পিকআপের ধাক্কায় মিরসরাইয়ের এক বিদ্যালয়য়ের শিক্ষিকা নিহত

Now Reading
পিকআপের ধাক্কায় মিরসরাইয়ের এক বিদ্যালয়য়ের শিক্ষিকা নিহত

এক স্কুল শিক্ষিকা নিহত হয়েছেন মিরসরাইয়ে বেপরোয়া গতির পিকআপের ধাক্কায়। নিহত স্কুল শিক্ষিকার নাম মোসাম্মৎ রহিমা আক্তার। মোসাম্মৎ রহিমা আক্তার উপজেলার আবুরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিষয়ের শিক্ষিকা ছিলেন। বুধবার সন্ধ্যায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চিনকী আস্তানা চট্টগ্রাম শহর এলাকায় থেকে ট্রেনিং শেষ করে বাড়ি যাওয়ার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
রহিমা আক্তার আবুরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন বলে জানান আবুরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আবদুল্লাহ খান । তিনি বিজ্ঞান বিভাগের ক্লাশ নিতেন। বুধবার টিসিজি (বিজ্ঞান) বিষয়ে ৬দিনের প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশগ্রহণের জন্য চট্টগ্রামের আগ্রাবাদের কলকাকলী উচ্চ বিদ্যালয়ে যান। প্রতিদিন সকালে গিয়ে প্রশিক্ষণ ক্লাশ শেষে আবার সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরে আসেন। আগামী শনিবার (১৬ মার্চ) কোর্স শেষ হওয়ার কথা ছিল।

বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার চিনকী আস্তানা স্টেশনে ট্রেন থেকে নেমে বাড়ি যাওয়ার জন্য ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক পার হতে গিয়ে বেপরোয়া গতির একটি পিকআপের ধাক্কায় ঘটনাস্থলে মারাত্মক আহত হন রহিমা আক্তার, জানালেন প্রধান শিক্ষক মোঃ আবদুল্লাহ খান। দুর্ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে রহিমা আক্তারকে বারইয়ারহাট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় নিহতের জানাযা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

রহিমা আক্তার টিসিজি বিজ্ঞান বিষয়ে প্রশিক্ষণ শেষে চট্টগ্রাম শহর থেকে গ্রামের বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনার শিকার হন বলে মন্তব্য করেন নিহতের মামা কামরুল হুদা। রহিমা বেগম এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জননী ছিলেন বলেও জানান তিনি। উপজেলার ৬ নম্বর ইছাখালী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের জয়নগর গ্রামের ব্যবসায়ী নাদেরুজ্জামান প্রকাশ নাদু সওদাগরের স্ত্রী।