অবস্থিত। বাংলাদেশের এমন ঐশ্বর্য এর অবস্থান চোখে না দেখলে বিশ্বাস করা যায় না।

ভেলাখুম জলপ্রপাত-

ছবি সংগ্রহ -deskgram.net

 

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি বান্দরবানের থানচিতে অবস্থিত আমিয়াখুম ঝর্না থেকে সামান্য উপরে উঠলেই শুরু হয় ছোট-বড় অনেক পাথর দিয়ে সাজানো পাথরের রাস্তা।খুব সাবধানতার সাথে রাস্তাটুকু পার করার পর সামনে পরবে বিশাল আকৃতির পাথরের পাহাড় আর তার মাঝে সবুজ শান্ত ও স্বচ্ছ জলধারা।আর এখান থেকেই শুরু হয় ভেলাখুম জলপ্রপাত।যাকে অনেকে সাতভাইখুম জলপ্রপাত ও বলে থাকে।ভেলাখুম জলপ্রপাত এর রুপ-সৌন্দর্যের বিবরন দিতে সকল উপমা ব্যবহার করলেও হয়তো এর সৌন্দর্য বর্ণনায় কম হবে।

শৈল জলপ্রপাত-

ছবি সংগ্রহ -learnphotoshoot.com

বান্দরবান রুমা সড়কের ৮ কিলোমিটার দূরে শৈলপ্রপাত অবস্থিত। এটি প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপূর্ব সৃষ্টি। ঝর্ণার হিমশীতল পানি এখানে সর্বদা বয়ে যায়। এই ঝর্ণার পানিগুলো খুবই স্বচ্ছ এবং শীতল। বর্ষাকালে এ ঝর্ণার দৃশ্য দেখা গেলেও ঝর্ণাতে নামা দুস্কর। বছরের বেশীর ভাগ সময় দেশী বিদেশী পর্যটকে ভরপুর থাকে এই শৈল প্রপাত। রাস্তার পাশে শৈল প্রপাতের অবস্থান হওয়ায় এখানে পর্যটকদের ভিড়ও বেশী দেখা যায়। এখানে দুর্গম পাহাড়ের কোল ঘেষা আদিবাসী বম সম্প্রদায়ের সংগ্রামী জীবনও দেখা যায়।এছাড়াও জলপ্রপাতের কাছাকাছি ছোটো ছোটো বাজার রয়েছে যাতে বিভিন্ন হস্তশিল্প,হ্যান্ডলুম পণ্য এবং উপজাতীয় মানুষের খাবর পাওয়া যায়।

 

ঋজুক জলপ্রপাত-

ছবি সংগ্রহ -BDsearcher.com

 

রুমা উপজেলায় অবস্থিত ঋজুক জলপ্রপাত প্রায় 300 ফুট উঁচু এবং পানির ধারাবাহিক প্রবাহ যা সাঙ্গু নদীতে পড়ে। এই জলপ্রপাত বিভিন্ন প্রাকৃতিক সম্পদ দ্বারা পরিবেষ্টিত হয়। বান্দরবান শহর থেকে ৬৬ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে এটি অবস্থিত। এই জলপ্রপাতে সারা বছরই পানি থাকে।তবে বর্ষার সময় ঋজুক সাঙ্গুর বুকে এত বেশি পানি ঢালে যে প্রবল স্রোতে জলপ্রপাতের কাছে পৌঁছাতে বড় ইঞ্জিন নৌকোগুলোও বেগ হারিয়ে ফেলে।ঋজুকের উল্টো পাশে নতুন ঋজুকপাড়া নামে মারমাদের একটি পাড়া আছে।আর তার পাশে পাহাড়ের ওপরে বমদের যে পাড়াটির নামও ঋজুকপাড়া।সেখানে গেলে এসব আদিবাসীদের জীবনধারাও অবলোকন করা যায়।

জাদিপাই জলপ্রপাত-

ছবি সংগ্রহ -Trip Navigation Bangladesh

 

বান্দরবান জেলা রুমা উপজেলার কিকারাডং শিখর থেকে দুই ঘণ্টা হাঁটা দূরত্ব অতিক্রম করে দেখা মেলে জাদিপাই জলপ্রপাতটির।জাদিপাই জলপ্রপাত ও বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জলপ্রপাতগুলির একটি।জাদিপাই জলপ্রপাত দেখার জন্য সত্যিই চমৎকার একটি জায়গা। বৃষ্টির সময় জাদিপাই জলপ্রপাতের পানি প্রবাহ শক্তিশালী হয়ে যায়।এই জল শীতল এবং স্বচ্ছ। যদিও এই এলাকার পথ মসৃণ নয় তবে সেখানে পৌঁছলে শান্তির এক ইচ্ছা অনুভব হয়।বান্দরবানের পাহাড়ী এলাকার অভ্যন্তরে জাদিপাই জলপ্রপাত গভীরভাবে অবস্থিত। এটি বাংলাদেশের সবচেয়ে মনোরম জলপ্রপাত।এই জলপ্রপাত বাংলাদেশের সকল জলপ্রপাতের দেবী।

চিংড়ি ঝিরি জলপ্রপাত-

ছবি সংগ্রহ -youtube.com

 

চিংড়ি ঝিরি জলপ্রপাত রুমা উপজেলা এবং বোগা হ্রদে অবস্থিত। কিছু বড় শিলা এবং নুড়ি পাথরের মাধ্যমে এটি বোগা হ্রদ থেকে প্রায় এক ঘন্টা হাঁটার সময় লাগে এই জলপ্রপাতটিতে পৌঁছতে।বেশকিছু বিশালাকার পাথর খণ্ড অতিক্রম করে আসতে হবে এই চিংড়ি ঝিরি জলপ্রপাতটিতে।

বান্দরবান যে শুধুমাত্র জলপ্রপাতের জন্য শীর্ষে তা নয় সুন্দর সন্দর জলপ্রপাত ছাড়াও এখানে দর্শনীয় অনেক স্থান রয়েছে।নীলগিরি,নীলাচল,বোগা লেকে,ডিম পাহাড়,স্বর্ণমন্দির,রাজাপাহাড় সহ আরও অনেক জায়গা যার একটি থেকে আরেকটি চোখ ধাঁধানো সুন্দর।

একই রকম আরো কিছু ফুটপ্রিন্ট

এই ভিন্নজগৎতে ভিন্ন রুপ

Md.Biplab Hossain

অপার্থিব বান্দরবন – আমিয়াখুম

Sazid Hossain Upam

ওয়ার্ল্ড স্কেয়ারিস্ট ব্রীজ “ঝাংজিয়াজি গ্র্যান্ড ক্যানিয়ান”

salma akter

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy