Now Reading
বিশ্বের অদ্ভুত কিছু হোটেল, যা অবাক করবে আপনাকেও



বিশ্বের অদ্ভুত কিছু হোটেল, যা অবাক করবে আপনাকেও

পৃথিবীতে রোমান্সকর, বিস্মিত কত কিছুই না আছে। পুরা বিশ্বে এমন কয়েকটি হোটেল আছে যেখানে কাটানো একটি রাত হতে পারে মধুমাখা স্মৃতিময়, যা স্মৃতির পাতায় সবসময়ের জন্য স্বরণীয় হয়ে থাকতে পারে। এসব হোটেল গুলো কোনটা গাছের ডালে ঝুলছে, কোনটা সমুদ্রের গভীরে, কোনটা রয়েছে আবার মাটি নিচে অবস্থিত। এ ধরনের অবিশ্বাস্য এবং অদ্ভুত কিছু হোটেল নিয়ে জানবো আজকে আমরা।

 

ফ্রি স্পিরিট স্ফিয়ারস: মাটি থেকে অনেকটা উঁচুতে বড় বড় গাছের ডাল পালার মাঝখানে ঝুলন্ত এই হোটেল। এই হোটেলটি যেকোন মানুষকে অন্যরকম তৃপ্তি দিবে, দেবে ভিন্ন অভিজ্ঞতাও। হোটেল রুমটা যখন নির্জন কোন জঙ্গলে, তাও আবার গাছের ডালে, মাটি থেকেও অনেকটা উঁচুতে অবস্থিত তখন এই হোটেল থেকে ভিন্ন রকম অভিজ্ঞতা অর্জন করা যাবে। এখানে গোলক আকৃতির ৩টা রুম আছে। ৩টা রুমের মধ্যে আলাদা আলাদা বিশেষত্ব রয়েছে। আপনাকে কাঠের সিঁড়ি ব্যবহার করতে হবে খানিকটা জটিল প্রক্রিয়ায় ঝুলিয়ে রাখা এই রুম গুলোতে পৌঁছাতে। এই হোটেলের সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক হোটেল হিসেবে বিশ্বব্যাপী সুনাম রয়েছে। সমুদ্র থেকে আসা মৃদু বাতাসে মনে দোলা উঠবে। অনেকটাই উঁচুতে এবং গাছ গাছালির ভেতর থাকা অবস্থায় এই দ্বীপ জঙ্গলটির ভেতরের সৌন্দর্য খুব ভালো ভাবেই উপভোগ করা যাবে। অনন্য এই ফ্রি স্পিরিট স্ফিয়ারস হোটেলের আইডিয়া অনেক মানুষকেই আকৃষ্ট করেছে। আর তাই তো কমপক্ষে ৩ মাস আগে আপনাকে অগ্রিম বায়না করতে হবে হোটেলটিতে এক বার ঘুরে আসার জন্য, সেইটা বছরের যে কোন সময়েই হোক।

মন্টানা রিসোর্ট: এই রিসোর্টটি খুবই জনপ্রিয় একটি হোটেল। তানজানিয়ার পেম্বা দ্বীপে অবস্থিত একটি হোটেল, যা আপনার কাছে সত্যিকার অর্থে অন্য এক জগৎ মনে হতে পারে। এই হোটেল রুমটি পানির ১৩ ফুট নিচে তীর থেকে অনেকটাই সমুদ্রের ভিতরে অবস্থিত। যেখান থেকে আপনি সমুদ্র গভীরের সৌন্দর্য খুব কাছে থেকেই উপভোগ করতে পারবেন। এর থেকে ভালো আর কোন উপায় হতে পারে না সমুদ্রের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করার। এতটা নির্জন এবং প্রশান্তি পৃথিবীর আর কোন হোটেলেই পাওয়া যাবে না। হোটেলের একটি মাত্র রুম, আর এর চার পাশে রয়েছে জানালা। যা থেকে চমৎকার ভাবে সমুদ্রের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করা যায়। রাতের ব্যাপারটা আরও বেশি মজার। রুমের বাইরে করা লাইটিং আলোয় কাছে আসা সকল জলজ প্রানীকে দেখতে পাওয়া যায়। এটা তখন অনেকটাই নৈসর্গিক হয় উঠতে পারে আপনার কছে।

 

হেন্না হোটেল: এটি বিশ্বের এক মাত্র হোটেল, যেটি কিনা রোবট দ্বারা পরিচালিত হয়। এই হোটেলটি ২০১৫ সালের মাঝামাঝি চালু হয়। এখানে প্রায় ১৪৪ টি রুম রয়েছে। সবগুলো রুমে কাজ করার জন্য মোট ১৮৬ টি রোবট রাখা হয়েছে। কখনও একটি মহিলা রোবট আবার কখনও একটি ডায়নোসর রোবট আপনাকে অভ্যর্থনা জানাতে পারে এবং এরাই আপনাকে খুঁজে দিবে পছন্দের সেরা রুমটি। এ হোটেলে ব্যবহার করা হচ্ছে প্রেস ডিটেক্টর সিস্টেমে। আর তাই এই হোটেলে থাকাকালে আপনাকে কোন রুমের চাবি দেওয়া হবে না। যদি কখনও কোন কিছুর প্রয়োজন হয় তাহলে রুমে থাকা কম্পিউটারে রিকুয়েস্ট করতে হবে। তখন সাথেসাথে কোন একটি রোবট আসবে আপনার সমস্যা সমাধানের করার জন্য। আপনার বেডের পাশে একটি রোবট থাকবে। হোটেল সম্পর্কে কিছু জানার থাকলে বেডের পাশে থাকা রোবটটি আপনাকে জানায় দিবে যেকোন তথ্য। এখানকার বোবটগুলো খাবার পরিবেশন থেকে শুরু করে পরিচ্ছন্নের কাজ সব কিছুই করে দিবে। কিন্তু ৮-১০ জন মানুষ প্রতিদিন আসে এখানে। যারা এই হোটেলের সবকিছু ঠিক মতো হচ্ছে কিনা সেইটার দেখাশুনা করা দায়ীত্বে থাকে। রোবট মানুষের জীবনকে কতটা সহজ করে দিতে পারে তার একটি দৃষ্টান্ত প্রমাণ রয়েছে এই হোটেলে। কারণ এই হেন্না হোটেলের সবকিছু রোবট দ্বারা পরিচালিত হয়ে থাকে।
রোবট মানুষের জীবন অনেক সহজ করে দিতে পারে, যার ছোট একটি উদাহরণ হতে পারে হেন্না হোটেল।

About The Author
Md Meheraj
Md Meheraj
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment