Now Reading
বাংলাদেশের ময়না তদন্ত !!!!



বাংলাদেশের ময়না তদন্ত !!!!

শুরুটা যেমন হবার কথা ছিল ঠিক তেমনি হয়েছে ।

দারুন শুরু ছিল ওপেনাদের । তামিম ও সৌম্য সরকার যেভাবে শুরু করেছে তা দেখে মনে হচ্ছিল বাংলাদেশ অন্তত ২৮০ এর কাছে গিয়ে বিশাল বড় টার্গেট দিবে নিউজিল্যান্ড কে । কিন্তু মিডেল অর্ডারদের খামখেয়ালির জন্য বাংলাদেশ বড় পুজি পায়নি । বিশেষ করে সাকিব আল হাসান থেকে এই ম্যাচ বড় একটি ইনিসং দেখতে চেয়েছিল র্দশকরা । কিন্তু তিনি ব্যর্থ হয়েছেন তার স্বভাব মত খেলা খেলতে । বাংলাদেশের হার এর পিছনে রয়েছে বোলিং ব্যর্থতা তার সাথে কিছুটা ব্যাটিং ।

আজ দলীয় রান হয়েছে  ২৫৭/৯ । আর নিউজিল্যান্ড ২৫৮ রান করতে হারিয়েছে ৬ উইকেট। ১৫ বল হাতে রেখে জয় তুলে নেয় কিউয়ইরা ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: নিউ জিল্যান্ড ৪৭.৩ ওভারে ২৫৮/৬ (বাংলাদেশ ২৫৭/৯)

প্রথমে টসে হেরে ব্যাট করতে আসে বাংলাদেশের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার । খুব ভাল একটা শুরু করেন তারা দুই জন।এক দিকে তামিম ইকবাল যেমন ধরে খেলছিলেন অন্য দিকে সৌম্য সরকার ছিলেন মারকুটে । আজ আর আগের দিনের মত উইকেটে সবুজ গালিচা ছিলা না । ঘাস ছিল কিন্তু তা তুলনা মূলক ভাবে কম আগের দিনের আয়ারল্যান্ড ম্যাচ থেকে । ঘাস ছিল কিন্তু মরা ঘাস , যার কারনে বল ব্যাটে আসতে সময় নিচ্ছিল । যদি ব্যাটসম্যান রা ধরে খেলতে পারতো তাহলে ২৮০ করা তেমন একটা ব্যাপার ছিল না বাংলাদেশের  জন্য । ছোট ছোট অনেক ইনিংস থাকলেও ছিল না বড় করার প্রবনতা ।

টস জিতলে ব্যাটিং নিত মাশরাফি কিন্তু টস হেরে যে খুব একটা ক্ষতি হয়েছে তা কিন্তু না।শুরু টা ভাল ছিল । কিন্তু সমস্যা ছিল খেলার রানের চাকা সচল রাখা । ৭ ওভার শেষ এ তামিম ও সৌম্য সমান ২১ বল খেলে রান ছিল ৬ ও ২৬ । এক প্রান্ত যেমন ধরে খেলছিল অন্য প্রান্ত ছিল মার মুখি ।

প্রথম ১০ ওভার রান কম থাকলেও রান রেট ছিল ৪.৪৪ এর কাছা কাছি । অনবধ্য ১৫ ওভার খেলেছিল ওপেনার জুটি ।

তামিম ইকবাল – শুরুতে ধীর গতি নিয়ে খেললেও যখন ক্রিজে স্থায়ী হয়ে গিয়েছেন তখন খেলেছেন খুব সুন্দর একটি ইনিংস । প্রথম ওভারে ব্যাটের কানায় লেগে চার পাওয়া তামিম দ্বিতীয় চার পান দশম ওভারে। কিন্তু যখনি ব্যক্তিগত রানের চাকা সচল করতে গেলেন ঠিক তখনি থাকে দেখতে হল প্যভিলিয়নের পথ । ১৫ তম ওভারের প্রথম বল জিমি নিশামের অনেক বাইরের বল উড়িয়ে কাভারে ধরা পড়লেন তামিম। ভাঙল ৭২ রানের উদ্বোধনী জুটি। ব্যক্তিগত  ২৩ রান ৪৬ বলে করে মুনরো হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনি । তার স্টাইক রেট ছিল ৫৪.৮ ।

সাব্বির রহমান –  আগের দিনের মত ব্যর্থ ছিল সাব্বির । আগের দিন যেমন নিজের বা দলীয় রান এ তেমন কিছু যোগ করতে পারেনি , ঠিক আজও শূন্য হাতে ফিরে গেলেন তিনি । ১৬.৩ বলের সময়  মিচেল স্যান্টনারের সামনে খেলার বল পেছনে খেলে লাইন মিস করে বোল্ড সাব্বির রহমান । ৪ বলে করেছেন ১ রান। স্টাইক রেট ছিল ২৫ ।

সৌম্য সরকার – ভালই খেলছিল সৌম্য । কিন্তু তিনি  ৫০ রান কে টেনে ১০০ রান করতে পারছিলেন না অনেক গুলো ম্যাচ থেকেই।দারুন এক ৫০ রান তুলেনেন সৌম্য । কিন্তু নিজের ব্যক্তিগত ৬১ রানে ফিরে যান ইশ সোধিকে সুইপ করতে গিয়ে । বলে গিয়ে ধরেন ল্যাথহাম । ৬১ রান করতে তিনি খরচ করেন ৬৭ বল । তার স্টাইক রেট ৯১ ।

সাকিব আল হাসান – আগের ম্যাচ এর মত ব্যর্থ সাকিব । চিরচেনা রুপে কেন যেন তিনি নিজেকে খুঁজে পাচ্ছেন না । IPL যেমন তিনি প্রথম ম্যাচ এ ব্যর্থ ছিলেন ঠিক গত ও আজকের ম্যাচ ও তিনি ব্যর্থ ছিলেন । আজ তিনি সোধির বলে ক্যাচ দেন নিশাম কে । ১৪ বলে করেন মাত্র  ৬ রান ।তার স্টাইক রেট ৪২.৯

মুশফিক – আজ খুব ভাল খেলেছেন । দলের প্রয়োজনে দলের হাল ধরেছেন । মাহমুদউল্লাহ কে নিয়ে করেন এক অসাধারন জুটি । নিজের ব্যক্তি গত ৬৬ বলে ৫৫ রান করে ফিরে যান এই ব্যাটসম্যান । নিশাম এর বল তাকে বোকা বানিয়ে ক্যাচ লুফে নেন উইকেটকিপার রনচি । দল তখন বিপদ মুক্ত ।তার স্টাইক রেট ছিল ৮৩.৩

মাহমুদউল্লাহ –  তিনি দলের শেষের দিকটা টেনে নিয়ে গিরে দল কে কিছু রান উপহার দেন । শেষের দিকে মেরে খেলতে গিয়ে আউট হয়ে যান এই খেলোয়াড় । দলীয় রান যখন ২৪২ তখন তিনি আউট হন , তার রান ৫১ । স্টাইক রেট ছিল ৯১.১

শেষের দিকে মোসাদ্দেক ছাড়া আর কেউ তেমন দলের জন্য রান করতে পারেন নি । ব্যক্তিগত ৪১ রানের ফিরে যান মোসাদ্দেক । আর বাকিরা ছিল আসা যাওয়ার মিছিলে । ৫০ ওভারে বাংলাদেশ করে ২৫৭/৯

নিউজিল্যান্ড

জয়ের আশা নিয়ে মাঠে নেমে ছিল কিউইয়ি রা । শুরুতে তাদের ব্যাটিং ধরন দেখে তা মনে হচ্ছিল । মাশরাফি প্রথম তিন বলেই হজম করলেন চার ও ছক্কা।মাশরাফির কামব্যাকটা ওতটা ভাল হয়নি । লুক রনকিকে ফিরিয়ে বিপজ্জনক উদ্বোধনী জুটি ভেঙেছেন মুস্তাফিজ। কিন্তু নিয়মিত উইকেট নিয়ে কিউইদের চাপে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ।আজ মুস্তাফিজ কে দেখা গিয়েছে তার আগের রুপে।তবে এখনো তিনি সম্পুন রুপে ফিরতে পারেন নি । কিউইয়ি ব্যাটসম্যান রা ব্যক্তিগত রান না করতে পারলেও কিছু কিছু পাটনারশিপ ছিল দলের জন্য অনেক কার্জ কারি । ওপেনিংয়ে অর্ধশতক করেছেন অধিায়ক ল্যাথাম। মিডল অর্ডার রান পেয়েছেন নিল ব্রুম।পঞ্চম উইকেটে ব্রুম ও জিমি নিশামের ৮০ রানের জুটিতেই জয় অনেকটা নিশ্চিত করে ফেলে নিউ জিল্যান্ড ।

এই ম্যাচে প্রাপ্তি বলতে বাংলাদেশের ছিল কিছু ব্যাটসম্যান এর রানে ফিরা এবং বিশেষ করে মুস্তাফিজের আগের রুপে কিছুটা ফিরে আসা । আর রুবেলের বোলিং ও শরীরয় ভাষা ছিল অসাধারন ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ ৫০ ওভারে করে ২৫৭/৯ (তামিম ২৩, সৌম্য ৬১, সাব্বির ১, মুশফিক ৫৫, সাকিব ৬, মাহমুদউল্লাহ ৫১, মোসাদ্দেক ৪১, মিরাজ ৬, মাশরাফি ১, রুবেল ০*, মুস্তাফজ ০*; রান্স ০/৬৬, বেনেট ৩/৩১, স্যান্টনার ১/৩৭, নিশাম ২/৬৮, সোধি ২/৪০, মানরো ০/১৪)।

নিউ জিল্যান্ড: ৪৭.৩ ওভারে ২৫৮/৬ (ল্যাথাম ৫৪, রনকি ২৭, ওয়ার্কার ১৭, টেইলর ২৫, ব্রুম ৪৮, নিশাম ৫২, মানরো ১৬*, স্যান্টনার ৫*; মাশরাফি ১/৫৮, সাকিব ০/৫০, মুস্তাফিজ ২/৩৩, মিরাজ ০/৪৫, মাহমুদউল্লাহ ০/৮, মোসাদ্দেক ০/৭, রুবেল ২/৫৩)।

ফল: নিউ জিল্যান্ড ৪ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: জিমি নিশাম

About The Author
Rohit Khan fzs
বি.এস.সি করছি ইলেকট্রনিক এন্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং। লিখতে ভালবাসি। নতুন নতুন মানুষদের সাথে পরিচিত হতে পছন্দ করি।