Now Reading
মিঃ ক্যাপ্টেন The Emotion



মিঃ ক্যাপ্টেন The Emotion

মাশরাফী বিন মোর্তাজা জণ্ম ৫ অক্টোবর ১৯৮৩ একজন বাংলাদেশি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার এবং রাজনিতিবীদ। যিনি বাংলাদেশ জাতীয় ক্রীকেটের অধিনায়ক হয়ে আছেন almost a decade . ২০১৯ সালে তিনি ইএসপিএন ওয়ার্ল্ড ফেম ১০০ এর মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে বিখ্যাত ক্রীড়াবিদ হিসাবে স্থান পেয়েছেন , ২০০১ সালে জীম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিনি জাতীয় দলে ক্যারিয়ার শুরু করেন । দীর্ঘ উনিশ বছরে তার ক্যারিয়ারের নানান উত্থান পতন এর গল্প আমরা সবাই কম বেশি জানি । তার ইঞ্জুরির ব্যথা টা যেনো আমরাও পাই তেমনটাই বোধ হয় । ২০০৯থেকে ২০১০ সালের মধ্যে এক টেস্ট ও সাত ওয়ানডেতে একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে মুর্তজা অধিনায়কত্ব করেছিলেন। তবে Injury এর ফলে তিনি পারফরম্যান্সের বাইরে ছিলেন এবং সাকিব আল হাসানকে মাশরাফীর অনুপস্থিতিতে অধিনায়ক নিযুক্ত করা হয়েছিল। মুর্তজা বাংলাদেশের প্রথম দ্রুততম বোলার হিসেবে বিবেচিত হয়েছিলেন, মাশরাফীর ক্যারিয়ারে আঘাতের কারণে ব্যাঘাত ঘটেছে এবং তিনি হাঁটু ও গোড়ালিতে মোট দশটি অপারেশন করিয়েছেন ।
২০০৯ সালে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য ধারাবাহিক ব্যাক ইনজুরির কারণে তিনি টেস্ট ক্রিকেট থেকে অস্থায়ী ছাড় পান এবং যেহেতু তিনি কোনো টেস্ট ম্যাচ খেলেনি তবে সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটে খেলতে থাকেন। ২০১৪ সালের ৪এপ্রিল, তিনি টি ২0 আই থেকে অবসর গ্রহণের তার ইচ্ছা ঘোষণা করেন।
৬ এপ্রিল ২০১৭ এ তিনি টি ২0 বিশ্বকাপ থেকে অবসর নেন। ২018 সালের ডিসেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশ সিরিজের সময় মাশরাফী তার ২০০ তম ওডিআই ম্যাচে খেলেছিলেন। একই সিরিজে, তিনি বাংলাদেশের হয়ে 200 টি ওডিআই খেলতে প্রথম ক্রিকেটার হয়েছিলেন এবং হবিবুল বাশারকে ছাড়িয়ে সত্তর টি ম্যাচসহ বেশিরভাগ ওয়ানডেতে বাংলাদেশ অধিনায়কত্বের রেকর্ড স্থাপন করেছিলেন।
যদিও তিনি ক্রিকেট ক্যারিয়ারের সময় কখনো রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন না, তবুও ২0১৮ সালের 11 নভেম্বর আওয়ামী লীগ ব্যানারে বাংলাদেশের সাধারণ নির্বাচনের জন্য মাশরাফী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। ডিসেম্বরে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে তিনি তার নড়াইল – ২ আসনে 96% ভোট পেয়ে সংসদে আসন বিজয়ী হোন ।
উত্থান
বাংলাদেশ থেকে আবির্ভূত হওয়া সবচেয়ে সফল গতির বোলার মোর্তাজা । গতি এবং আগ্রাসন UNDER19 এর ম্যাচে দেখিয়েছিলেন , তখন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ফাস্ট বোলার অ্যান্ডি রবার্টস, যিনি বাংলাদেশের জন্য অস্থায়ী বোলিং কোচ হিসেবে কাজ করছেন। রবার্টসের সুপারিশ অনুযায়ী, মুর্তজাকে বাংলাদেশ এ দলের মধ্যে ডাকা হয়েছিল ।
বাংলাদেশ A এর জন্য এক ম্যাচ পরে (তার একমাত্র বাংলাদেশ এ ম্যাচ খেলার জন্য), ৪ নভেম্বর ২০০১ ঢাকায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক করেন।
আঘাতের সঙ্গে সংগ্রাম
একবার হাঁটু গেঁথে গেলে,২০১০ সালের ফেব্রুয়ারিতে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলতে না পেলে মুর্তজা আরেকটি বিপদে পড়ে। বাংলাদেশের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের একদিনের ম্যাচে মুর্তজা ইনিংসে আঘাত পেয়েছিলেন। ম্যাচ শেষে, তিনি মন্তব্য করেছিলেন যে অধিনায়কত্ব ফিরে পাওয়ার ক্ষেত্রে তার কোন আগ্রহ ছিল না, কারণ তার মতে সাকিব আল হাসান ভাল কাজ করেছেন। তিনি আরও বলেন, তার আঘাত সমস্যাগুলি যদি স্থির থাকে তবে তিনি ওয়ানডে ও টি ২0 তে ফোকাস করার জন্য টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসরের বিষয়ে চিন্তা করবেন ।
২০১০ সালের এশিয়া কাপে ২01২ সালের এশিয়া কাপে Mash লড়াই চালিয়ে যাওয়ায় তিন ম্যাচে ৭৭.০০ গড়ে গড়ে মাত্র দুটি উইকেট নিয়েছিলেন। ২০১১ সালের জুলাইয়ে ইংল্যান্ডের রিটার্ন সফরে একদিনের ম্যাচে তিনি ওডিআই দলের অধিনায়কত্ব ফিরে পান। মাশরাফি যে কোনও প্রকারে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তাদের প্রথম জয় লাভ করেছিলেন।
আজো অব্দি অধিনায়কত্ব করেই চলছেন যুদ্ধ থামায়নি ।
সবশেষ কথা মাশরাফী একজনিই মাশরাফীরা একবারি জন্মায় । মাশরাফীর গল্প লিখতে লিখতে হাপিয়ে যাবো তবুও মাশরাফি হারবেনা ।
মাশরাফী একটা আবেগের নাম যার কোণো বীকল্প নেই ।
আমাদের প্রানের মাশরাফি তার ক্যারিয়ার এর শেষ স্টেশনে দারিয়ে বিশ্ব কাপিয়ে নেত্রিত্ত্ব দিয়ে যাচ্ছে আজো ২০১৯ বিশ্বকাপ ।
একটাই কথা বলতে চাই আমাদের খেলাড় মাঠের মাশরাফি কে রাজনীতির মাঠের মাশরাফির সাথে তুলনা না করাটাই আমাদের গুরুদায়ীত্ব হঊয়া উচিত । মাশরাফি আমাদের কাছে কিছু চায়না , সে যতটুকু দিয়েছে আমাদের সেই হ্রিন শোধ করার ক্ষমতা নেই । মনে প্রানে আল্লাহর কাছে একটাই প্রার্থনা ২০১৯ বিশ্বকাপ টা যেনো আমাদের মাশরাফি জিতে cause I believe he absolutely deserve it .. আমাদের ভাইয়ের ক্যারিয়ার এর শেষটা যদি এমন তাহলে মন্দ কি ! আমাদের স্বপ্নের দল টা মাশরাফী কে নিয়েই আমাদের স্বপ্ন পুরন করুক এতটুকু। আরেকটা কথা মাশরাফী কে ণীয়ে কটুক্তি করার আগে নিজেকে প্রশ্ন করুন আপনি আমি কি দিয়েছি এবং দিচ্ছি দেশ কে ?

মাশরাফীরা একবারই জন্মায় ।

About The Author
Raihan Yasir
Raihan Yasir
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment