বাংলাদেশের ১০ টি দর্শনীয় স্থান।

Now Reading
বাংলাদেশের ১০ টি দর্শনীয় স্থান।

বেশ কিছুদিন ধরে ভাবছেন দেশের বাইরে কোথাও ঘুরতে যাবেন। কিন্তু কোথায় যাবেন ঠিক করতে পারছেন না। এক্ষুণি বাইরে যাওয়ার চিন্তা মাথা থেকে ঝেরে ফেলুন। কারণ বাংলাদেশেই এমন অনেক দর্শনীয় স্থান আছে, যেখানে আপনি ঘুরে আসতে পারেন এই হেমন্ত ও শীত মৌসুমে। তাতে সময়ও বাচবে, খরচও হবে কম।
প্রতি বছর বিশ্বে বিভিন্ন যায়গা থেকে বাংলাদেশে ঘুরতে আসে লক্ষাধিক পর্যটক। নতুন সময়ের পাঠকদের সামনে তুলে ধরা হলো বাংলাদেশের সেরা ১০ টি দর্শনীয় স্থান।

১.কক্সবাজার: কক্সবাজার বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত একটি পর্যটন শহর। এটি চট্টগ্রাম বিভাগের কক্সবাজার জেলার অন্তর্গত। পাহাড় ঘেরা কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত বিশ্বের দীর্ঘতম অবিচ্ছিন্ন প্রাকৃতিক বালুময় সমুদ্র সৈকত। যা কক্সবাজার শহর থেকে বদরমোকাম পর্যন্ত একটানা ১২০ কি.মি. পর্যন্ত বিস্তৃত। ভ্রমন পিপাসুদের জন্য কক্সবাজার আদর্শ জায়গা।
কক্সবাজারে থাকার জন্য রয়েছে পাঁচ তারকা হাটেল। এছাড়াও শত শত আবাসিক হোটেল। দীর্ঘ এই সমুদ্র সৈকতে কাটিয়ে দিতে পারেন বেশ কিছু দিন।

২.সেন্টমার্টিন: সেন্ট মার্টিন হল বিশ্বের অন্যতম বড় প্রবাল দ্বীপ। অপুর্ব সুন্দর জায়গা সেন্টমার্টিন। সেন্টমার্টিন দ্বীপ ডাবের জন্য বিখ্যাত। আপনি সেন্টমার্টিনে পাবেন সুমিষ্ট ডাবের পানি আর শাস। আপনি ঢাকা থেকেই সেন্টমার্টিনের টিকিট ও হোটেল বুকিং করতে পারেন।

৩.রাঙ্গামাটি: প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরা পার্বত্য চট্টগ্রামের একটি জেলা রাঙ্গামাটি। কাপ্তাই লেকের বুকে ভেসে থাকা ছোট্ট এর জেলা শহর আর আশপাশে সর্বত্রই রয়েছে নানান বৈচিত্র। এখানকার জায়গাগুলো বছরের বিভিন্ন সময়ে ভিন্ন ভিন্ন রূপে সাজে। তবে বর্ষার সাজ একেবারেই অন্যরূপ। অবসরে তাই সেখান থেকে বেড়িয়ে আসতে পারেন।রাঙ্গামাটি ভ্রমণে সবার আগে দেখা উচিৎ জেলা শহরের উপজাতীয় জাদুঘর। পুরো জেলার কৃষ্টি, সংস্কৃতি আর ইতিহাস সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারণা মিলবে জাদুঘর থেকে। এটি খোলা থাকে সোম থেকে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত। শনি, রবি ও অন্যান্য সরকারি ছুটির দিনগুলোতে জাদুঘর বন্ধ থাকে। জাদুঘরে বড়দের প্রবেশ মূল্য পাঁচ টাকা ও ছোটদের দুই টাকা।
উপজাতীয় জাদুঘর থেকে কাছেই বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের তীর্থ স্থান রাজবন বিহার। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের নানান আচার অনুষ্ঠান দেখতে পাবেন এখানে। এছাড়াও আকাশ ছোয়া পাহাড়, লেক এবং ঝুলন্ত ব্রিজ আপনাকে মুগ্ধ করবে।

৪. খাগড়াছড়ি: সৃষ্টিকর্তা চমৎকার ভাবে সাজিয়েছে খাগড়াছড়িকে। স্বতন্ত্র করেছে বিভিন্ন অনন্য বৈশিষ্ট্যে। এখানে রয়েছে আকাশ-পাহাড়ের মিতালী, চেঙ্গী ও মাইনী উপত্যকার বিস্তীর্ণ সমতল ভূ-ভাগ ও উপজাতীয় সংস্কৃতির বৈচিত্রতা। যেদিকেই চোখ যায় শুধু সবুজ আর সবুজ।
প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে আর রহস্যময়তায় ঘেরা খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা প্রকৃতিপ্রেমী, অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় বা ভ্রমণবিলাসীদের জন্য আদর্শ স্থান। প্রকৃতির অনন্য সৌন্দর্য ছড়িয়ে আছে এ জেলার আনাচে-কানাচে।

৫. বান্দরবন: প্রকৃতির ঐশ্বর্য আর সুশোভিত কারুকার্যময় পার্বত্য জেলা বান্দরবন। বান্দরবন চট্টগ্রাম বৃহত্তম পার্বত্য জেলা। পার্বত্য নদী এখনো অবস্থিত। গভীর জঙ্গলে চাইলেই যেতে পারেন আপনি।

৬.চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম বাংলাদেশের বিভাগীয় শহর। চট্টগ্রামের বিখ্যাত জায়গা গুলোর মধ্যে রয়েছে ফয়েস লেক, সমুদ্র বন্দর এবং পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত।

৭. সুন্দরবন: সুন্দরবন পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রোভ বন। বাংলাদেশের দক্ষিনে খুলনা জেলায় এটি অবস্থিত। সুন্দর বন পৃথিবীর সবচেয়ে বড় বাঘ রয়েল বেঙ্গল টাইগার জন্য বিখ্যাত। তবে বাংলাদেশ সরকার ও স্থানীয় প্রসাশন এর উদ্দ্যেগে এইখানে অনেক পর্যটন স্পর্ট তৈরি করা হয়েছে।

৮. আহসান মঞ্জিল: বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার অন্যতম আকর্ষনীয় স্থান আহসান মঞ্জিল। ঢাকার বাসিন্দারা খব সহজেই ঘুরে আসতে পারেন ।

৯.পানাম সিটি: পানাম সিটি বাংলাদেশের পুরোন রাজধানী। কিন্তু এটি এখন শূন্য। এখানে কেই বসবাস করেনা। এখানে একটি সুন্দর মিউজিয়ামও রয়েছে।

১০.সিলেট: বাংলাদেশের যে কয়েকটি অঞ্চলে চা বাগান পরিলক্ষিত হয় তার মধ্যে সিলেট অন্যতম। সিলেটের চায়ের রঙ, স্বাদ এবং সুবাস অতুলনীয়। রূপ কন্যা হিসাবে সারাদেশে এক নামে পরিচিত সিলেটের জাফলং। খাসিয়া জৈন্তা পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত জাফলং প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপর্ব লীলাভূমি।

সিলেটে আরও রয়েছে উপমহাদেশের বিখ্যাত দরবেশ ও পীর হযরত শাহজালাল (র:) এর মাজার।
তবে আর দেরি কেন। ব্যাগ-প্যাক নিয়ে বেরিয়ে পড়ুন ঘর থেকে। আর ঘুরে আসুন বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থানগুলো।