Now Reading
মাদুরে সরকার গুয়াইদোর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন



মাদুরে সরকার গুয়াইদোর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন

মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন জানিয়েছেন ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোকে উৎখাতে বৃহত্তর ঐক্য গড়তে যুক্তরাষ্ট্র কাজ করছে বলে জানিয়েছেন। তিনি হুঁশিয়ার করে দিয়ে আরো বলেন স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট হুয়ান গুয়াইদোর কোনো ক্ষতি হলে মাদুরো প্রশাসনকে চড়া মূল্য দিতে হবে। অন্যদিকে ভেনেজুয়েলায় সম্ভাব্য মার্কিন আগ্রাসন প্রতিহতের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে রাশিয়া।
ঐদিকে মাদুরো সরকার ঘোষণা দিয়ে বলেন নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় গুয়াইদোর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আটকের হুমকি উপেক্ষা করেই গতকাল রবিবার ইকুয়েডর থেকে কারাকাসের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছেন ভেনেজুয়েলার স্বঘোঘিত অন্তবর্তী প্রেসিডেন্ট হুয়ান গুয়াইদো। স্থানীয় সময় সোমবার সকালে তার ভেনেজুয়েলায় পৌঁছানোর কথা। ইতোমধ্যে প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো বিরোধী গণআন্দোলন জোরদারের জন্য কর্মী সমর্থকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন গুয়াইদো। এর আগে ইকুয়েডরের প্রেসিডেন্ট লেলিন মোরেনোর সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। বৈঠক শেষে সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে মাদুরো সরকারের প্রতি আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেন গুয়াইদো।
ভেনেজুয়েলার স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট হুয়ান গুয়াইদো বলেন, এক নায়কতন্ত্রের দুঃশাসন থেকে মুক্তির লক্ষ্যে নতুন নির্বাচনেরে দাবিতে পুরো ভেনেজুয়েলাবাসী ঐক্যবদ্ধ। আমরা সংঘাত চাই না। তবে আমাদের দেশে কোনো শান্তি নেই। মানুষ না খেয়ে, বিনা চিকিৎসায় মারা যাচ্ছে। মাদুরো সরকার জনগণের জন্য ত্রাণ সহায়তাও পৌঁছাতে দিচ্ছে না। আমরা সঙ্কটের সুষ্ঠু সমাধান চাই।
নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গত সপ্তাহে সমর্থন আদায়ে লাতিন আমেরিকা সফরে যান গুয়াইদো। ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আমান্য করায় তাকে ৩০ বছরের কারাদণ্ড ভুগতে হবে বলে জানিয়েছেন ভেনেজুয়েলার সর্বোচ্চ আদালতের বিচারক কার্লোস ভালদেজ।
এরমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও ইংল্যান্ডের ব্যাংকে আটকা পড়া সম্পদ ও অর্থ উদ্ধারে মাদুরো প্রশাসন কাজ করছে বলে জানান ভেনেজুয়েলার ভাইস প্রেসিডেন্ট দেলচি রদ্রিগেজ।
ভেনেজুয়েলার ভাইস প্রেসিডেন্ট দেশচি রদ্রিগেজ বলেন, ইংল্যান্ডের ব্যাংক অনৈতিকভাবে আমাদের যে সম্পদ জব্দ করেছে সেগুলো পুনঃরুদ্ধারে ইতোমধ্যে আমরা আইনজীবী নিয়োগ দিয়েছি। হুয়ান গুয়াইদোকে দেয়ার উদ্দেশ্যে যুক্তরাষ্ট্র আমাদের যে অর্থ জব্দ করেছে সেগুলো উদ্ধারেও আমাদের তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। গুয়াইদো শুধু দেশে নিজেকে হাস্যকর ব্যক্তি বানাননি তিনি ক্রমাগতভাবে আন্তর্জাতকি অঙ্গনেও তাচ্ছিল্যের পাত্র হচ্ছেন। সরকার উৎখাতে ষড়যন্ত্রের কারণে ইতোমধ্যে তার বিরুদ্ধে আমরা আইনগত পদক্ষেপ নিতে শুরু করেছি।
এরমধ্যেই গুয়াইদোর কিছু হলে মাদুরো প্রশাসনকে চড়া মূল্য দিতে হবে বলে আবারও হুঁশিয়ার করেছেন মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন। এছাড়া মাদুরো প্রশাসকে উৎখাতে বৃহত্তর ঐক্য প্রতিষ্ঠায় যুক্তরাষ্ট্র কাজ করছে বলেও জানান তিনি।
মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন বলেন, দুর্নীতিগ্রস্ত মাদুরো সরকারকে উৎখাতে বৃহত্তর ঐক্য গড়ায় কাজ করছি আমরা। আমরা একাই ভেনেজুয়েলাকে মোকাবিলা করতে পারি। কিন্তু আমরা চাই সবাইকে নিয়ে ভেনেজুয়েলায় পূর্ণ গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায়।
মার্কিন সামরিক আগ্রাসন প্রতিহত করতে সম্ভাব্য সবধরনের ব্যবস্থা গ্রহণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে রাশিয়া। রুশ কেন্দ্রীয় পরিষদের স্পিকার ভেলেন্তিনা মাতভিয়েনকো বলেন, ভেনেজুয়েলায় সামরিক পদক্ষেপ পরিচালনার জন্য ইস্যু খুঁজছে যুক্তরাষ্ট্র। তাদের কার্যক্রমের বিষয়ে সতর্ক মস্কো। ভেনেজুয়েলায় অবৈধ হস্তক্ষেপ করলে তা হবে আগ্রাসন এবং আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন। রাশিয়া তা কখনো মেনে নেবে না।
কয়েক বছর ধরে চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতা, চরম মুদ্রাস্ফীতির মধ্যে ফেব্রুয়ারিতে মাদুরোর বিরুদ্ধে ভোটে কারচুপির অভিযোগ উঠে। ২৩ ফেব্রুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন হুয়ান গুয়াইদো সে সুযোগে । অন্তত ৫০ দেশ গুয়াইদোকে সমর্থন দেয় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ লাতিন আমেরিকা ও ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ । ভেনেজুয়েলা ইস্যুতে বিভক্ত হয়ে পড়ে বিশ্বরাজনীতি, রাশিয়া, তুরস্ক ও ইরান মাদুরোর প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখার কারণে।

About The Author
Md Meheraj
Md Meheraj
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment