বাংলাদেশ পরিচিতি

চায়ের দেশ শ্রীমঙ্গল

শ্রীমঙ্গল নাম না বলে আপনি যে কাউকেই জিজ্ঞেস করেন , চায়ের দেশ কাকে বলা হয় ? তিনি ডান বাম না ভেবে আপনাকে বলে দিবে শ্রীমঙ্গল । শ্রীমঙ্গল এমন একটি জায়গায় যেখানে চা হওয়ার জন্য সবচেয়ে উপযোগী । বাংলাদেশে আর কোথাও এতো চা গাছ বা চায়ের বাগান নেই যতটা শ্রীমঙ্গলে আছে । অপরূপ সুন্দোর্য চায়ের বাগান । শেষ বার গিয়েছিলাম শীতে ।আমি আপনাকে বলবো আপনি শীত কালে কোথাও যদি যেতে চান তাহলে শ্রীমঙ্গল গিয়ে ঘুরে আসুন । ভুলেও বর্ষা কালে যাবেন না । তাহলে জোক আপনাকে আক্রমণ করবে ১০০% শিউর । আর গ্রীস্মকালে গেলে রোদে আপনাকে পুড়তেই হবে । আমি বলবো আপনি শ্রীমঙ্গল ডিসেম্বর এর ২৩ বা ২৪ তারিখে যান ।

খন কিভাবে যাবেন শ্রীমঙ্গল তা এখন আমি বলবো । আশা করি খুব কম খরচে আপনাকে আমি দেখাবো কিভাবে ঘুরে আসতে পারেন ।

আপনি দুই ভাবে যেতে পারেন ট্রেন বা বাস । আমি আপনাকে প্রেফার করবো আপনি ট্রেনে যান তাহলে জার্নিটা যেমন উপভোগ হয়ে উঠবে ঠিক তেমনি খরচ ও কমে যাবে ।

ট্রেন – প্রথমে কমলাপুর থেকে দুই তিন দিন আগে ট্রেনের টিকিট কেটে নিন । তা না হলে আপনি সিট্ পাবেন না । আপনি যদি শোভন চেয়ার যান তাহলে ভাড়া পরবে ২২৫ টাকা । আর হ্যাঁ আপনাকে একটা কথা বলে রাখি অনেকে হয়তো জানেন না , শ্রীমঙ্গল কোনো জেলা নয় । মৌলুভীবাজার এর একটি থানা বা উপজেলা হলো শ্রীমঙ্গল । সিলেট গামী যেকোনো ট্রেনের টিকেট কাটলেই হবে আপনার । সকাল , বিকেল , রাত সব সময় টিকিট পাবেন আপনি । কেটেনিন যে কোনো একটি ট্রেনের টিকেট । ট্রেনে করে গেলে আপনি উপভোগ করতে পারবেন হবিগঞ্জ ও মৌলিভীবাজারের ছোট ছোট কিছু পাহাড় । আপনার জার্নি তখনি আরো মজার হয়ে উঠবে যখন ট্রেনে কিছু লোক একতারা হাতে নিয়ে উঠে আপনাকে আঞ্চলিক গান গাইয়ে শোনাবে । আমি বলবো আপনি একদম সকালে অথবা রাতের ট্রেনে শ্রীমঙ্গল চলে যান । আমি রাতের ট্রেনে গিয়েছিলাম । আপনাকে চায়ের দেশ শ্রীমঙ্গল স্টেশন নামিয়ে দিবে । আপনি সেখান থেকে নেমে সিএনজি করে চলে আসুন মৌলুভীবাজারে ভাড়া নিবে ৩০ টাকা করে । প্রথম দিন আপনি রেস্টে থাকুন । মৌলুভীবাজারের অনেক থাকার হোটেল পাবেন । ভাড়া ৩০০ টাকা থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে পড়বে । সেখানে আপনি উঠতে পারেন ।

বাস – আর যারা বাসে যেতে চান তারা প্রথমে চলে আসুন সায়েদাবাদে । সেখান থেকে শ্যামলী বা হানিফা করে হবিগঞ্জ এর নতুন ব্রিজ নেমে যান । ভাড়া পড়বে ৩৫০ টাকা সময় লাগবে মাত্র ৩ ঘন্টা । ২৪ ঘন্টা গাড়ি পাবেন । নতুন ব্রিজ নেমে একটি সিএনজি করে চলে আসুন মৌলিভীবাজার এর চকবাজার । ভাড়া পড়বে ৬০ টাকা করে । নেমে হোটেল ভাড়া করে রেস্টে থাকুন ।

চা বাগান
শ্রীমঙ্গল চা বাগান

 

পরের দিন আপনি একটি সিএনজি ভাড়া করতে পারেন সারা দিনের জন্য । আমি তাই করেছিলাম । সারা দিনের জন্য একটি সিএনজি ভাড়া করেছিলাম মাত্র ৭০০ টাকায় । ভাড়া করার আগে অবশ্যই বলে নিবেন যেন আপনাকে শ্রীমঙ্গল , উপজাতি পল্লী , বদ্ধভূমি , চা বাগান , বিজিবি পার্ক ঘুরিয়ে নিয়ে আসে । সাথে কমলা ও লেবু বাগান যেন ঘুরায় । আপনি যদি সকালে বের হন তাহলে আপনার মোটামুটি ৪ থেকে ৫ ঘন্টা সময় লাগবে ভালমতো সব ঘুরতে । প্রথমে আপনাকে চা বাগান নিয়ে যাবে ।

রাবার বাগান
শ্রীমঙ্গল রাবার বাগান

আমি যাবার পথে রাবার বাগান দেখবেন সেখানে গাড়ি থামিয়ে কিছু ছবি তুলে নিতে পারেন । আমি তাই করে ছিলাম । আপনি রাস্তা দেখে মুগ্ধ হয়ে যাবেন । অনেক সুন্দর রাস্তা । অনেক পরিষ্কার ও গোছালো । তার একটু সামনে এগিয়ে গেলে আপনার চোখে পড়বে চা বাগান । আপনি গাড়ি থেকে নেমে চা বাগানের ছোট ছোট পাহাড় বেয়ে উপরে উঠে যান । বেশি দূর না যাওয়া ভাল , পথ হারিয়ে ফেলতে পারেন অথবা সঙ্গে দামি কিছু থাকলে ছিনতাই হবার ভয় থাকবে । আসে পাশের ছবি তুলতে পারেন ।

 

ভাস্কার
চা এর দেশে স্বাগতম ভাস্কর্য

আবার নেমে সিএনজি তে বসে পড়ুন । সেখান থেকে আপনাকে নিয়ে যাবে একটা ভাস্কর্য এর কাছে । যেখানে লেখা আছে চায়ের দেশে স্বাগতম । খুব সুন্দর একটা জায়গা । নেমে কিছু ছবি তুলে নিন । ঠিক এই ভাস্কর্য পাশে একটি রাস্তা গিয়েছে , এই রাস্তা আপনাকে উপজাতিদের পল্লী তে নিয়ে যাবে । সিএনজি ড্রাইভার কে বলুন তিনি আপনাকে নিয়ে যাবে । ওখানে গেলে আপনি দেখবেন তাদের জীবন ধরণের স্টাইল । খুব সুন্দর তাদের পল্লী গুলো । উঁচু উঁচু করে তাদের বাড়ি গুলো । আপনি নেমে আসে পাশে ঘুরে আসতে পারেন । আমি যখন গিয়েছিলাম তখন তাদের বড় দিন ছিল । খুব সুন্দর করে সাজিয়ে ছিল পল্লী কে ।

সেখান থেকে চলে গেলাম লেবু বাগানে । যখনি আপনি প্রবেশ করবেন তখনি আপনার নাকে এসে ধাক্কা দিবে লেবুর গন্ধ । আপনি সেখানে নেমে কোনো গাছ থেকে লেবু ছিড়বেন না । যারা লেবু পারছে তাদের বলুন একটি লেবু দিতে দেখবেন তারা পানেক মিনিমাম ৮টি লেবু দিবে । আমাকে ও দিয়েছিলো । কি সুন্দর লেবুর ঘ্রান । পুরো সিএনজি লেবুর ঘ্রানে ভরে গিয়েছে । সেখান থেকে আপনি বিজিবি পার্কে যেতে পারেন । সেখানে আপনি সাত রঙের চা পাবেন । আমার বেক্তিগত মতামত , চা একটা একদম মজা না । আপনার কাছে হয়তো মজা লাগতে পারে । সেখানে ঘুরে আপনি আশে পাশের বিভিন্ন জায়গা ঘুরে আসতে পারেন ।

খরচ

ট্রেনে ২২০ টাকা থাকা ৪০০ টাকা করে দুই দিন থাকলে পড়বে ৮০০ টাকা । খাওয়া দুই দিনের পড়বে ৬০০ টাকা । আর সিএনজি ভাড়া ৭০০ । ও ঢাকায় আসার ভাড়া ২২০ টাকা । টোটাল – ২৫০০ টাকা আর বাসে গেলে শুধু বাস ভাড়া বাড়বে আর সব ঠিক থাকবে । আপনি যদি গ্রুপ নিয়ে যান বা দুই জন গেলে টাকা আরো কমে যাবে ২০০০ টাকার মধ্যে হয়ে যাবে । আমরা তিন জন গিয়েছিলাম আমাদের পড়েছিল ১৫০০ টাকা করে ।

একই রকম আরো কিছু ফুটপ্রিন্ট

একদিয় ঘুরে আসুন ঝর্না, সমুদ্র আর পাহাড়

Rohit Khan fzs

বাংলাদেশের কোন কোন যায়গায় বেড়াতে যাওয়া যায়।

Muhammad Uddin

ঘুরে আসুন সুনামগঞ্জ এর টাঙ্গুয়ার হাওর থেকে।

shatil al arab

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy