Now Reading
মানুষের তৈরি অবাক করা কিছু স্থাপনা



মানুষের তৈরি অবাক করা কিছু স্থাপনা

প্রকৃতি আমাদের পৃথিবীতে এমন এমন জিনিস বানিয়েছে যা দেখে আমাদের আশ্চর্য হয়ে যেতে হয়। অসম্ভব সুন্দর পাহাড়, নদী, ঝর্ণা, গুহা এছাড়া নানা জানা অজানা অনেক কিছু। কিন্তু আজকে যা নিয়ে আলোচনা করব, তা প্রকৃতি না, আমাদের মানুষের তৈরি করা কিছু স্থাপনা, যা দেখে যে কেউ চমকে যেতে বাধ্য। আমাদের টেকনোলোজি আজ এত দ্রুত অগ্রসর হচ্ছে যে, এমন এমন কিছু জিনিস তৈরি করা হচ্ছে যা আমরা কখনো চিন্তাও করতে পারি না। চলুন জেনে নিই সেসব স্থাপনা সম্পর্কেঃ

পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে উঁচু এবং লম্বা কাঁচের ব্রীজ চীনে তৈরি করা হয়েছে। চীন তাদের এসব কাজের কারণে সবসময় আলোচনায় থাকে। গ্লাসের তৈরি এই ব্রীজ দুইটি পাহাড়ের সাথে বাসানো হয়েছে। ব্রীজটি খুবই উন্নত মানের গ্লাস দিয়ে তৈরি হওয়ার কারণে এখানে ঝুঁকি সংক্রান্ত কোন কারণ নেই। এখানে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পর্যটকরা দেখতে আসে। আর যাদের হার্ট একটু দূর্বল তারা এই ব্রীজে চড়তে একটু সমস্যা হওয়াটায় স্বাভাবিক। কারণ ব্রীজটি একেবারে স্বচ্ছ কাঁচের তৈরি। কাঁচের পরীক্ষা করার জন্য এই ব্রীজের উপর দিয়ে ২ টন ওজনের ট্রাক চালিয়েও দেখা হয়েছে। এই ব্রীজটি মাটি থেকে ৩০০ ফিট উপরে অবস্থিত। ব্রীজের প্রতিটি গ্লাস ৩মিটার লম্বা এবং ৪.৫ মিটার চওড়া।

 

কাঁচের তৈরি হোটেলঃ পেরুতে অবস্থিত পাহাড়ের গায়ে ঝুলানো স্বচ্ছ কাঁচের তৈরি হোটেল। হোটেলগুলো স্বচ্ছ কাঁচের তৈরি হওয়ায় এটিতে চড়ার সাহস সবার থাকে না। মজবুত এলুমিনিয়াম আর পলিকার্বনেটেড দ্বারা তৈরি এর ২৫ ফিট লম্বা ক্যাপসুল তৈরি করা হয়েছে। ক্যাপসুলের ভিতরে আলাদা আলাদা রুম রয়েছে। যার মধ্যে বাথরুমের সুবিধাও রয়েছে। যারা এডভেঞ্চার পছন্দ করেন, তারা এই হোটেলে গিয়ে ভ্রমন করে আসতে পারেন। যারা যেতে চান, তাদের উদ্যেশ্যে বলছি, এখানে যাওয়াটাও কিন্তু খুব একটা সহজ হবে না। কারণ এখানে যেতে হলে আপনাকে প্রায় ৪০০ফিট লম্বা খাড়া পাহাড়ে চড়তে হবে। আর এখানে এক রাত কাটানোর জন্য আপনাকে প্রায় ২৪,০০০ টাকা খরচ করতে হবে। আর এসবের কারণে এই হোটেল সারা বিশ্বে ভ্রমন পিপাশুদের কাছে বিখ্যাত।

কাঁচের তৈরি প্ল্যাটফর্মঃ চীনে অবস্থিত পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচু কাঁচের তৈরি প্ল্যাটফর্ম। আগেই বলেছি নির্মাণ কাজের জন্য চীনের সাথে কারো তুলানা করা চলে না। তার আরো একটি উদাহরণ হল ভেংজিং এ এক পাহাড়ের উপর অবস্থিত এক বিশাল কাঁচের প্ল্যাটফর্ম। এই প্ল্যাটফর্মকে এ কারণে বানানো হয়েছে যেন এখান থেকে জিংডং জঙ্গলের সোন্দর্য আরো ভালভাবে উপভোগ করা যায়। এ প্ল্যাটফর্মটি মাটি থেকে ১৩০০ফিট উপরে অবস্থিত। এটাই পৃথিবীর সবথেকে লম্বা কাঁচের তৈরি প্ল্যাটফর্ম। যা পাহাড়ের কিনার থেকে ১৬০ ফুট পর্যন্ত বাহিরে অবস্থিত এবং এটি শুণ্যে ঝুলে আছে।

 

ভাসমান সেতুঃ বাংলাদেশের যশোরের মনিরামপুরে অবস্থিত দেশের দীর্ঘতম ভাসমান সেতু্। সেতুটি চার ফুট চওড়া আর প্রায় ১০০০ ফিট দীর্ঘ। সেতুটিতে ব্যবহার করা হয়েছে, ১৮ টন লোহার এ্যাংগেল আর ১৫ টন স্টীলের পাত এবং ৩৩৯ টি বড় প্লাস্টিকের ড্রাম দিয়ে। এটি বাংলাদেশের তৈরি প্রথম ভাসমান সেতু।
শুণ্যে ঝুলানো সুইমিং পুলঃ দুবাই ফেস্টিবল সিটি হোটেলের ৩৬ তলায় অবস্থিত এই সুইমিং পুল। যা দেয়ালের বাহিরে শুণ্যে ঝুলানো অবস্থায় আছে। পুলের দেয়াল এবং ফ্লোর খুবই মজবুত এবং স্বচ্ছ কাঁচের দ্বারা তৈরি। এর বিতর থেকে দুবাই শহরের সুন্দর্য খুব ভাল ভাবে উপভোগ করা যায়। এই পুল থেকে দুবাইয়ের উঁচু উঁচু বিল্ডিং এর ভাল কিছু সিন পাওয়া যায়। যার মদ্যে বুর্জ খলিফা অন্যতম।

 

 

ক্যাপিলারি ব্রীজঃ কানাডায় অবস্থিত ক্যাপিলারি ব্রীজ। এটি পৃথিবীর মধ্যে অন্যতম একটি এক্সট্রেম আর এট্রাক্টিব এক স্থাপনা। ব্রীজটি একটি নদীর উপর থেকে এভার গ্রীন ফরেস্টের মধ্য দিয়ে চলে গেছে। ব্রীজটি ৪৬০ ফিট লম্বা, যা খুবই ঝুঁকিমুক্ত। ব্রীজটি একসাথে ৯৬টি হাতির ওজন বহন করতে সক্ষম। প্রতি বছর ব্রীজটি দেখতে প্রায় ৯ লক্ষ টূরিস্ট আসে। আর ব্রীজটি সেখানকার আনুষ্ঠানিকদিন গুলোতে বিশেষ করে সাজানো হয়। তবে ব্রীজটির উপর থেকে যাওয়ার সময় আপনার সাহসের পরীক্ষাটাও হয়ে যাবে।

About The Author
Md Meheraj
Md Meheraj
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment