সাহিত্য কথা

আজ আমার বিয়ে – পর্ব ২য়

যখন দাঁড়ালাম তখন খেয়াল করলাম ঘরের মধ্যে কেউ একজন আমাকে উঁকি মেরে দেখছে । আমি আর কোনো কথা না বলে চুপ করে বসে পড়লাম । মা আর মামা কথা বলছে মেয়ের বাবার সাথে । কি কথা বলছে আমি খেয়াল করি নি । আমার মনে তখন একটাই চিন্তা এখন আমার কি হবে ? আসলে যা হবার তো তা হবে । সাদ , এই সাদ এই রকম একটা কিছু আমার কানে ভেসে আসতেই আমি তাকিয়ে দেখলাম মা ডাকছে । আমি বললাম কি মা বলো । মা তখন বললো পাশের ঘরে মেয়ে আছে তুমি গিয়ে দেখে আসো । আমি কোনো কথা না বলে উঠে সোজা হাটতে শুরু করলাম । দেখলাম খাটের এক পাশে একটি মেয়ে বসে আছে , মাথার অনেক বড় ঘোমটা । আমি প্রথমে ঢুকে তাকে সালাম দিলাম ।
উনি উত্তরে ওয়ালাইকুম আসসালাম বলে চুপ করে আছে । এই দিকে আমার অবস্থা খুব খারাপ । একটা হাটু যেন আরেকটা হাঁটুর সাথে বাড়ি খাচ্ছে । আমি রুমাল দিয়ে আমার ঘাম মুছে বসে পড়লাম খাটের এক পাশে ।কেউ কোনো কথা বলছি না । মনে হচ্ছে সারা দুনিয়া থেমে আছে । আমি একদম চুপ ।

ওই প্রান্ত থেকে প্রথম প্রশ্ন আসলো আপনার নাম কি ?
সাদ আমার নাম – আমি জবাব দিলাম ।
উনি আমাকে বললো আচ্ছা আপনি কি আমার হাত ধরতে পারবেন এখন ?
এই রকম কোনো প্রশ্নের জন্য আমি প্রস্তুত ছিলাম না । এই রকম কিছু শোনার পর তখন আমার নিউটন এর কথা মনে পড়লো । উনি তার গতি সূত্রে বলেছিলাম প্রত্যেক বস্তুর একটি সমান ও বিপরীত মুখী ক্রিয়া আছে । কিন্তু আমাদের মধ্যে শুধু সমান ক্রিয়া কাজ করছে বিপরীত ক্রিয়া কাজ করছে না । মানে মাটির ভিতরে চলে যাবো বলে মনে হচ্ছে । আমি উত্তর দেয়ার আগে আবার আমাকে প্রশ্ন করলো আমি কয়টা প্রেম করেছি ?
আমি গলা কেশে বেশ শক্ত ভাবে বললাম আমি মোটেও ওই রকম ছেলে না । আমি নিজেকে আমার বৌয়ের জন্য পবিত্র রেখেছে । আমার উত্তরটা শুনে তিনি একটু হাসলেন ।
তখন সে আমাকে বললো নামাজ পড়েন ?
জ্বী নিয়মিত নামাজ পড়ি ।
আপনার ইন্টারভিউ নেয়া শেষ এইবার আপনি আসতে পারেন । যাওয়ার সময় পিছন ফিরে তাকিয়ে ছিলাম । শুধু এক পলক তার চেহারাটা দেখতে পেলাম । মনে হলো কোনো এক জান্নাতের পরী পৃথিবীতে নেমে এসেছে ।
আমি এতটা বোকা যে তার না জিজ্ঞেস করতে ভুলে গিয়েছি । আচ্ছা উনি আমাকে কেন হাত ধরতে বললেন , এই কথা ভাবতে ভাবতে আমি এসে পড়লাম ডাইনিং রুমে । এসে বসতেও পারলাম না পিচ্চি টা বলে বসলো কি ভাই ভাবি কেমন ? আমি বললাম চুপ থাক । বেশি কথা বলিস না । মা বললো বাবা তোমার কেমন লেগেছে মেয়ে কে ? আমি কোনো কথা বলছিলাম না । কি বলবো তার কথা বলতে গেলে তার রূপের বর্ণনা দেয়া শুরু হয়ে যাবে । মা তখন বললো ভাই সব কিছু মনে করবেন না , আমার ছেলে একটু লাজুক টাইপের তো তাই কোনো উত্তর দিচ্ছে না । ওর মুখ দেখে বুঝতে পারছি ও রাজি । আপনি মেয়েকে আনেন আমি ওকে আংটি পরিয়ে দেয় ।

ভাবি আপনি মেয়েকে তো দেখলেন না । মেয়ের বাবা প্রশ্ন করলো
ভাই আমি আপনার মেয়ের কথা অনেক শুনেছি আমার ছোট বোনের কাছে । কথা শুনেই মেয়ে কে ভালো লেগেছে ।

কিছুক্ষন পর আমার হবু বউ বিশাল বড় এক ঘোমটা দিয়ে ঘরে প্রবেশ করলো । প্রবেশ করে সবার পা ধরে সালাম করছিলো । যখন আমার সামনে এসে পা ধরে সালাম করছিলো তখনি উনি আমার পায়ে সালাম না করে দিলো চিমটি কেটে । আমি উফফ করে উঠলে মা বললো বাবা কি হয়েছে । আমি বললাম অরে মা দেখোনা পিচ্চি টা কি শুরু করেছে খালি আমাকে চিমটি দেয় । তখন মামাতো ভাই বলে উঠলো ফুপু আমি কিছু করি নি । ভাবি, এই কথা বলতে যাবে তখনি আমি মুখ চেপে বললাম চুপ থাকো । তুমি অনেক দুষ্ট হয়ে গিয়েছো । পিচ্চিটা বলে উঠলো আমি কিন্তু সবই বুঝি । মেয়ে গিয়ে আমার মায়ের পাশে বসলো । মা বললো দেখি মা তোমার ঘোমটা টা একটু নামাওতো দেখি । মা বলে উঠলো একদম পরীর মতো মেয়ে । আমার খুব ভাল লেগেছে । আমিও তখন আমার হবু বৌকে মন ভোরে দেখে নিলাম । হঠাৎ করে আবার কানে হাসির শব্দ আসলো । দেখলাম উনার ছোট বোনেরা আমাকে দেখে হাসছে । আমি মাথা নিচু করে বসে আছি । আগামী মাসের ১২ তারিখে আমাদের বিয়ে ।কথা ফাইনাল করে ফিরার পথে দেখলাম তিনি আমাকে দেখে হাসছে আর শুধুই হাসছে । আমিও তার দিকে থাকিয়ে মুচকি হাসি দিয়ে বের হয়ে গেলাম ঘর থেকে । গাড়িতে গিয়ে বসলাম । মুহূর্তের মধ্যে বাসায় এসে পড়লাম । বুঝলাম না যেকোন এতো দ্রুত আসলাম কিভাবে ।

চলবে

নিচে প্রথম পর্বের লিংক দিয়ে দিলাম

http://footprint.press/%E0%A6%86%E0%A6%9C-%E0%A6%86%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A7%87-%E0%A6%AA%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%AC-%E0%A7%A7%E0%A6%AE/

একই রকম আরো কিছু ফুটপ্রিন্ট

স্বল্প দৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী – পর্ব – ২য়

Rohit Khan fzs

আন্ডারগ্রাউন্ডঃ পর্ব ১

স্বপ্নের প্রহর।

Shad Bin Akram Niloy

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy