Now Reading
রোহিঙ্গাবিরোধী নেতার ২০ বছর জেল দিল মিয়ানমার আদালত



রোহিঙ্গাবিরোধী নেতার ২০ বছর জেল দিল মিয়ানমার আদালত

মিয়ানমারে রোহিঙ্গাবিরোধীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় এক রাখাইন নেতাকে ২০ বছর কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। রোহিঙ্গা মুসলিমবিরোধী কট্টরপন্থা অবলম্বনকারী জাতিগত রাখাইন বৌদ্ধ নেতা আয়ি মাউংকে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে ২০ বছরের জেল দিয়েছে আদালত।
তিনি আরাকান ন্যাশনাল পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান। গতকাল মঙ্গলবার তার বিরুদ্ধে এই রায় দেয়া হয়। রায়ের পর যখন পুলিশ বেষ্টিত একটি ভ্যানে তোলা হচ্ছিল তখন আদালত প্রাঙ্গণে ঠাসা ছিল তার শত শত সমর্থকে। তাদের শান্ত রাখতে পুলিশকে গলদঘর্ম হতে হয়। তবে আয়ি মাউংয়ের বিরুদ্ধে দেয়া এই রায়ে জাতিগত রাখাইন ও সেনাবাহিনীর মধ্যে চলমান উত্তেজনাকর লড়াই আরো তীব্র হতে পারে। এদিন আরো একজন রাখাইন বৌদ্ধকে একই শাস্তি দেয়া হয়। তিনি একজন লেখক। দুইজনের বিরুদ্ধেই একই অভিযোগ।

বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়েছে, ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট আরসার নেতৃত্বে ছয় হাজার ২০০ থেকে ১০ হাজার ‘বাঙ্গালি’ উগ্রবাদী সন্ত্রাসী রাখাইনের ৩০টি পুলিশ চৌকিতে হামলা চালায়। ওইদিন ৩৮টি সংঘর্ষ হয়।
বিজ্ঞপ্তিতে আরও দাবি করা হয়েছে, ওইদিন ১২ জন পুলিশ এবং ১৩০ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়। ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে লেফটেন্যান্ট জেনারেল আয়ে উইনের নেতৃত্বে এর আগে গঠিত তদন্ত কমিটি ওই হামলা ঠেকাতে নিরাপত্তা বাহিনীর দুর্বলতার তথ্য পেয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ রয়েছে।
এদিকে থাইল্যান্ডভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন ফোরটিফাই রাইটস রোহিঙ্গা গণহত্যা অভিযোগ তদন্তে আন্তর্জাতিক ফৌজদারি আদালত (আইসিসি) ও জাতিসংঘের কাঠামোকে সহযোগিতা করতে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।
ফোরটিফাই রাইটসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ম্যাথু স্মিথ মিয়ানমারের নতুন তদন্ত কমিটিকে আন্তর্জাতিক বিচারের উদ্যোগ ঠেকাতে এবং আইনি শাসন নিয়ে বৈশ্বিক উদ্বেগ প্রশমনে আরেকটি দুর্বল চেষ্টা হিসেবে অভিহিত করেছে।
এএফপি জানিয়েছে, আই মোং নামে ওই নৃতাত্ত্বিক নেতা মিয়ানমারে খুবই সুপরিচিত। রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিত্তে শহরে মঙ্গলবার তার রায় ঘোষণা করা হয়। এ সময় তার শত শত সমর্থককে আদালতের বাইরে বিক্ষোভ করতে দেখা গেছে।
২০১৮ সালের জানুয়ারিতে উসকানিমূলক বক্তব্য ও রাষ্ট্রদ্রোহী মামলায় তাকে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। ওই বক্তব্য দেয়ার একদিন পরই সেখানে প্রাণঘাতী দাঙ্গা হয়েছিল।

About The Author
MD BILLAL HOSSAIN
MD BILLAL HOSSAIN
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment