Now Reading
জনাকীর্ণ এলাকার বাসস্ট্যান্ডে গ্রেনেড হামলা……



জনাকীর্ণ এলাকার বাসস্ট্যান্ডে গ্রেনেড হামলা……

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের পুলওয়ামাতে সে দেশের আধাসামরিক বাহিনীর ওপর জইশ-ই-মোহাম্মদের স্বঘোষিত আত্মঘাতী হামলায় ৪০ জন নিরাপত্তাকর্মী নিহত হলে এই পর্যায়ের ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনা শুরু হয়। হামলায় রাষ্ট্র হিসেবে পাকিস্তানের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ তুলে ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের মাটিতে বিমান হামলা চালায় ভারত। এরপর থেকেই শুরু হয় পরস্পরের বিরুদ্ধে হামলা ও একে অন্যের হামলা প্রতিহত করার খবর। দুই দেশই একে অপরকে শাসাচ্ছে নিজেদের হাতে থাকা শতাধিক পারমাণবিক অস্ত্রের ইঙ্গিত সামনে এনে। ভারতের দাবি, পাকিস্তানের প্রত্যক্ষ ইন্ধনে ভারতের মাটিতে জঙ্গি তৎপরতা চলছে। তবে পাকিস্তান তা অস্বীকার করে আসছে। এরইমধ্যে আবারও কাশ্মির জঙ্গি হামলার কবলে পড়লো।

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরে যে কোনও জঙ্গি হামলায় সাধারণত সে দেশের নিরাপত্তা বাহিনীকেই লক্ষ্যবস্তু করা হয়ে থাকে। তবে প্রচলিত ধারার বাইরে এসে এবার একটি জনাকীর্ণ এলাকায় গ্রেনেড হামলা চালানো হয়েছে। সীমান্তবর্তী শহর জম্মুর মাঝামাঝি অবস্থানে থাকা এক বাসস্ট্যান্ডে গ্রেনেডটি বিস্ফোরিত হয়েছে। বাসের নিচে পেতে রাখা গ্রেনেডে অন্তত ২৬ জন আহত হয়েছে। আহতদের সবাই বাসের চালক ও সহকারী। তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বিশ্লেষকরা যদিও মনে করেন, সামরিক বলপ্রয়োগের মধ্য দিয়ে ভারত কাশ্মির সংকটের সমাধান করতে পারবে না, তবু ক্রমশ সামরিক তৎপরতায় কঠোরতা এনেই বিবাদমান সমস্যার সমাধান করতে চাইছে দিল্লি। তবে জঙ্গি হামলা থামছে না।

বৃহস্পতিবারের গ্রেনেড হামলার প্রসঙ্গে ভারতীয় পুলিশ কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, একটি বাসের নিচে রাখা গ্রেনেডে বিস্ফোরণে মানুষ হতাহত হয়। তবে বিস্ফোরণের সময়ে বাসের অভ্যন্তরে যাত্রী ছিলো কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এক পুলিশ কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘পুলিশ সব ধরনের সম্ভাবনা খতিয়ে দেখছে। প্রমাণ সংগ্রহ করা হচ্ছে। আমরা হামলাকারীদের ধরে ফেলবো’।

দুই মাস আগে জম্মুর মূল বাসস্ট্যান্ডে একই ধরনের একটি বিস্ফোরণ হয়েছিল। তবে সেই গ্রেনেড লক্ষ্যচ্যুত হয় এবং বাতাসে বিস্ফোরিত হয়। এতে কেউ হতাহত হয়নি।

About The Author
salma akter
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment