আইসিইউ থেকে ওবায়দুল কাদের এখন কেবিনে, আগামী সপ্তাহে সার্জারি

Now Reading
আইসিইউ থেকে ওবায়দুল কাদের এখন কেবিনে, আগামী সপ্তাহে সার্জারি

আজ বুধবার সকালে আইসিইউ (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) থেকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে। সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন ওবায়দুল কাদের। আজ সকালে ওবায়দুল কাদেরর চিকিৎসা সমন্বয়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) পরিচালক অধ্যাপক আবু নাসার রিজভী এ তথ্য জানান।

ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা ভালো বলে মন্তব্য করলেন অধ্যাপক আবু নাসার রিজভী। আজ সকাল থেকে তাঁকে নরম খাবার দেওয়া হচ্ছে। আগামী সপ্তাহে সুবিধাজনক সময়ে তাঁর বাইপাস সার্জারির প্রস্তুতি নিচ্ছেন চিকিৎসকেরা।
এর আগে সোমবার ওবায়দুল কাদেরের মেডিকেল বোর্ডের সঙ্গে কথা বলে অধ্যাপক ডা. আবু নাসার রিজভী জানান, ওবায়দুল কাদের হাঁটতে পারছেন। স্বাস্থ্যের আশানুরূপ উন্নতি হওয়ায় তাকে মঙ্গলবার সকালে আইসিইউ থেকে কেবিনে স্থানান্তর করা হতে পারে। তবে গতকাল তাকে কেবিনে দেয়া না হলেও আজ আইসিইউ থেকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আবু নাসার রিজভী।
এর আগে কার্ডিও থোরাসিক সার্জন সিবাস্টিন কুমার সামি মন্ত্রীর চিকিৎসার সর্বশেষ অগ্রগতি পরিবারের সদস্যদের জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রী ইসরাতুন্নেসা কাদের ও সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান।
উল্লেখ্য, গত ৩ মার্চ ভোরে হৃদরোগে আক্রান্ত হন ওবায়দুল কাদের। এরপর দ্রুত তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের আইসিইউতে নেয়া হয়। তার হার্টে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। এরপর ৪ মার্চ ভারতের প্রখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. দেবী শেঠি এসে তাকে দ্রুত সিঙ্গাপুর নেয়ার পরামর্শ দিলে ওইদিনই এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নেয়া হয় ওবায়দুল কাদেরকে।

হাজির হননি খালেদা জিয়া, পরবর্তী শুনানি ৯ এপ্রিল

Now Reading
হাজির হননি খালেদা জিয়া, পরবর্তী শুনানি ৯ এপ্রিল

আজ বুধবার (১৩ মার্চ ) বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলার অভিযোগ গঠন শুনানির দিন ধার্য ছিল খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের বিরুদ্ধে। কিন্তু অভিযোগ গঠন শুনানি পেছানোর আবেদন করেন, খালেদা জিয়ার আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার। বকশী বাজারে অবস্থিত ঢাকার ২ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক এ এইচ এম রুহুল ইমরান শুনানি শেষে পরবর্তী শুনানির জন্য ৯ এপ্রিল দিন ধার্য করেন।
উল্যেখ্য বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায় আদালতে হাজির হয়নি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া । কারাকর্তৃপক্ষ তার কাস্টডিতে বলেছে,বন্দি আদালতে হাজির হতে অনিচ্ছুক।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা যেসব কাগজপত্র জব্দ করেছেন আমরা সেগুলো এখনও হাতে পাইনি বলে জানান মাসুদ আহমেদ। তাছাড়া খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন, তিনিও আদালতে হাজির নাই। আসামি আমিনুল হক দেশের বাইরে চিকিৎসাধীন আছেন। তাই অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য সময় পেছানো হোক।’
এদিকে রাষ্ট্রপক্ষে দুদকের আইনজীবী মোশারফ হোসেন কাজল আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে ২৬ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির করতে প্রোডাকশন ওয়ারেন্ট দিয়েছেন। একইসঙ্গে অন্য আসামিদেরও আদালতে হাজির থাকার নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি থেকে কয়লা উত্তোলন, ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণে ঠিকাদার নিয়োগে অনিয়ম এবং রাষ্ট্রের ১৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা ক্ষতি ও আত্মসাতের অভিযোগে ২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি শাহবাগ থানায় এই মামলা করা হয়।
উক্ত মামলায় খালেদা জিয়া ছাড়া অপর আসামিরা হলেন সাবেক অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমান (মৃত), সাবেক স্থানীয় সরকার, পল্লি উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী আবদুল মান্নান ভূঁইয়া (মৃত), সাবেক শিল্পমন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামী (মৃত), সাবেক সমাজকল্যাণমন্ত্রী আলী আহসান মো. মুজাহিদ (মৃত), এম কে আনোয়ার (মৃত), এম শামসুল ইসলাম (মৃত),ড.খন্দকার মোশাররফ হোসেন,আলতাফ হোসেন চৌধুরী,ব্যারিস্টার আমিনুল হক, এ কে এম মোশাররফ হোসেন, জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব নজরুল ইসলাম, পেট্রোবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান এস আর ওসমানী, পেট্রোবাংলার সাবেক পরিচালক মঈনুল আহসান, বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক সিরাজুল ইসলাম ও খনির কাজ পাওয়া কোম্পানির স্থানীয় এজেন্ট হোসাফ গ্রুপের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন।

কোন জরিমানা নয়, আচরণবিধি ভাঙলে সোজা জেলখানা

Now Reading
কোন জরিমানা নয়, আচরণবিধি ভাঙলে সোজা জেলখানা

কুষ্টিয়া জেলায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেওয়া প্রার্থীদের প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে প্রার্থীদের সঙ্গে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে এক মতবিনিময় সভায় প্রশাসনের কর্মকর্তারা হুঁশিয়ারি দিয়ে বললেন, আগে কী হয়েছে ভুলে যান। অবাধ সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে ২৪ মার্চ। প্রতিনিয়ত অভিযোগ আসছে। কে কোন দল করেন, তা দেখা হবে না বলে মন্তব্য করেন প্রশাসন কর্মকর্তারা। কর্মকর্তারা আরো বলেন কোন জরিমান নয়, আচরণবিধি ভাঙলে সোজা জেলখানা। ভোটের দিন কোন কিছু টলারেন্স করা হবে না। এমনকি কাউকে খাতির করা হবে না বলেও জানান কর্মকর্তারা।

মতবিনিময় সভায় পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজাদ জাহান ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আরিফুল হক উপস্থিত ছিলেন। উক্ত সভার সভাপতিত্ব করেছেন জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন। এ ছাড়া ছয়টি উপজেলায় চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
জেলা প্রশাসক সভার শুরুতেই প্রার্থীদের বক্তব্য শোনেন। বিভিন্ন উপজেলার ১৭ জন প্রার্থী সংক্ষিপ্তভাবে কথা বলেন। তাঁরা সবাই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও তাঁদের কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে ধরেন। অভিযোগকারী বেশির ভাগই ছিলেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী। একজন নৌকার প্রার্থীও স্বতন্ত্র প্রার্থীর বিরুদ্ধে হুমকি-ধমকি দেওয়ার অভিযোগ করেন।
অভিযোগের ফিরিস্তি শোনার পর , ছয় উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি অভিযোগ পাওয়া গেছে দৌলতপুর থেকে বলে মন্তব্য করেন সদর, মিরপুর ও দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আজাদ জাহান বলেন। এখন থেকে সাবধান হয়ে যান, অভিযোগ প্রমাণিত হলে কোনো জরিমানা নয়, সোজা জেলখানা।’
এলাকার মানুষ এখনো শঙ্কিত, তাঁদের মনে আতঙ্ক বিরাজ করছে, তাঁরা কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারবে কি না বলে জানালেন এক ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী। তিনি আরো বলেন কেন্দ্রে কোনো গোপন বুথ থাকবে কি না। এটার নিশ্চয়তা দিতে হবে, তাহলেই মানুষ কেন্দ্রে যাবে। প্রশাসন যদি নিরপেক্ষ না থাকে, তাহলে তাদের অভিশাপ দিয়ে যাচ্ছি বলে মন্তব্য করলেন আরেক প্রার্থী।’
পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত বলেন, ‘দৌলতপুর, মিরপুর ও ভেড়ামারার প্রার্থীরা সাবধান হয়ে যান। বেশি ঝামেলা করবেন না। বড় বড় নেতাদের বড় বড় কথা। প্রভাব খাটাবেন না। ওয়াদা করছি, আমি এসপি নির্বাচনে কোনো ঝামেলা হতে দেব না।’
এসপি নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা আপনাকে নৌকা দিয়েছে। সরকারপ্রধান আমাকে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন করতে বলেছেন।’
আগে কী হয়েছে ভুলে যান বলে জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন বলেন রাষ্ট্র যদি মনে করে এটা হবে তবে সেটাই হবে। কে কোন দল করেন সেটা দেখা হবে না। ভোটের দিন জিরো টলারেন্স। কারও পরিচয় দেখা হবে না। ২৪ মার্চের নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠ হবে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন। সভা শেষে বিকেলে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার আলাদাভাবে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ছয় উপজেলার ইউএনও এবং ওসিদের সঙ্গে বৈঠক করেন এবং সেখানেও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের মাঠে কঠোর থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

১৩৩টি ভবনের পরিষেবা বিচ্ছিন্ন করা হলো ১১ দিনে

Now Reading
১৩৩টি ভবনের পরিষেবা বিচ্ছিন্ন করা হলো ১১ দিনে

টাস্কফোর্সের রাসায়নিক গুদাম উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত আছে। পুরান ঢাকার চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ আগুনের পর এই গুদাম উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত আছে। পাঁচটি ভবনের পরিষেবা (গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির লাইন) বিচ্ছিন্ন করা হয় গতকাল মঙ্গলবার অভিযানে । এই বিচ্ছিন্ন অভিযানে এ নিয়ে ১৩৩টি ভবনের পরিষেবা বিচ্ছিন্ন করা হলো গত ১১ দিনে।
এদিকে গতকাল দুপুরে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করেপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহম্মদ সাঈদ খোকন ফের পুরান ঢাকার কেমিক্যাল ও প্লাস্টিক কারখানার মালিক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময় ও আলোচনাসভা করেছেন। টাস্কফোর্স সূত্রে জানা যায় গতকাল ডিএসসিসির টাস্কফোর্সের চারটি টিম চারটি এলাকায় কেমিক্যালের গুদামে অভিযান চালায়। এলাকাগুলো হলো চকবাজার, বকশীবাজার, হাজারীবাগ ও লালবাগ।
টাস্কফোর্সের অভিযানে এ পর্যন্ত ১১ দিনে মোট ১৩৩টি ভবনের পরিষেবা বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডিএসসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা উত্তম কুমার রায়। নির্দেশনা মানায় নতুন করে পরিষেবা সংযোগ স্থাপন করা হয়েছে ১৬টির। এ ছাড়াও এক লাখ টাকা জরিমানা ও একজনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।
মেয়র সাঈদ খোকন ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বললেন চুড়িহাট্টা ও নিমতলীর মতো দুর্ঘটনা রোধকল্পে জানমালের নিরাপত্তা রক্ষায় নিজ নিজ কারখানা ও গুদামে পানি, বালু, অগ্নিনির্বাপণব্যবস্থা বাধ্যতামূলকভাবে রাখার জন্য। গতকাল টাস্কফোর্সের অভিযান নিয়ে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময়সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাখতে গিয়ে ইসলামবাগ ঈদগাহ মাঠে তিনি এ কথা বলেন। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মাধ্যমে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। তবে প্লাস্টিকের দানা ও চিপস, পিভিসি (পলিভিনাইল ক্লোরাইড) রিসাইকেল প্লাস্টিক চিপস, টেক্সটাইল পিগমেন্ট, বিভিন্ন মেটালিক অক্সাইড ইত্যাদি অতিমাত্রায় দাহ্য ও বিপজ্জনক পদার্থ তালিকাভুক্ত নয় বিধায় এসব প্রতিষ্ঠানকে টাস্কফোর্সের অভিযানের আওতাবহির্ভূত ঘোষণা করার কথা জানান মেয়র। কোনো কারখানা ও গুদামে জানমালের নিরাপত্তার জন্য বিপজ্জনক এমন দাহ্য পদার্থ পাওয়া গেলে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।
উক্ত আলোচনাসভায় উপস্থিত ছিলেন ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান ও বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা। আলোচনাসভায় অন্যদের মধ্যে সভাপতিত্ব করেছেন স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজি মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবুল।

বঙ্গবন্ধুর রক্ত এবং আদর্শের সাথে বেঈমানী করো না: সিদ্দিকী নাজমুল আলম

Now Reading
বঙ্গবন্ধুর রক্ত এবং আদর্শের সাথে বেঈমানী করো না: সিদ্দিকী নাজমুল আলম

কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুর ১১ হাজার ৬২ ভোট পেয়ে সহ-সভাপতি (ভিপি) নির্বাচিত হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে। অন্যদিকে ৯ হাজার ১২৯ ভোট পেয়ে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছাত্রলীগ সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছেন রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন।

এদিকে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী জয়লাভ করেছেন সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে। এছাড়া সহ-সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) নির্বাচিত হয়েছেন ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইন।

পুনঃনির্বাচনের দাবি জানিয়েছে ছাত্রলীগ ভিপি নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে। যদিও তাদের এই দাবি সরাসরি নাকচ করে দেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে নির্বাচনের পর থেকে উত্তপ্ত ঢাবি ক্যাম্পাস। এর মধ্যেই ডাকসু নির্বাচনে জয়ী ছাত্রলীগ নেতাদের শপথ নিতে মানা করেছেন সংগঠনটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম।

তিনি তার ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে ছাত্রলীগ নেতাদের জানান যে, হতে পারে শোভনকে তুমি কম পছন্দ করো কিন্তু শোভন কিন্তু ছাত্রলীগের চেয়ার এবং তোমাদের মিছিলের সাথী। ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে ডাকসুতে নির্বাচিতদের বলবো জামায়াত-শিবির সাথে নিয়ে ছাত্রসংসদের শপথ নিও না। প্রয়োজন হলে ২৮ বছর না আরও ২৮০ বছর ডাকসু বন্ধ থাকুক। প্রাণের ক্যাম্পাসের নেতৃত্ব ওই সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর হাতে থাকবে এটা হতে পারে না। বঙ্গবন্ধুর রক্ত এবং আদর্শের সাথে বেঈমানী করো না

গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে দিবাগত রাত ৩টা ১৭ মিনিটে ফলাফল ঘোষণা শুরু করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।
দীর্ঘ ২৮ বছর পর অনুষ্ঠিত হওয়া এ নির্বাচনে ২৫তম ভিপি হিসেবে ডাকসুর গৌরবমাখা ইতিহাসের অংশ হলেন নুরুল হক নুর। স্বাধীন বাংলাদেশে এ পর্যন্ত মোট সাতবার অনুষ্ঠিত হয়েছে ডাকসু নির্বাচন। সবশেষ ডাকসু নির্বাচন হয় ১৯৯০ সালে।

অবশেষে সভাপতি বরণ করে নিলেন সহসভাপতি নূরকে, আলিঙ্গন করলেন পরস্পর

Now Reading
অবশেষে সভাপতি বরণ করে নিলেন সহসভাপতি নূরকে, আলিঙ্গন করলেন পরস্পর

ছাত্রলীগ মনোনীত ভিপি প্রার্থী কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজোয়ানুল হক চৌধুরী শোভন বরণ করে নিলেন ডাকসু নির্বাচনে ভিপি (সহ-সভাপতি) পদে বিজয়ী বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক নুরুল হক নূরকে। রেজোয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও নুরুল হক নূর পরস্পর আলিঙ্গন করেন আজ মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে।

এর আগে আজ মঙ্গলবার দুপুরে ভিসি চত্ত্বরে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ফলাফল মেনে নেওয়ার আহ্বান জানান শোভন। নেতাকর্মীদের শান্ত করতে এসে তিনি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের এ ঘোষনা দেন।

বাংলাদেশ ১৬ কোটি মানুষ সবাইকে আমাদের দেখে রাখতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। তিনি আরো বলেন কাউকে পর করে দিলে হবে না। ছাত্রলীগের কর্মীদের মন অনেক বড়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ ঠিক রাখতে সবাইকে একসাথে নিয়ে কাজ করতে চাই বলে তিনি জানিয়েছেন এবং সেই সাথে নূরও আমাদের সাথে থাকবে।

হিরো আলমের জন্য জামিন চাইলেও নামঞ্জুর করে দিলো আদালত।

Now Reading
হিরো আলমের জন্য জামিন চাইলেও নামঞ্জুর করে দিলো আদালত।

যৌতুক না পেয়ে হিরো আলম গত ৫ মার্চ সন্ধ্যায় তার স্ত্রী সাবিয়া আক্তার সুমিকে মারপিট করেন। পরদিন হিরো আলমের শশুর সদর থানায় হিরো আলমের বিরুদ্ধে মামলা করলে পুলিশ তাকে থানায় ডেকে গ্রেফতার করে। এরপর থেকে হিরো আলম বগুড়া কারাগারে রয়েছেন। নিরাপত্তার স্বার্থে তাকে সেলে রাখা হয়েছে।
জেলা ও দায়রা জজ আদালতেও জামিন পাননি, বগুড়ায় যৌতুকের দাবীতে স্ত্রী নির্যাতন মামলায় গ্রেফতার ও কারারুদ্ধ আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলম।

সোমবার বিকালে তার পক্ষে জেলা ও দায়রা জজ নরেশ চন্দ্র সরকার শুনানি শেষে নামঞ্জুর করেন। যদিও বগুড়া বার সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট একেএম সাইফুল ইসলাম জামিন চেয়েছিলেন ।
জানা গেছে, বগুড়া সদরের এরুলিয়া গ্রামের মৃত আহম্মদের ছেলে হিরো আলম পেশায় ক্যাবল অপারেটর বা ডিশ ব্যবসায়ী। পরবর্তীতে মিউজিক ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেন। গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছিলেন। নির্বাচন বর্জন করেন। তার এ প্রার্থিতা নিয়ে দেশজুড়ে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা হয়।
যৌতুক না পেয়ে হিরো আলম গত ৫ মার্চ সন্ধ্যায় তার স্ত্রী সাবিয়া আক্তার সুমিকে মারপিট করেন বলে জানান পুলিশ। ৭ মার্চ বগুড়ার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির কর হয় হিরো আলমকে । তার পক্ষে অ্যাডভোকেট মাসুদুর রহমান স্বপন জামিন চাইলে শুনানি শেষে বিচারক আহম্মেদ শাহরিয়ার তারিক জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

পুননির্বাচনের দাবী সরাসরি নাকচ করে দিলেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ

Now Reading
পুননির্বাচনের দাবী সরাসরি নাকচ করে দিলেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ

নানা অভিযোগ এবং অধিকাংশ প্যানেলের প্রার্থীদের বর্জনের মধ্যে দিয়ে গতকাল সোমবার শেষ হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ-ডাকসু ও হল সংসদগুলোর দীর্ঘ প্রতীক্ষিত নির্বাচন। ডাকসু নির্বাচনে অংশ নেওয়া পার্থীরা অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ এনে পুনঃভোটের দাবি জানালেও সরাসরি নাকচ করে দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
নির্বাচন হয়ে গেছে, ফলাফলও ঘোষণা করা হয়েছে বলে মঙ্গলবার দুপুরে সাংবাদিকদের জানালেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান। তিনি আরো বলেন আমাদের গণতান্ত্রিক রীতিনীতি ও ডাকসুর গঠনতন্ত্র- এগুলো নিয়ে চলতে হবে।
নির্বাচন নতুন করে হওয়ার কোনো সুযোগ আর নেই বলে সরাসরি নাকচ করে দিয়েছেন আর উপ উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ।
অনিয়মের নানা অভিযোগ এবং অধিকাংশ প্যানেলের প্রার্থীদের বর্জনের মধ্যে দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ-ডাকসু ও হল সংসদগুলোর দীর্ঘ প্রতীক্ষিত নির্বাচন সোমবার শেষ হয় ।
এদিকে পুননির্বাচনের দাবি জানায় ছাত্রদল, বাম জোট, কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্ল্যাটফর্ম সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদ এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীদের দুটি প্যানেল ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়ে ।
রাতে ফল ঘোষণার পর দেখা যায়, ডাকসুতে সবগুলো পদেই জয়ী হয়েছেন সরকার সমর্থক সংগঠন ছাত্রলীগের প্রার্থীরা, শুধুমাত্র ভিপি ও সমাজসেবা সম্পাদক ছাড়া । অন্যদিকে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের মোর্চা বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্রার্থী নূরুল হক নূর ভিপি পদে নির্বাচিত হয়েছেন ।
মঙ্গলবার সকাল থেকে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাভিপি পদে পরাজয় মানতে না পেরে ।
অনেক বড় জালিয়াতি হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ছাত্রলীগ নেতা কর্মীরা। তারা বলেন অনেক জালিয়াতি করে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের নেতা নূরুল হক নূরকে ভিপি পদে জয়ী হয়েছেন। তাই তারা উক্ত পদে পুননির্বাচনের দাবি জানাচ্ছেন। কিন্ত তাদের এই দাবি সরাসরি নাকচ করা হয়।
অন্যদিকে বাম জোট, সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের জোটও ক্যাম্পাসে আলাদাভাবে মিছিল সমাবেশ করছে। তাদের ডাকে মঙ্গলবার সকাল থেকে ক্লাস বর্জন কর্মসূচি চলছে বিশ্ববিদ্যালয়ে।
ভোট চলাকালে বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হলে বস্তাভর্তি ব্যালট এবং রোকেয়া হলে ট্রাংক ভর্তি ব্যালট পাওয়ার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে উপ উপাচার্য অধ্যাপক সামাদ মঙ্গলবার নিজের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, “দুটি হলের একটিতে অনিয়মের প্রমাণ পেয়ে আমরা তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়েছি। তবে অপর একটি হলে (রোকেয়া হলে) যা হয়েছে, সেটি ছিল হাঙ্গামা। সেখানে কোনো অনিয়ম হয়নি।”
মুহাম্মদ সামাদের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি ‘তথ্যানুসন্ধান দল’ গঠন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলার অভিযোগ তদন্তে। অল্প কিছু দিনের মধ্যে’ তাদের তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেবে এই তদন্ত দল বলে মন্তব্য করেন মুহাম্মদ সামাদ।
অপটিক্যাল মার্ক রিকগনিশন (ওএমআর) মেশিনে ভোট গণণা হয়েছে। গতকাল কোটা আন্দোলনকারীদের নেতা নুরুল হোসেন নূরুকে ‘পরিকল্পিতভাবে’ ভিপি পদে জিতিয়ে দেওয়ার অভিযোগের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে এ কথা বলেন অধ্যাপক সামাদ। তিনি আরো বলেন এখানে এই অভিযোগের কোনো সুযোগ নেই। তাছাড়া কোটা আন্দোলনের প্রায় সব দাবিই তো প্রধানমন্ত্রী মেনে নিয়েছেন। কোটা আন্দেলনের অবশিষ্ট আর কিছু নেই এখন যদিও কোটা আন্দোলনের কথা বলছে।

মাদ্রাসাশিক্ষার মাধ্যমে থেকে এই ভূখণ্ডে মুসলমানদের শিক্ষা শুরু হয়েছিল: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

Now Reading
মাদ্রাসাশিক্ষার মাধ্যমে থেকে এই ভূখণ্ডে মুসলমানদের শিক্ষা শুরু হয়েছিল: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

গতকাল (সোমবার) অনুষ্ঠিত হয় একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন। উক্ত অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মন্তব্য করে বলেন, কওমি মাদ্রাসা সনদের স্বীকৃতি নিয়ে আর কথা থাকা উচিৎ নয় বলে মনে করেন তিনি। তিনি আরো বলেন সরকার স্বীকৃতি দিয়ে কোন প্রকার অন্যায় বা ভুল করেনি। মাদ্রাসা জঙ্গিবাদসৃষ্টির কারখানা এই ধারনার সঙ্গেও একমত নন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্য ও রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনা করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।
মাদ্রাসাশিক্ষার মাধ্যমে থেকে এই ভূখণ্ডে মুসলমানদের শিক্ষা শুরু হয়েছিল বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চার থেকে পাঁচটা বোর্ড কওমি মাদ্রাসার ছেলেমেয়েদের পড়াত। প্রায় ২০ লাখ ছেলেমেয়ে সেখানে পড়াশোনা করে। অনেক এতিমরা স্থান পাচ্ছে, যাদের মা-বাবা নেই। মাদ্রাসা আছে বলেই তারা সেখানে স্থান পাচ্ছে বলে তিনি মনে করেন। পাচ্ছে খাওয়া দাওয়া এবং দৈনন্দিন সকল প্রকার সুযোগ সুবিধাও। সেক্ষেত্রে তাদের অস্বীকার করতে পারি না বলে মন্তব্য করেন তিনি।

কওমি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা দেশেরই সন্তান, দেশেরই মানুষ। তাদের কি ফেলে দেব? কারিকুলাম ঠিক করা, শিক্ষাটাকে মানসম্মত করা, চাকিরির সুযোগ করে দেওয়ার চেষ্টা করেছি। এই চিন্তা থেকেই তাদের সনদের স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। এটা কোন অন্যায় কাজ করিনি আমরা। জাতীয় সংসদে সনদের স্বীকৃতির যৌক্তিকতা তুলে ধরতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘কেউ কেউ বলবেন মাদ্রাসা হচ্ছে জঙ্গিবাদ সৃষ্টির কারখানা। কিন্তু আমি এটার সঙ্গে একমত নই। হোলি আর্টিজানে জড়িতরা ইংরেজি মাধ্যমে পড়াশোনা করা। উচ্চশিক্ষিত পরিবার ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া। কওমি মাদ্রাসার সনদের স্বীকৃতির আইন পাস হয়েছে সর্বসম্মতভাবে। এটা নিয়ে তো আর কথা থাকতে পারে না। এই বিষয়টি নিয়ে আর বোধ হয় প্রশ্ন আসবে না।’
এই অধিবেশনে এক সাংসদ সৌদি আরবের সঙ্গে সামরিক চুক্তির বিষয় উত্থাপন করেছিলেন। এরই জবাব দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তাদের বলব, এটা চুক্তি নয়, সমাঝোতা স্মারক-এমওইউ। এ ধরনের সমঝোতা স্মারক বহু দেশের সঙ্গে আছে। আমাদের প্রতিরক্ষা চুক্তিও অনেক দেশের সঙ্গে আছে। বামপন্থী রাজনীতি যাঁরা করতেন, যেসব দেশের আদর্শকে তাঁরা ধারণ করে চলতেন, সেসব দেশের সঙ্গেও এই চুক্তি আছে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এখন কিন্তু গ্লোবাল ভিলেজ—এটা মনে রাখতে হবে। আমাদের সশস্ত্র বাহিনী কেবল আমাদের দেশের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই, জাতিসংঘের অধীনে তারা বিশ্বের সংঘাতপূর্ণ দেশে শান্তিরক্ষা মিশনে কাজ করছে।’
সৌদি আরব এমওইউ হচ্ছে অবকাঠামো নির্মাণ, কারিগরি সহায়তা আর সৌদি আরবের স্থলসীমানার মধ্যে অবিস্ফোরিত মাইন অপসারণরে জন্য। এই মাইন অপসারণে বাংলাদেশ যথেষ্ট পারদর্শী। আমাদের সেনাবাহিনী কুয়েতে মাইন অপসারণে কাজ করছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘সৌদি আরবের সঙ্গে একটি বিষয় আমাদের সমঝোতা হয়েছে, তারা (সৌদি আরব) যদি কোনো দেশের সঙ্গে যুদ্ধ করে, সেই যুদ্ধে আমাদের সামরিক বাহিনী লিপ্ত হবে না। যুদ্ধে আমরা অংশগ্রহণ করব না। একমাত্র শান্তিরক্ষার ক্ষেত্রে জাতিসংঘের অধীনে যদি হয়, তখন আমরা যাব। আর আমাদের পবিত্র দুটি জায়গা মক্কা শরিফ ও মদিনা। এই মক্কা ও মদিনার নিরাপত্তা রক্ষার প্রয়োজন যদি হয়, তাহলে সেখানে আমাদের সশস্ত্র বাহিনী দায়িত্ব পালন করবে।
মহাজোটগতভাবে ভোটে অংশ নেওয়ার পর আওয়ামী লীগের সঙ্গে সরকারেও থাকার কথা ছিল বলে মন্তব্য করেন বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের । কিন্তু বিরোধীদের বিপর্যয়ের কারণে সবচেয়ে ভালো বিকল্প হয়ে দাঁড়ায় বিরোধী দলের আসনে বসার। সরকারের সঙ্গে আলাপ–আলোচনার মাধ্যমেই তাঁরা বিরোধী দলের ভূমিকায় বসেছেন। তবে এই ভূমিকাকে পাতানো খেলার সঙ্গে তুলনা করছেন অনেকে। কথা উঠেছে এটি কৃত্রিমভাবে তৈরি। এটি মেকি বিরোধী দল। কিন্তু এটা ঠিক নয়। বিরোধী দলের সদস্যসংখ্যা বেশি হলে বেশি হইচই হতো। কিন্তু সংসদের কোনো সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা সম্ভব নয়। ১৯৯০ সালের পর প্রতিটি সংসদেই সরকারি দল যা চেয়েছে, তা হয়েছে। এ জন্য বিরোধী দল সংসদে থাকতে পারেনি। এ অবস্থায় তিনি সংসদ প্রাণবন্ত করতে যথেষ্ট সময় ও সুযোগ চেয়েছেন। তিনি বলেন, সমালোচনাকে শত্রুতা মনে করলে হবে না। সহায়ক শক্তি হিসেবে মনে করতে হবে। শত্রু মনে করা যাবে না।
দেশে ঐকমত্যের প্রয়োজন। নতুবা দেশকে এগিয়ে নেওয়া যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ বলেন। দশম সংসদে আমরা সর্বাত্মক সাহায্য করেছি। আলোচনা, সমালোচনা ও সহযোগিতা করেছি। এতটা সুন্দরভাবে স্বাধীনতার পর সংসদ চলেনি। আমরা দেখেছি বিরোধী দল সরকারের কাজ বাধাগ্রস্ত করত। আমরা উন্নয়ন প্রকল্প এগিয়ে নেওয়ার জন্য সহযোগিতা করেছি। জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী এমনভাবে পালন করতে হবে, যাতে মাইলফলক হয়ে থাকে।
চাকরির বয়সসীমা ৩৫ বছর করা হলে মমতাময়ী মায়ের ভূমিকায় অবতীর্ণ হবেন প্রধানমন্ত্রী। এতগুলো রোহিঙ্গাকে জায়গা দিয়ে সেটা প্রমাণ করেছেন বলে জানান রওশন এরশাদ। মমতাময়ী মায়ের দৃষ্টি দিয়ে এটি দেখবেন এবং বাস্তবায়ন করবেন। চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা ৩০ ভাগ বহাল রাখার দাবি জানান তিনি।

দুর্নীতি ও মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা । তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ হবে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, মাদক ও দুর্নীতিমুক্ত দেশ। এবার জনগণ সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক, দুর্নীতির বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছে। মাথা থেকে যদি দুর্নীতি হয় এবং তা নিচ পর্যন্ত যায়, তাহলে তা নির্মূল করা কঠিন হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। কই, আমরা তো দুর্নীতি করতে আসিনি। আমাদের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাংক দুর্নীতির অভিযোগ এনেছিল। কিন্তু প্রমাণ করতে পারেনি। দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছি বলেই উন্নয়ন দৃশ্যমান হয়েছে।

উক্ত অধিবেশনে আরও বক্তৃতা রাখেন আওয়ামী লীগের সাংসদ আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি সহ অনেকে।

হুন্ডির টাকা পাচারের সময় আটক চার যুবক, উদ্ধার করা হল ১০ লক্ষ টাকা

Now Reading
হুন্ডির টাকা পাচারের সময় আটক চার যুবক, উদ্ধার করা হল ১০ লক্ষ টাকা

হুন্ডির টাকা পাচারের সময় ১০ লাখ টাকাসহ চার পাচারকারীকে আটক করেছে বিজিবি সদস্যরা। বেনাপোল-যশোর সড়কের আমড়াখালী বিজিবি চেকপোস্টে এ ঘটনা ঘটে। বরিশালের এম এম পরিবহন ও মোটরসাইকেল থেকে তাদেরকে আটক করা হয় আজ সোমবার দুপুর ২টার সময়। একই সময় জব্দ করা হয় একটি মোটরসাইকেলও। হুন্ডির টাকা গুলো পরিবহনে লুকায়িত ছিল। টাকা উদ্ধারের জন্য ব্যবহার করা হয় বিজিবি’র প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত কুকুরকে।

আটক পাচারকারীরা হলো বেনাপোল পোর্ট থানার বালুন্ডা গ্রামের মৃত ইনছার আলীর পুত্র সাহেব আলী (২৬), মাদারীপুর জেলার আদমপুর গ্রামের শামছুউদ্দিন ফকিরের পুত্র পলাশ (৩৫), বরিশাল জেলার কলস গ্রামের মন্টু লাল দাসের পুত্র শিপন দাস (৩৮) ও যশোরের শার্শা উপজেলার আমড়াখালী গ্রামের হযরত আলীর পুত্র মহিবুর রহমান (৩৫)।

বিজিবি‘র বেনাপোলের গোয়েন্দা বিএসবি‘র হাবিলদার রেজাউল ইসলামের নেতৃত্বে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমড়াখালী চেকপোস্ট থেকে বরিশালগামী এমএম পরিবহন থেকে দুইজনকে ও যশোরগামী একটি মোটরসাইকেল থেকে দুইজনকে আটক করে করে বলে জানিয়েছেন আমড়াখালি বিজিবি চেকপোস্টের ইনচার্জ নায়েব সুবেদার আব্দুল মালেক জানান। পরক্ষনে যথাক্রমে ছয় লাখ ও চার লাখ টাকা মোট বাংলাদেশি ১০ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয় আটককৃত চারজনের শরীরের তল্লাশি করে। এম এম পরিবহনের টাকা উদ্ধার করার ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কুকুরকে ব্যবহার করতে বাধ্য হয়েছেন বিজিবি।

উদ্ধারকৃত টাকা, মোটরসাইকেলসহ চার পাচারকারীর বিরুদ্ধে হুন্ডি পাচারের মামলা দিয়ে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেন যশোর ৪৯ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল সেলিম রেজা ।

Page Sidebar