Now Reading
সম্মান আর সময় দুটোই কমিয়ে দিতে পারে ফেসবুক !



সম্মান আর সময় দুটোই কমিয়ে দিতে পারে ফেসবুক !

হ্যাঁ, শুনে অবাক হতে পারেন ঠিকও কিন্তু এটি সত্যি যে, ফেসবুক আমাদের সম্মান এবং সময় দুটোও কমিয়ে দিতে পারে ! কীভাবে ফেসবুক আমাদের সম্মান ও সময় কমিয়ে দিতে পারে তা যদি একটু শান্ত মাথায় চিন্তা করেন তাহলেই বুঝতে পারবেন । আমরা প্রতিনিয়ত আমাদের ব্রেন ওপর এতটাই প্রভাব ফেলছি যে, সাধারন বিষয়গুলো বুজতে পারিনা আবার সমাধানও করতে পারিনা । তাই আমার একটা উপদেশ ধ্যান বা অন্য যেকোনো কিছু একটা করেন যাতে আপনার ব্রেন একটু রিলাক্স হতে পারে । এখন আপনাদের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে, যে আমরা দৈনিক ৭-৮ ঘণ্টা করে ঘুমায় আর ঘুমালে তো আমদের পুরো দেহের কোষগুলো পুনরায়  এনার্জি পেয়ে যায় যাতে আমরা পুনরায় কাজ করতে পারি ।

আবার ঘুম থেকে উঠেই ব্রেনের ওপর প্রভাব ফেলা শুরু করেন নানা বিষয় নিয়ে যেমন ঃ ঘুম থেকে দেরি করে উঠে দেখছেন যে, ক্লাস এর মাত্র ১৫ মিনিট সময় আছে ! আর আপনার ক্লাসে যেতেই ১৫ মিনিটের বেশি সময় লেগে যাবে তখন আপনার টেনশন শুরু হয়ে যাবে যে,স্যার এর অপমান খেতে হবে বলে ! আপনি যে, ৭-৮ ঘুমালেন এবং আপনার পুনরায় এনারজিক্রিত কোষগুলোকে শক খাইয়ে মাথা গুরুয়ে দিলেন এর ফলে আপনার ব্রেন সহজ সমস্যার সমাধান করতে পারেনা । আপনি ঘুমানো বাদেও জাগ্রত অবস্থাই ৫-১০ মিনিট নিজের ব্রেনকে রিলাক্স করান ।

আমার এই কথাটি বলার উদ্দেশ্য হল আপনারা যদি শান্ত মাথায় ভাবেন যে, ফেসবুক কীভাবে আমাদের সম্মান আর সময় কমিয়ে দিতে পারে ? তাহলে আমি গ্যারান্টি দিচ্ছি আপনি উত্তর এর অনেক কাছে যেতে পারবেন । এখন আমি আপনাদেরকে আমার ধারণা থেকে বলব ফেসবুক কীভাবে আমাদের সম্মান ও সময় কমিয়ে দেই ?

এটি আসলে আমদেরই দোষ ! আমরা যখন একবার ফেসবুকে লগ ইন করি আমাদের বের হওয়ার কোন খবরই থাকেনা ! যার ফলে আমাদের সময় নষ্ট হচ্ছে ।

এই বিষয়টি ভালভাবে বোজানোর জন্য একটা গল্প বলি । গল্পটি আমাদের অনেকেরও জানা তো গল্পটি হল, একটি পিঁপড়ার খুবই পিপাসা পেয়েছিল । তো সে অনেক খোঁজার পর কোথাও পানি পেল না । কিন্তু সে একটি যাইগায় মধু পেয়েছিলো ! তো সে মধুই পান করল তারপর সে চলে যেতে লাগছিল কিন্তু পিঁপড়াটি ভাবল এরকম সুস্বাদু জিনিস তো কোনদিন নাও পেতে পারি তাই আরেকটু খেয়েনি । এভাবে পিঁপড়াটি একটু একটু করে অনেক মধু খেয়ে ফেলেছিল যার ফলে সে আর সামনে যেতে পারছিলনা ! পিঁপড়াটি এত মধু খেয়েছিল যে, সে মরেই গেল !

তো ফেসবুক কিছুটা এরকম ফেসবুকের মধু খেতে খেতে আমরাও যেন পিঁপড়ার মত না হয় । আমরা মরবনা কিন্তু আমাদের ভবিষ্যৎ অন্ধকার হয়ে যাবে । ফেসবুক ব্যবহার করেন কিন্তু পর্যাপ্ত পরিমাণে করেন তাহলে আর পিঁপড়ার মত হতে হবেনা । সময় বাঁচান এবং সময়কে কাজে লাগান যেমন ঃ বাংলাদেশিজম এত সুন্দর একটি সাইট করেছেন । যেখানে আমারা আমাদের লেখার মাধ্যমে মানুষদেরকে পরামর্শ দিচ্ছি, খবর দিচ্ছি ইত্যাদি । তো আপনি ফেসবুক বাদেও লেখালেখি করতে পারেন, ফটোগ্রাফি শিখতে পারেন আবার ফটোশপ শিখতে পারেন কত কি করার আছে । শেখার কোন শেষ নেই তাই শিখুন । ফেসবুকে বেশি সময় এটি আসলেই সময়ের ব্যাবহার না । সময় কে মূল্য দিন আপনি অবশ্যই এর প্রতিদান পাবেন তাই সময় কে মূল্যহীন করেননা ।

আরেকটি বিষয় সম্মান, সম্মান কখন কমে যাবে , ধরুন আপনার কিছু আত্মীয় আপনার ফেসবুক বন্ধু । তো তারা যখন পোস্ট দেই তখন আপনি তাদের পোস্টগুলোতে লাইক দেন কিন্ত আপনি যখন পোস্ট দেন তখন তারা যদি লাইক না দেয় তাহলে আপনি সঙ্গেসঙ্গেই তাকে মেসেজ পাঠাবেন, কেন আমার পোস্টে লাইক দিলানা এই প্রশ্নটি অবশ্যই তার দিকে ছুরে দিবেন কিন্তু একবারও ভাবেননা যে, আপনার সম্মান  এর ফলে  কমে যাবে । সম্মান অর্জন করে সেই সম্মান যদি ডুবে যাই তাহলে কি হবে ? এগুলো ভেবে চিন্তে দেখবেন । আমার আত্মীয়-স্বজনের মধ্যে অনেক জন আছে যারা আমাকে লাইক দিতে বলে আবার ফেসবুকে মেসেজও পায় লাইক দিলে লাইক পাবেন । সম্মানের কথা ভেবে এই কাজগুলো থেকে বিরত থাকার চেষ্টা করুন ।

আপনাদের প্রশ্ন থাকতে পারে যে, ফেসবুকে শিক্ষণীয় অনেক কিছু আছে তাহলে এর জন্য কি আমরা ফেসবুকে লগ ইন করবোনা ?

অবশ্যই করবেন একটা কথা বলি, আপনারা সবকিছুতে শিক্ষার জন্য পা বাড়ান । এই উদ্দেশ্য নিয়েই সামনে পা বাড়ান । সামনে ভাল কিছু অপেক্ষা করবে ।

 

About The Author
Saif Mahmud
Saif Mahmud
লেখা-লেখির ইচ্ছা অনেক আগে থেকেই ছিল । নিজের লেখা প্রকাশ করার জন্য এরকম একটা সাইট খুঁজছিলাম অবশেষে পেয়ে গেছি ! ধন্যবাদ বাংলাদেশিজমকে ।
Comments
Leave a response

You must log in to post a comment