৬০০ বোতল ফেন্সিডিল সহ আটক ট্রাক ড্রাইভার

Now Reading
৬০০ বোতল ফেন্সিডিল সহ আটক ট্রাক ড্রাইভার

মানিকগঞ্জ ঘিওর উপজেলা থানাধীন নদীর উত্তরপার পঞ্চরাস্তার মোড় এলাকা থেকে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন(র‌্যাব)-৪ এর একটি দল ৬০০ বোতল ফেন্সিডিল ভর্তি ট্রাক চালকসহ আটক করেছে। গতকাল বুধবার দুপুরে এই মাদকের চালন আটক করা হয়। জানা গেছে র‌্যাব-৪ ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার অতিঃ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আতিকুল হকের নেতৃত্বে আটক করা হয় ট্রাক চালককে।
সেসময় উক্ত ট্রাক থেকে ৩০০ বস্তা চাউলও উদ্ধার করা হয় বলে জানা গেছে। আর মাদকের সাথে আটক করা হয়। মোঃ জমির আলী (৩৭) নামের মাদক কারবারিকে। জানা যায় সাভারের যাদুরচর গ্রামের মৃত আব্দুল আলীর ছেলে মোঃ জমির আলী।
গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পেরেছেন, দিনাজপুর থেকে আসা পিরোজপুর ট-১১-০২৪২ নম্বরের একটি ট্রাকে করে বিপুল পরিমান মাদকের চালান আসছে বলে জানালেন র‌্যাব-৪ ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার অতিঃ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আতিকুল হক। এ তথ্য পাওয়ার পর তার নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি টিম ওত পেতে ছিল সেখানে। এবং অবশেষে সক্ষম হয় এই বিপুল পরিমান মাদকের চালান আটক করতে।
র‌্যাব এলিট ফোর্স হিসেবে আত্মপ্রকাশের সূচনালগ্ন থেকেই বিভিন্ন ধরনের অপরাধ নির্মূলের লক্ষ্যে অত্যন্ত আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে আসছে বলে মন্তব্য করলেন র‌্যাব-৪ ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার। তিনি আরো বলেন খুন, ডাকাতি, দস্যুতা, ধর্ষণ, অপহরণ, চাঁদাবাজি, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও সন্ত্রাসী গ্রেফতার এবং জঙ্গীবাদের মত ঘৃণ্যতম অপরাধ নির্মূল ও রহস্য উৎঘাটনের পাশাপাশি মাদক দ্রব্য উদ্ধার, মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতারসহ নেশার মরণ ছোবল থেকে তরুন সমাজকে রক্ষা করার জন্য র‌্যাবের জোড়ালো তৎপরতা অব্যাহত আছে। র‌্যাবের ওই কর্মকর্তা আরো জানান মাদক আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে আটক জমির আলীর বিরুদ্ধে।
দিনাজপুর জেলার সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় এই ফেন্সিডিল আমদানী করে মানিকগঞ্জসহ সাভার ও আশুলিয়ার বিভিন্ন জায়গায় খুচরা বিক্রেতার নিকট বিক্রয় করে থাকেন বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন আটক হওয়া মাদক কারবারি মোঃ জমির আলী।

আটক হলেন তিন মাদক ব্যবসায়ী

Now Reading
আটক হলেন তিন মাদক ব্যবসায়ী

গাঁজাসহ আটক হয়েছেন তিন ব্যক্তি। রাজবাড়ির গোয়ালন্দে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের হাতে আটক হন এই তিন ব্যক্তি। আটক তিন ব্যক্তিকে গতকাল মঙ্গলবার বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গোয়ালন্দের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী হাকিম মো. আবদুল্লাহ আল-মামুন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা হলেন গোয়ালন্দ পৌরসভার পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের জুড়ান মোল্লার পাড়ার আবুল কাসেম শেখ (৪২), একই ওয়ার্ডের ক্ষুদিরাম সরকার পাড়ার সুরেশ বিশ্বাস (৫০) এবং উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের শামসু মাস্টার পাড়ার আজাদ খান (৫০)।

গতকাল বিকেল পাঁচটার দিকে একটি দল দৌলতদিয়া ফেরি ঘাট এলাকা থেকে ২৭ পুরিয়া গাঁজাসহ আবুল কাসেম শেখ, আজাদ খান ও সুরেশ বিশ্বাসকে গ্রেপ্তার করে, রাজবাড়ী জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক তানভির হোসেন খানের নেতৃত্বে জানালেন ভ্রাম্যমাণ আদালত । তাঁরা দীর্ঘদিন ধরে গাঁজাসহ বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্যের ব্যবসা করে আসছিলেন বলে জানা যায়। তাদের আটক করা হয় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে । রাতেই তাদের সহকারী কমিশনারের (ভূমি) কার্যালয়ে হাজির করা হয় এবং রাতেই তাদের রাজবাড়ী জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে এ সময় তাঁরা তাদের অপরাধ স্বীকার করায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আবদুল্লাহ আল-মামুন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে আবুল কাসেম শেখ ও আজাদ খানকে এক বছর করে এবং সুরেশ বিশ্বাসকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

Page Sidebar