Now Reading
পাকিস্তানের অনুষ্ঠান বর্জন করল ভারত



পাকিস্তানের অনুষ্ঠান বর্জন করল ভারত

পাকিস্তান জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানে ভারত তাদের কোন প্রতিনিধি পাঠাবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, জম্মু ও কাশ্মিরের বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাদের আমন্ত্রণ করায়। দেশটির সরকারের সূত্র স্থানীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভিকে জানিয়েছে, অনুষ্ঠানটিতে হুরিয়াতের নেতাদের আমন্ত্রণ করেছে পাকিস্তান। পাকিস্তানের এ কাজের মাধ্যমেই বোঝা যায় তারা ফের ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করছে। এ কারণেই সরকারের পক্ষে কোনো প্রতিনিধি এ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন না।

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের পুলওয়ামায় পাকিস্তানি জঙ্গিগোষ্ঠী জইশ-ই-মুহম্মদের হামলার জের এখনো কাটেনি। এরই মধ্যে পাকিস্তানের আয়োজিত অনুষ্ঠান বর্জন করল ভারত। দুদেশের মধ্যে চলমান এ উত্তেজনার জেরে তাদের মধ্যকার ক‚টনীতিক সম্পর্কও দুর্বল হয়ে গেছে। তবে এ বছরের অনুষ্ঠানটিতে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের কেউই অংশগ্রহণ করতে পারবে না বলে নিশ্চিত করেছেন তাদেরই শীর্ষস্থানীয় এক নেতা। তিনি বলেন, বর্তমানে যে পরিবেশ আছে, এতে অনুষ্ঠানটিতে আমাদের কেউই যেতে পারবে না। গত মাসে সরকারের নেয়া কঠোর নীতিমালা এবং অভিযানের পর থেকেই জেলে রয়েছে কিংবা বাড়িতে আটকে আছে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। যাদের আটক করা হয়নি তারাও যে কোনো মুহূর্তে আটক হতে পারে এমন ভয়ে আছে। অতীতেও কাশ্মিরসহ বিভিন্ন ইস্যুতে পাকিস্তানকে সরাসরি আলোচনায় উদ্বুদ্ধ করে এসেছে ভারত। সে সঙ্গে হুরিয়াত নেতাদের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগে তাদের নিরুৎসাহিত করেছে ভারত।

সরকারের সাবেক সিনিয়র এক কর্মকর্তা বলেন, কিছু নির্দিষ্ট রীতিনীতি রয়েছে, যেগুলো প্রতিটি জাতিই অনুসরণ করে থাকে।

তিনি বলেন, একটি দেশের জাতীয় দিবসে অংশগ্রহণ করা মানে হচ্ছে, সে জাতির প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা। সেখানে অংশগ্রহণ না করে তাদের বোঝানো হবে যে, আমরা তাদের সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দিচ্ছি। তবে সরকারের এমন সিদ্ধান্তকে আগামী মাসের জাতীয় নির্বাচনের কৌশল হিসেবেই দেখছে সমালোচকরা।

লাহোর রেজুলেশনের স্মরণে প্রতিবছরের ২৩ মার্চ এ দিবসটি পালন করে থাকে পাকিস্তান। অতীতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভিকে সিং ও গাজেন্দ্র সিং এবং সাবেক মন্ত্রী এম জে আকবরসহ আরো বহু রাজনীতিবিদ পাকিস্তানের জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

About The Author
MD BILLAL HOSSAIN
MD BILLAL HOSSAIN
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment