বাংলাদেশ পরিচিতি

চায়ের দেশ শ্রীমঙ্গল

শ্রীমঙ্গল নাম না বলে আপনি যে কাউকেই জিজ্ঞেস করেন , চায়ের দেশ কাকে বলা হয় ? তিনি ডান বাম না ভেবে আপনাকে বলে দিবে শ্রীমঙ্গল । শ্রীমঙ্গল এমন একটি জায়গায় যেখানে চা হওয়ার জন্য সবচেয়ে উপযোগী । বাংলাদেশে আর কোথাও এতো চা গাছ বা চায়ের বাগান নেই যতটা শ্রীমঙ্গলে আছে । অপরূপ সুন্দোর্য চায়ের বাগান । শেষ বার গিয়েছিলাম শীতে ।আমি আপনাকে বলবো আপনি শীত কালে কোথাও যদি যেতে চান তাহলে শ্রীমঙ্গল গিয়ে ঘুরে আসুন । ভুলেও বর্ষা কালে যাবেন না । তাহলে জোক আপনাকে আক্রমণ করবে ১০০% শিউর । আর গ্রীস্মকালে গেলে রোদে আপনাকে পুড়তেই হবে । আমি বলবো আপনি শ্রীমঙ্গল ডিসেম্বর এর ২৩ বা ২৪ তারিখে যান ।

খন কিভাবে যাবেন শ্রীমঙ্গল তা এখন আমি বলবো । আশা করি খুব কম খরচে আপনাকে আমি দেখাবো কিভাবে ঘুরে আসতে পারেন ।

আপনি দুই ভাবে যেতে পারেন ট্রেন বা বাস । আমি আপনাকে প্রেফার করবো আপনি ট্রেনে যান তাহলে জার্নিটা যেমন উপভোগ হয়ে উঠবে ঠিক তেমনি খরচ ও কমে যাবে ।

ট্রেন – প্রথমে কমলাপুর থেকে দুই তিন দিন আগে ট্রেনের টিকিট কেটে নিন । তা না হলে আপনি সিট্ পাবেন না । আপনি যদি শোভন চেয়ার যান তাহলে ভাড়া পরবে ২২৫ টাকা । আর হ্যাঁ আপনাকে একটা কথা বলে রাখি অনেকে হয়তো জানেন না , শ্রীমঙ্গল কোনো জেলা নয় । মৌলুভীবাজার এর একটি থানা বা উপজেলা হলো শ্রীমঙ্গল । সিলেট গামী যেকোনো ট্রেনের টিকেট কাটলেই হবে আপনার । সকাল , বিকেল , রাত সব সময় টিকিট পাবেন আপনি । কেটেনিন যে কোনো একটি ট্রেনের টিকেট । ট্রেনে করে গেলে আপনি উপভোগ করতে পারবেন হবিগঞ্জ ও মৌলিভীবাজারের ছোট ছোট কিছু পাহাড় । আপনার জার্নি তখনি আরো মজার হয়ে উঠবে যখন ট্রেনে কিছু লোক একতারা হাতে নিয়ে উঠে আপনাকে আঞ্চলিক গান গাইয়ে শোনাবে । আমি বলবো আপনি একদম সকালে অথবা রাতের ট্রেনে শ্রীমঙ্গল চলে যান । আমি রাতের ট্রেনে গিয়েছিলাম । আপনাকে চায়ের দেশ শ্রীমঙ্গল স্টেশন নামিয়ে দিবে । আপনি সেখান থেকে নেমে সিএনজি করে চলে আসুন মৌলুভীবাজারে ভাড়া নিবে ৩০ টাকা করে । প্রথম দিন আপনি রেস্টে থাকুন । মৌলুভীবাজারের অনেক থাকার হোটেল পাবেন । ভাড়া ৩০০ টাকা থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে পড়বে । সেখানে আপনি উঠতে পারেন ।

বাস – আর যারা বাসে যেতে চান তারা প্রথমে চলে আসুন সায়েদাবাদে । সেখান থেকে শ্যামলী বা হানিফা করে হবিগঞ্জ এর নতুন ব্রিজ নেমে যান । ভাড়া পড়বে ৩৫০ টাকা সময় লাগবে মাত্র ৩ ঘন্টা । ২৪ ঘন্টা গাড়ি পাবেন । নতুন ব্রিজ নেমে একটি সিএনজি করে চলে আসুন মৌলিভীবাজার এর চকবাজার । ভাড়া পড়বে ৬০ টাকা করে । নেমে হোটেল ভাড়া করে রেস্টে থাকুন ।

চা বাগান
শ্রীমঙ্গল চা বাগান

 

পরের দিন আপনি একটি সিএনজি ভাড়া করতে পারেন সারা দিনের জন্য । আমি তাই করেছিলাম । সারা দিনের জন্য একটি সিএনজি ভাড়া করেছিলাম মাত্র ৭০০ টাকায় । ভাড়া করার আগে অবশ্যই বলে নিবেন যেন আপনাকে শ্রীমঙ্গল , উপজাতি পল্লী , বদ্ধভূমি , চা বাগান , বিজিবি পার্ক ঘুরিয়ে নিয়ে আসে । সাথে কমলা ও লেবু বাগান যেন ঘুরায় । আপনি যদি সকালে বের হন তাহলে আপনার মোটামুটি ৪ থেকে ৫ ঘন্টা সময় লাগবে ভালমতো সব ঘুরতে । প্রথমে আপনাকে চা বাগান নিয়ে যাবে ।

রাবার বাগান
শ্রীমঙ্গল রাবার বাগান

আমি যাবার পথে রাবার বাগান দেখবেন সেখানে গাড়ি থামিয়ে কিছু ছবি তুলে নিতে পারেন । আমি তাই করে ছিলাম । আপনি রাস্তা দেখে মুগ্ধ হয়ে যাবেন । অনেক সুন্দর রাস্তা । অনেক পরিষ্কার ও গোছালো । তার একটু সামনে এগিয়ে গেলে আপনার চোখে পড়বে চা বাগান । আপনি গাড়ি থেকে নেমে চা বাগানের ছোট ছোট পাহাড় বেয়ে উপরে উঠে যান । বেশি দূর না যাওয়া ভাল , পথ হারিয়ে ফেলতে পারেন অথবা সঙ্গে দামি কিছু থাকলে ছিনতাই হবার ভয় থাকবে । আসে পাশের ছবি তুলতে পারেন ।

 

ভাস্কার
চা এর দেশে স্বাগতম ভাস্কর্য

আবার নেমে সিএনজি তে বসে পড়ুন । সেখান থেকে আপনাকে নিয়ে যাবে একটা ভাস্কর্য এর কাছে । যেখানে লেখা আছে চায়ের দেশে স্বাগতম । খুব সুন্দর একটা জায়গা । নেমে কিছু ছবি তুলে নিন । ঠিক এই ভাস্কর্য পাশে একটি রাস্তা গিয়েছে , এই রাস্তা আপনাকে উপজাতিদের পল্লী তে নিয়ে যাবে । সিএনজি ড্রাইভার কে বলুন তিনি আপনাকে নিয়ে যাবে । ওখানে গেলে আপনি দেখবেন তাদের জীবন ধরণের স্টাইল । খুব সুন্দর তাদের পল্লী গুলো । উঁচু উঁচু করে তাদের বাড়ি গুলো । আপনি নেমে আসে পাশে ঘুরে আসতে পারেন । আমি যখন গিয়েছিলাম তখন তাদের বড় দিন ছিল । খুব সুন্দর করে সাজিয়ে ছিল পল্লী কে ।

সেখান থেকে চলে গেলাম লেবু বাগানে । যখনি আপনি প্রবেশ করবেন তখনি আপনার নাকে এসে ধাক্কা দিবে লেবুর গন্ধ । আপনি সেখানে নেমে কোনো গাছ থেকে লেবু ছিড়বেন না । যারা লেবু পারছে তাদের বলুন একটি লেবু দিতে দেখবেন তারা পানেক মিনিমাম ৮টি লেবু দিবে । আমাকে ও দিয়েছিলো । কি সুন্দর লেবুর ঘ্রান । পুরো সিএনজি লেবুর ঘ্রানে ভরে গিয়েছে । সেখান থেকে আপনি বিজিবি পার্কে যেতে পারেন । সেখানে আপনি সাত রঙের চা পাবেন । আমার বেক্তিগত মতামত , চা একটা একদম মজা না । আপনার কাছে হয়তো মজা লাগতে পারে । সেখানে ঘুরে আপনি আশে পাশের বিভিন্ন জায়গা ঘুরে আসতে পারেন ।

খরচ

ট্রেনে ২২০ টাকা থাকা ৪০০ টাকা করে দুই দিন থাকলে পড়বে ৮০০ টাকা । খাওয়া দুই দিনের পড়বে ৬০০ টাকা । আর সিএনজি ভাড়া ৭০০ । ও ঢাকায় আসার ভাড়া ২২০ টাকা । টোটাল – ২৫০০ টাকা আর বাসে গেলে শুধু বাস ভাড়া বাড়বে আর সব ঠিক থাকবে । আপনি যদি গ্রুপ নিয়ে যান বা দুই জন গেলে টাকা আরো কমে যাবে ২০০০ টাকার মধ্যে হয়ে যাবে । আমরা তিন জন গিয়েছিলাম আমাদের পড়েছিল ১৫০০ টাকা করে ।

একই রকম আরো কিছু ফুটপ্রিন্ট

আমরা কি দিতে পেরেছি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ ??

Syed Asraful

ঘুরে আসুন সুনামগঞ্জ এর টাঙ্গুয়ার হাওর থেকে।

shatil al arab

বাংলাদেশের ইতিহাসের সাক্ষী – পর্ব ১

Amit Biswas

1 comment


Warning: trim() expects parameter 1 to be string, object given in /nfs/c12/h08/mnt/215533/domains/footprint.press/html/wp-includes/class-wp-user.php on line 208

Warning: trim() expects parameter 1 to be string, object given in /nfs/c12/h08/mnt/215533/domains/footprint.press/html/wp-includes/class-wp-user.php on line 208

Warning: trim() expects parameter 1 to be string, object given in /nfs/c12/h08/mnt/215533/domains/footprint.press/html/wp-includes/class-wp-user.php on line 208

Warning: trim() expects parameter 1 to be string, object given in /nfs/c12/h08/mnt/215533/domains/footprint.press/html/wp-includes/class-wp-user.php on line 208
Footprint Police June 7, 2017 at 12:58 am

Spelling Error = Yes

Login

Do not have an account ? Register here
X

Register

%d bloggers like this: