Now Reading
তিন সাংবাদিককে বহিষ্কার করা হলো তুরস্ক থেকে



তিন সাংবাদিককে বহিষ্কার করা হলো তুরস্ক থেকে

জার্মানির তিন সাংবাদিককে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তুরস্ক। ওই সাংবাদিকদের প্রেস অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড নবায়ন করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে দেশটি। পাশাপাশি ১০ দিনের মধ্যে তাদেরকে দেশ ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ প্রথম তুরস্ক আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও বিদেশি সাংবাদিককে অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড দিতে অস্বীকৃতি জানালো বলে মনে করা হচ্ছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, দুই সাংবাদিক রবিবারই তুরস্ক ছেড়েছেন। আর অপরজন আগে থেকেই জার্মানিতে অবস্থান করছিলেন। এ ঘটনায় ক্ষোভ জানিয়েছে জার্মানির সরকার। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস তুরস্কের এ সিদ্ধান্তকে অগ্রহণযোগ্য বলে উল্লেখ করেছেন।

তুরস্কে ২০১৬ সালের ব্যর্থ অভ্যুত্থান প্রচেষ্টায় জড়িত থাকার অভিযোগে বেশ কিছু তুর্কি সাংবাদিক দেশটির কারাগারে রয়েছেন। বিরোধী সংবাদপত্র কামহুরিয়েতের কর্মীদেরকে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তুরস্কে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা প্রশ্নে উদ্বেগ চলার মধ্যে তিন জার্মান সাংবাদিককে অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড নবায়ন করতে অস্বীকৃতি জানানো হয়। ভুক্তভোগী সাংবাদিকদের অভিযোগ, সুনির্দিষ্ট কারণ উল্লেখ না করেই তাদেরকে অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড দিতে অস্বীকৃতি জানানো হয়েছে।

তিন জার্মান সাংবাদিক হলেন, থমাস সিবার্ট (তাগেসপিগেল), জর্গ ব্রাসে (জেডডিএফ ব্যুরো প্রধান), হালির গুলবেয়াজ (এনডিআর টিভির সাংবাদিক)।

সংবাদমাধ্যমে জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস বলেন, ‘সমালোচনামূলক সংবাদমাধ্যম ছাড়া মুক্ত গণতন্ত্র টিকে থাকতে পারে না এবং অন্য জায়গার মতো তুরস্কেও যেন সাংবাদিকরা বাধাহীনভাবে কাজ করতে পারেন তা নিশ্চিত করতে আমরা প্রচারণা চালিয়ে যাব।’

সাংবাদিক জর্গ ব্রাসে বলেন, তিনি ইরানে কাজ করতে পারলেও ন্যাটো সদস্য তুরস্কে কাজ করতে পারছেন না। তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি বিদেশি সংবাদমাধ্যমের ওপর চাপ বাড়ানোর একটি কৌশল এটি। সরকার দেশটির জাতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর কম বেশি কণ্ঠরোধ করতে সক্ষম হলেও, এখন তারা আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে।’

About The Author
salma akter
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment