সূর্য উদয়ের দেশ কুয়াকাটা – কুয়াকাটা ভ্রমণ

Now Reading
সূর্য উদয়ের দেশ কুয়াকাটা – কুয়াকাটা ভ্রমণ

সাগর কন্যা কুয়াকাটা . সূর্য্যস্থ ও সূর্য উদয় এর দেশ কুয়াকাটা . এ যেন এক অপরূপ দৃশ . আসলে আমাদের দেশ ছবি তে আঁকা রং তুলির এক বাংলাদেশ

বাংলাদেশের পরতে পরতে যেন ভালোবাসা মিশে আছে . চলুন আজ আপনাকে নিয়ে ঘুরে আসি কয়েকটা থেকে .

সমুদ্রের পাশে একটি ছবিতে আঁকা দেশ , যার আমি সাগর কন্যা . না ভাই আপনি ভুল পড়েন নি আসলে সে সাগর কন্যা . সাগরের সুন্দর্য যেন সব এই খানে এসে জমা হয়েছে .

আপনি ঢাকা থেকে দুইটি উপায়ে কুয়াকাটা যেতে পারেন ,

বাস যোগে যেতে পারেন . আপনি সায়দাবাদ অথবা গাবতলী টার্মিনাল থেকে যেতে পারেন , কুয়াকাটা , কনক , সাকুরা এই সবগুলো বাস কুয়াকাটা হয়ে যায় . যদি আপনি এসি বাসে যান তাহলে আপনার ভাড়া পর্বে ১১০০ থেকে ১৩০০ টাকার মধ্যে . আর আপনি যদি নন এসি বাসে যান তাহলে আপনার খরচ পর্বে ৫৫০ থেকে ৬৫০ টাকার মধ্যে . আমি বলবো আপনি বাসে গেলে সায়দাবাদ থেকে যেতে . এই খান থেকে আপনার ভাড়া কিছুটা কম পর্বে . প্রায় ৭ থেকে ৮ ঘন্টা জার্নি করে আপনি পৌঁছে যাবেন সাগর কন্যার দেশে .

২য় উপায় হলো আপনি লঞ্চে যেতে পারবেন . যারা ভ্রমণ টাকে আর রোমাঞ্চকর করতে চান , ভালোমতো উপভোগ করতে চান তারা লঞ্চে করে যেতে পারেন , আপনি যেইখানে ই থাকেন না কেন প্রথমে আপনাকে আস্তে হবে সদরঘাট লঞ্চ ঘটে . সেখান থেকে আসে আপনি টিকিট কাটতে পারেন / আপনি ঢাকা টু পটুয়াখালী এর টিকিট কেটে সোজা লঞ্চে গিয়ে বসে যান . ভাড়া নিবে ডেক ২৫০ টাকা থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে . আর আপনি যদি কেবিনে করে যেতে চান তাহলে ভাড়া নিবে ১০০০ টাকা থেকে ২০০০ টাকার মধ্যে . আপনি লঞ্চে খাবার এর সুবিধা পাবেন . লঞ্চে করে গেলে আপনার যাত্রা শুরু হবে সন্ধা ৫ টা থেকে ৬ টার মধ্যে . আর পৌছেবেন পরের দিন ভোরে . লঞ্চে সবচে বড় সুবিধা হলো আপনি আসে পাশের পরিবেশটা খুব ভালোভাবে উপভোগ করতে পারবেন , আর শীতের রাতে পূর্ণিমা হলে তো কোথায়ই নেই . আপনার জার্নিটাকে পুরো মধুর করে তুলবে , যখন লঞ্চ পটুয়াখালী আসে পড়বেন তখন আসে পাশেরটি থেকে হালকা নাস্তা করে উঠে পড়ুন ইজি বাইকে .ভাড়া নিবে ১৫ টাকা , বলবেন আপনি কেন্দ্রীয় বাসটার্মিনাল যেতে চান. তারা আপনাকে সেখানে নামিয়ে দিবেন. নেমে আপনি দেখবেন অসংখ্য বাস কুয়াকাটা যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছে , আপনি যেকোনো একটি বাসে উঠে পড়ুন ভাড়া নিবে ৭০ টাকার মধ্যে / সময় লাগবে ১.৫ ঘন্টা থেকে ২ ঘন্টার মধ্যে .

আপনি এই দুই উপায় ছাড়া আরো কিছু উপায় আছে সেগুলোতে গেলে আপনার যেমন টাকার পরিমান ও বাড়বে তার সাথে জার্নি এর সময় ও বাড়বে .

বাস থেকে নেমে পড়ুন হোটেলের খোঁজে . কুয়াকাটা তে সব ই তিন তারকা মানের হোটেল
কুয়াকাটা গ্রান্ড এবং নিলাঞ্জনা বেষ্ট তবে পর্যটন এর হোটেল গুল অনেক সস্তা ও ভাল মানের,. আপনি যদি অফ সিজনে যান তাহলে হোটেল ভাড়া কম পড়বে .আপনি ৭০০ টাকা থেকে ২০০০ টাকার মধ্যে রুম পাবেন . আর যদি সিজনে যান তাহলে আপনার খরচ যেমন বাড়বে তার সাথে আপনাকে ঢাকা থেকে অগ্রিম বুকিং দিয়ে যেতে হবে . তখন আপনার খরচ পড়বে ১৫০০ টাকা থেকে ৪০০০ টাকার মতো .

মাছের দেশ হিসেবেও কুয়াকাটার বেশ নাম ডাক আছে . আপনি হোটেল থেকে নেমে আসে পাশে ঘুরে দেখতে পারেন , সাথে কিছু মাছ কিনতে পারেন লোকাল বাজার বা জেলেদের কাছ থেকে . খুবই কম দামে মাছ পাবেন. আপনি যেই হোটেলে উঠবেন সেখানে রান্নার বেবস্থা থাকলে তাদের কিছু টাকা দিলে তারা আপনাকে রান্না করে দিবে , আপনি যদি বাসমতি চাল দিয়ে সেই টাটকা মাছ খান তাহলে আপনার জার্নি কিছু টা কমে যাবে . সেই সাথে সেখানে আপনার জন্য দোকান সাজিয়ে বসে আছে হরেক রকমে শুঁটকি . আপনি যদি শুঁটকি প্রিয় হয়ে থাকেন তাহলে ঢাকায় আসার পথে কিছু শুঁটকি কিনে নিয়ে আসতে পারেন . মাছের মতো শুঁটকি এর দাম ও কম .

আমি সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠে যান . বাহিরে গিয়ে আপনি দেখতে পাবেন এক উপরুপ দৃশ .. সূর্য উদয় দেখে আপনার মনে হবে সূর্য যেন পানির নিচ্ থেকে উপরে উঠছে . সূর্য উদয় দেখা শেষে আপনি চলে যেতে পারেন লাল কাঁকড়া এর বীচে মানে গংগামতি . সেখানে আপনি দেখতে পাবেন লাল কাঁকড়া এর ঝাঁক . বিকেলে চলে যেতে পারেন বড় মন্দির . অনেক পুরাতন এর মন্দির দেখে আপনার চোখ জুড়িয়ে যাবে , আপনি ইচ্ছে করলে আপনার ট্যুর টাকে আরো দীর্ঘায়ত করতে পারেন আসে পাশের পর্যটক স্থান ঘুরে . আপনি চলে যেতে পারেন পান বাগান . আপনি ইচ্ছে করলে সম্পূন ট্যুর ২ থেকে ৩ দিনের মধ্যে করে ফেলতে পারেন মাত্র ২০০০ থেকে ৩০০০ হাজার টাকার মধ্যে .যদি আপনি বাসে যান তাহলে .

আর আপনি যদি লঞ্চে করে যেতে চান তাহলে সেই খরচ আরো কমে যাবে আপনি ৩ দিনের খরচ ২৫০০ টাকার মধ্যে শেষ করতে পারবেন .

লঞ্চ ডেক ভাড়া আসা যাওয়া সহ পড়বে ৫০০ টাকা

আপনি দুই দিন দুই রাত হোটেলে থাকলে পড়বে ১২০০ টাকা

৩ দিনের খাবার যাওয়ার দিন থেকে ৬০০ টাকা

আর পটুয়াখালী থেকে বাস ভাড়া আসা যাওয়া পড়বে ১৪০ টাকা

সর্ব মোট খরচ ২৪৪০ টাকা . লাল কাঁকড়া বিচ প্লাস মন্দির বা অন্যান্য যে সব জায়গা তার টাকা ধরা হয়নি ঐটা আপনি নিজের ইচ্ছা উপর নির্ভর করতে কোথায় যাবেন আর কেমন টাকা খরচ করবেন

আশা করি ভালো একটা ট্যুর দিতে পারবেন