Now Reading
হকাররা এদেশের নাগরিক তাদের বাদ দিয়ে দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়: হসানুল হক ইনু



হকাররা এদেশের নাগরিক তাদের বাদ দিয়ে দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়: হসানুল হক ইনু

আগে নীতিমালা করুন, হকার পুনর্বাসন করুন, পরে ফুটপাথ থেকে হকার উচ্ছেদ করতে বলেছেন সাবেক তথ্যমন্ত্রী এবং জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপি । তিনি সিটি মেয়র, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বৈঠক করে হকার ব্যবস্থাপনার সিদ্ধান্ত নিতে বলেন। প্রয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়নের অবস্থান কর্মসূচিতে স্মারকলিপি গ্রহণ করে জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপি আজ সোমবার দুপুর ১২টায় রাজধানীর জিরো পয়েন্টের সামনে একথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, হকাররা এদেশের নাগরিক। তাদের বাদ দিয়ে দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়।
হকাররা এদেশের নাগরিক তাদের বাদ দিয়ে দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেন ইনু। দেশ ধনী হচ্ছে, মধ্যম আয়ের তালিকায় গেছে। অতএব হকার ব্যবস্থাপনার ব্যবস্থাও করতে হবে।
এই সরকার যুদ্ধপরাধীদের বিচার শেষ করলেন, পদ্মা সেতুর কাজ ধরলেন, মেট্রোরেলের কাজ শুরু করলেন, আর হকারদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করতে পারবেন না এটা আমি বিশ্বাস করি না বলেও বলেন তিনি।
এদিকে পুনর্বাসন ছাড়া উচ্ছেদ বন্ধ ও অন্যায়ভাবে হকারদের গ্রেফতার-হয়রানি বন্ধ করার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করার আহ্বান জানিয়ে হাসানুল হক ইনুকে স্মারকলিপি দিয়ে লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সেকেন্দার হায়াৎ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমডিজি’র লক্ষ্য অর্জনের জন্য পৃথিবীর কাছে প্রসংশিত হয়েছেন। বর্তমানে তিনি স্থায়ীত্বশীল উন্নয়ন লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য বদ্ধপরিকর। আর স্থায়ীত্বশীল উন্নয়নের মূল লক্ষ্য হচ্ছে নো ওয়ান লেফট বিহাইন্ড। এর অর্থ হচ্ছে ‘কেউ কারো পিছনে থাকবে না’। এটি প্রধানমন্ত্রী সফল করতে চায়। তাই আমরা হকার্স ইউনিয়ন মনে করি হকার উচ্ছেদ প্রধানমন্ত্রীর স্থায়ীত্বশীল উন্নয়ন লক্ষ যাতে বাস্তবায়ন না হয় তার জন্য একটি বিশেষ মহল ষড়যন্ত্র করছে।
লিখিত বক্তব্য সেকেন্দার হায়াৎ আরো বলেন, ঢাকা সিটির মেয়রগণ হকারদের বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষণা করেছেন। উনারা দীর্ঘদিন ধরে বলে যাচ্ছেন, জনগণের ফুটপাত জনগণকে ফিরিয়ে দিবেন। কথাটা শুনতে বেশ চটকদারী। কিন্তু এই নগরীর লাখ লাখ হকার এবং তাদের ষাট থেকে সত্তর লাখ ক্রেতা, তারা কি জনগণের হিসাবের মধ্যে পড়ে না? এই প্রশ্নের উত্তর মেয়র সাহেবরা এড়িয়ে যাচ্ছেন। নগরীর পঁচানব্বই ভাগ মানুষ কেনা-কাটার জন্য কম বেশি ফুটপাতের উপার নির্ভরশীল। তাদের অধিকাংশই বিত্তহীন শ্রমজীবী বা কম বিত্তের মানুষ। যাদের ফুটপাত ভিন্ন অন্য কোথাও কেনাকাটা করতে যাওয়ার উপায় নেই। মেয়রসহ অন্যান্য যারা হকার প্রশ্নকে পাশ কাটিয়ে ফুটপাত একেবারে ফাঁকা করতে চাচ্ছেন, তারা জনগণ বলতে সম্ভবত শুধুমাত্র বিত্তবান নগরবাসীকেই বোঝাচ্ছেন।
সংগঠনের সভাপতি আব্দুল হাশেম কবীর অবস্থান কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন এবং উক্ত কর্মসূচিতে আরো বক্তব্য রাখেন, জাসদ সাধারণ সম্পাদক শিরীন আক্তার এমপি, শ্রমিক জোটের সভাপতি সাইফুজ্জামান বাদশা, হকার্স ইউনিয়নের সহ-সভাপতি মঞ্জুর মঈন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হযরত আলী, শফিকুর রহমান বাবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ জসিমউদ্দিন, কেন্দ্রীয় নেতা মো: শহীদসহ অনেকে।

About The Author
Md Meheraj
Md Meheraj
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment