বিদেশী সিনেমা রিভিউ

X-man Dark Phoenix নিয়ে কিছু অজানা তথ্য

X-man dark Phoenix  যখন প্রথম ট্রেইলার বের হয় তখন অনেকে দেখে বুঝেছিল X-man থেকে কিছু ক্যরেকটার মারা যাবে, এবার ট্রেইলার ২ দেখে সবাই নিশ্চিত হয়েছে কোন ক্যরেকটার মারা যাবে। এবার ট্রেইলারে আসি, ট্রেইলারে দেখা যায় Beast  কে রাগান্বিত অবস্থায়, Charles Xavier তার সামনে বসা। নিশ্চয়ই এমন কিছু হয়েছে বা কেও মারা গিয়েছে যার কারনে Xavier এর উপর ক্ষেপে আছে।

এ মুভিতে আমাদের জনপ্রিয় ক্যরেকটার  মারা যাবে। কেননা ট্রেইলারে দেখা যায় Mystique কিছু একটা বুঝাচ্ছে Jane কে। এরপর দেখা যায় তার নিজের নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ফেলেছে। আর আমরা সবাই জানি Jane হচ্ছে অনেক শক্তিশালী X-man দের মধ্যে একজন। এটি সুপারপাওয়ার যে সে নিজেই নিজেকে নিয়ন্ত্রন করতে পারে না। আর Mystique তার পুরো শক্তির সম্মুখীন হওয়া মানে মৃত্যু অনিবার্য। হয়ত এটাই একমাত্র কারণ যা Beast ক্ষুব্দ হয়ে Charles Xavier এর সঙ্ঘ ছাড়ে। এবং Eric এর সাথে যোগ দেয়। আমরা এটাও জানি Eric(Magnato) হচ্ছে Mystique এর অনেক ভালো বন্ধু।  যার কারনে Jane এবং Eric এর মধ্যে লড়াই হয়। তবে Jane কে মারা এতটা সহজ না, তা আমরা অনেক আগেই দেখেছি।

jessica chastain নতুন ক্যরেকটার। প্রথম ট্রেইলারে আমরা সামান্য দেখেছিলাম jessica chastain AKA Tabitha Smith এর সামান্য শক্তি সম্পর্কে। কিছুদিন আগে একটি ইন্টারভিউরে সে নিজেই বলেছে সে ই হচ্ছে অন্য গ্রহ থেকে আসা ভিলেন। যে কিনা Jane এর শক্তি ব্যবহার করে নিজের গ্রহের সাহায্য করতে পারে।

আমরা Jane Grey এর কিছুটা মাত্র Superpower দেখেছি X-Men: Apocalypse মুভিতে। মূলত এই মুভিতেই আমরা তার আসল Superpower সম্পর্কে জানব। আমরা আগে থেকেই জানি Jane Grey এর এতটাই শক্তি যে সে নিজের শক্তি নিজেই নিয়ন্ত্রন করতে পারত না। X-Men: Apocalypse মুভিতেও দেখেছি Jane Grey তার Superpower নিয়ে চিন্তায় আছে।

এখানে দেখানো একটি স্পেস মিশনে যা হবে তা হচ্ছে Jane Grey এর সমস্ত Superpower রূপে।যার কারনে সে হয়ে যাবে dark Phoenix, মানে একটি GOD এর সমান। যা পুরো একটি গ্রহকে ধ্বংস করে দিতে পারবে।

Charles Xavier AKA Professor X হয়ত ভেবেছে Jane Grey কে তার Superpower এর সঠিক ব্যবহার শিখাবে। কিন্তু সে হয়ত dark Phoenix হয়ে যাওয়ার কারনে তা পারবে না, যার কারনে Jane যখনই কোন খারাপ কাজ করবে তার দায়ভার সব Charles Xavier এর কাছেই যাবে। যার কারনে X-man ভাগ হয়ে যাবে দুইটি টিমে। তবে এই মুভির হিরো X-man ই হবে।

Charles Xavier এর পক্ষে থাকবে Nightcrawler, Storm, Cyclops, অপরদিকে থাকবে, Eric, Beast এবঙ অন্য দুটি ক্যরেক্টার যা এখনো অজানা।

Cyclops জানে Jane এর প্রচুর শক্তি এবং সে পৃথিবীর জন্য অনেক খারাপ মানুষ। তারপরো সে বাঁচাতে চায়।

পরের মিশনে দেখা যায় অন্য টিম বাদে Charles Xavier এর সাথে সবাই থাকবে, এবং অন্য টিম Beast, Eric চাইবে Jane কে মেরে ফেলতে। তবে Eric এবং Beast এর শক্তি Jane এর শক্তির তুলনায় কিছু না। তবে সে(Jane) তাদের মারতে চায় না। ট্রেইলারে প্রথমেই তা দেখা যায় সে Phoenix এর সাথে কথা বলছে।

তারপর দেখা যায় কিছু মানুষ MCU পোশাকে এসে সব Mutants দের ধরে নিয়ে যায়। এবং তাদের সবার গলায় Superpower রোধকের মত কিছু দেখা যায়। তবে এরা কেন ধরে নিয়ে যাচ্ছে তা একনো বলা যাচ্ছে না। এই Superpower রোধক আমরা Deadpool 2 তেও দেখি।

যেখানে দেখা যাচ্ছে দুইটা টিম একটা বাঁচাতে/মারতে এসেছে সেটা ছাড়াও দেখা যায় Jane তার নিজের শক্তির সাথে যুদ্ধ করতে। আর ট্রেইলারে দেখে বুঝা যাচ্ছে হয়ত এখানেই তাদের শেষ যুদ্ধ হবে।

OFF Topic

 

কেন জানি মনে হচ্ছে এই মুভি X-man : The Last Stand এর মতই হবে। কেননা প্রত্যেকটা শর্ট যদি মিলাই তবে এমনি মনে হচ্ছে, যেমন দুটিতেই কোন একটি গুরুত্বপূর্ণ Mutrant মারা গেসে/জাবে। jane ঘরে ফিরে যাবে। আরো  অনেক কিছু।

হয়ত এমন হতে পারে 20th Century Fox নতুন ইফেক্টের মাধ্যমে আবার একি গল্প আমাদের সামনে এনেছে। যা হয়ত পরে MCU(Marvel Cinematic Univers) এর সাথে কোন ধরনের চুক্তি হবে।

একই রকম আরো কিছু ফুটপ্রিন্ট

সেভেনটি ওয়ান ইনটু দ্যা ফায়ার

Ariful Islam Chowdhury

Game of thrones (part 2) (আলোচনা: লর্ড ফ্রে,জফ্রি & সারসেই ল্যানিস্টার)

Mrinmoyi Jahan

ইনসেপশন বিশ্লেষণ (পর্ব ১)

Mrinmoyi Jahan

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy