Now Reading
শ্রেণীকক্ষে মাদক সেবন করল এক শিক্ষক



শ্রেণীকক্ষে মাদক সেবন করল এক শিক্ষক

মাদক হচ্ছে এমন একটা বিষয় যা সেবনের ফলে একটা জাতীই ধবংস হয়ে যেতে পারে। এই কারনেই বিভিন্ন স্কুলকলেজে ছাত্রছাত্রীদের মাদকের কুফল সম্পর্কে বিভিন্ন ভাবে বুঝানো হয়। শিক্ষক হচ্ছেন ছাত্রছাত্রীদের আদর্শ। ছাত্রছাত্রীরা শিক্ষক থেকেই শিখেন। কিন্তু সেই শিক্ষকই যদি ক্লাসে মাদক সেবন করেন, তাহলে ব্যপারটা কেমন হয়। এমনটাই ঘটেছে একটি বিদ্যালয়ে।
ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার পূর্ব কয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মনিরুজ্জামান রানার বিরুদ্ধে স্কুলে মাদক সেবনের অভিযোগ উঠেছে।
ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলায় বিদ্যালয়ে ক্লাস চলাকালে মাদক সেবন করার অভিযোগে এক শিক্ষককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। পুলিশ এ সময় তাঁর কাছ থেকে দুই পুরিয়া গাঁজাও উদ্ধার করে।
গতকাল রোববার দুপুর ১২টার দিকে দপদপিয়া ইউনিয়নের পূর্ব কয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।
এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিদ্যালয়ে যোগদানের পর থেকে ওই শিক্ষক ক্লাসে বসে মাদক সেবন করতেন। বিষয়টি ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকে জানতে পেরে এলাকাবাসী তাঁকে মাদক সেবন করতে নিষেধ করে। গতকাল দুপুরে এলাকাবাসী ও অভিভাবকেরা বিদ্যালয়ে আবার মাদক সেবনের খবর পেয়ে ওই শিক্ষককে হাতেনাতে আটক করেন। এ সময় তাঁর কাছে থেকে দুই পুরিয়া গাঁজা উদ্ধার করা হয়। পরে পুলিশ এসে তাঁকে নলছিটি থানায় নিয়ে যায়।
উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্র জানায়, গত এক মাস আগে এলাকাবাসীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষা অফিস বিষয়টি তদন্ত করে। তারা ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ে মাদক সেবনের সত্যতা পায়। তদন্ত কমিটি তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা শিক্ষা অফিসকে অনুরোধ করে। বর্তমানে বরিশাল শিক্ষা অফিসের বিভাগীয় উপপরিচালকের কার্যালয়ে তাঁর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করার প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।
নলছিটি উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা অনিতা রানী বলেন, তিনি বিদ্যালয়টি পরিদর্শন করেছেন। পুলিশ তাঁর বিরুদ্ধে নিয়মিত মাদক আইনে মামলা করতে পারে। তবে তাঁর বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ে মাদক সেবনের দায়ে বিভাগীয় মামলা হচ্ছে।
নলছিটি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল হালিম জানান, বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফুল ইসলাম বলেন, শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। তবে পুলিশ ইচ্ছা করলে মাদক আইনে মামলা করতে পারে।

About The Author
MD BILLAL HOSSAIN
MD BILLAL HOSSAIN
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment