ভিডিও কনফারেন্সে দলের নেতাদের সাথে বৈঠক করলেন তারেক রহমান

Now Reading
ভিডিও কনফারেন্সে দলের নেতাদের সাথে বৈঠক করলেন তারেক রহমান

স্কাইপিতে যুক্ত হন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে স্কাইপিতে যোগ দিয়েছেন তারেক রহমান । দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের বক্তব্য মনোযোগসহ শুনেছেন তারেক রহমান। পরে তিনি নিজের মত দিয়েছেন। সংকটময় মুহূর্তে নেতাদের করণীয় সম্পর্কে দিকনির্দেশনা দিয়েছেন তিনি ।

গতকাল বুধবার রাজধানীর গুলশানে সন্ধ্যা ৭টায় বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে উক্ত বৈঠকটি শুরু হয়। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা দলের সাংগঠনিক অবস্থার চুলচেরা বিশ্লেষণ করেন আড়াই ঘণ্টাব্যাপী রুদ্ধদ্বার এ বৈঠকে ।
বৈঠকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও জামায়াত ইস্যুকে প্রাধান্য দিয়ে নেতারা তাদের মতামত তুলে ধরেন। এর বাইরে ডাকসু নির্বাচন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা ও মামলা প্রসঙ্গেও নেতারা বক্তব্য রাখেন। নেতাদের এসব বক্তব্যের সারমর্ম তৈরি করে দুই-একদিনের মধ্যে তারেক রহমানকে পাঠানোর জন্যও সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বৈঠকে। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ সারমর্ম তৈরি করবেন।
বিএনপির রাজনীতি যেন শুধু জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থাকে সে বিষয়টি খেয়াল রাখার তাগিদ দিয়েছেন কেউ কেউ। বিএনপি ঐক্যফ্রন্টের ‘পেটে ঢুকে পড়েছে’ এমন মন্তব্য করে দলটিকে জোট নির্ভর না হয়ে স্বাধীনভাবে রাজনীতি করার পক্ষে মত দিয়েছেন অনেকেই।
পাশাপাশি জামায়াত বিএনপির জন্য বোঝা হয়ে পড়েছে এমন মতও উঠে এসেছে বৈঠকে। বৈঠকসূত্রে এমন তথ্য জানা গেছে।
দলের একজন স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, বিএনপির রাজনীতি এখন ঐক্যফ্রন্টমুখী হয়ে গেছে। এখান থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। নিজেদের রাজনৈতিক সক্ষমতা বাড়াতে হবে। যদিও তাদের এ বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তারেক রহমান কিছু বলেননি।
ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করা সুলতান মোহাম্মদ মনসুরের সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেয়ার বিষয়টি আলোচনায় তোলেন একজন সদস্য। এ প্রসঙ্গ উঠলে অন্যরাও ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতার সমালোচনা করেন। তার পর সংসদ নির্বাচনের আগে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন কতটুকু সঠিক ছিল তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন।
খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে বলে দলের স্থায়ী কমিটির দুজন নেতা বলেছেন উক্ত বৈঠকে, বৈঠক সূত্রে জানা গেছে । রাজপথের আন্দোলনেও নামতে হবে আইনি লড়াইয়ের পাশাপাশি । দলের বিভিন্ন জেলার মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটিগুলো এবং অঙ্গ সংগঠনগুলোকে পুনর্গঠন করা জরুরি বলে মন্তব্য করলেন এক নেতা।
দলের স্থায়ী কমিটির নেতাদের জেলাপর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেনা তারেক রহমান, যদিও বৈঠক তারেক রহমান তেমন কথা বলেননি। একই সঙ্গে জানতে চেয়েছেন মা খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কেও।
উক্ত উপস্থিত ছিলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলের স্থায়ী কমিটির জ্যেষ্ঠ সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান সহ অন্যান্য নেতাবৃন্দ।

পুনঃনির্বাচনের দাবির সাথে সহমত পোষন করলেন নুরুল হক নুর

Now Reading
পুনঃনির্বাচনের দাবির সাথে সহমত পোষন করলেন নুরুল হক নুর

বাম ছাত্রজোটের ভিপি প্রার্থী লিটন নন্দী বলেন আগামী তিন দিনের মধ্যে যদি ডাকসু নির্বাচন বাতিল করে পুনঃ তফসিল দেওয়া না হয় তাহলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অচল করে দিতে বাধ্য হব। সেইসঙ্গে এই নির্বাচন পরিচালনার সঙ্গে যাঁরা যুক্ত ছিলেন, তাদের প্রত্যেককে পদত্যাগ করতে হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন এবং সেইসাথে মামলা প্রত্যাহর করার কথাও বলেন তিনি। যদি এসব করা না হয় তাহলে আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অচল করে দিতে বাধ্য হব বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরব রক্ষার্থে বলে মন্তব্য করলেন তিনি।
আজ বুধবার দুপুরে ছাত্রলীগ বাদে পুননির্বাচন চেয়ে উপাচার্যের কার্যালয়ের কাছে স্মারকলিপি নিয় যায় ভোট বর্জনকারী ডাকসুর পাঁচটি প্যানেল। স্মারকলিপি প্রদানের পর উপাচার্যের প্রতিক্রিয়া নিয়ে সাংবাদিকদের সামনে কথা বলেন লিটন নন্দী।

লিটন নন্দী বলেন, ‘আমরা উপাচার্যকে বলেছি। আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে, সেগুলো প্রত্যাহার করতে হবে। যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ করে, তাদের ছাড় দেওয়া হবে না। বরং তাদের বিরুদ্ধে ক্রিমিনাল অ্যাক্টের মামলা দেওয়া হবে। আমরা বলেছি, বিশ্ববিদ্যালয়ে এত দিন যারা ক্রিমিনাল অ্যাক্ট করলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে কী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। তিনি কোনো উত্তর দেননি।’
আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনা শেষে সকলের কর্মপ্রয়াস, আন্তরিকতা, সময় শ্রম সেগুলোকে নস্যাৎ করার এখতিয়ার, সেটি আমার নেই বলে অপর এক সংবাদ সম্মেলনে মন্তব্য করেন পুনর্নির্বাচনের বিষয়ে উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান। প্রত্যেকটি প্রক্রিয়া, প্রত্যেকটি কার্যক্রম রীতিনীতি মেনে হবে বলে জানান তিনি।’
এর আগে দুপুর ১২টা থেকে গতকালের ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে বিক্ষোভ শুরু করেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এর পরে তাঁরা স্মারকলিপি নিয়ে উপাচার্যের কার্যালয়ে যান।
গতকাল মঙ্গলবার ডাকসু নির্বাচনের পরদিন দিনটি ছিল নাটকীয়তায় ভরা। গত সোমবার গভীর রাতে ক্ষোভে ফেটে পড়েছিলেন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা, যখন সহসভাপতি (ভিপি) পদে বিজয়ী হিসেবে নুরুল হকের নাম ঘোষণা করা হয়। নুরুলকে ‘শিবির’ আখ্যা দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের দাবি তোলেন তাঁরা। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ক্যাম্পাসে এলে তাঁকে ধাওয়াও দেওয়া হয়। এরপর হঠাৎ এসে নুরুলকে বুকে জড়িয়ে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী। এবং তাৎক্ষনিক পরিস্থিতি পাল্টে যায়।
ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের যে ঘোষণা দিয়েছিলাম, তা থেকে আমরা সরে এসেছি বলে জানান নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক। কিন্ত অন্য সংগঠন তাঁর দেওয়া এই ঘোষণা মেনে না নেওয়াতে তোপের মুখে পড়লেন নুর এবং রাতে অন্যান্য ছাত্রসংগঠনের সঙ্গে সহমত পোষণ করে পুননির্বাচন চান বলে ঘোষণা দেন তিনি।

অবশেষে সভাপতি বরণ করে নিলেন সহসভাপতি নূরকে, আলিঙ্গন করলেন পরস্পর

Now Reading
অবশেষে সভাপতি বরণ করে নিলেন সহসভাপতি নূরকে, আলিঙ্গন করলেন পরস্পর

ছাত্রলীগ মনোনীত ভিপি প্রার্থী কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজোয়ানুল হক চৌধুরী শোভন বরণ করে নিলেন ডাকসু নির্বাচনে ভিপি (সহ-সভাপতি) পদে বিজয়ী বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক নুরুল হক নূরকে। রেজোয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও নুরুল হক নূর পরস্পর আলিঙ্গন করেন আজ মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে।

এর আগে আজ মঙ্গলবার দুপুরে ভিসি চত্ত্বরে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ফলাফল মেনে নেওয়ার আহ্বান জানান শোভন। নেতাকর্মীদের শান্ত করতে এসে তিনি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের এ ঘোষনা দেন।

বাংলাদেশ ১৬ কোটি মানুষ সবাইকে আমাদের দেখে রাখতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। তিনি আরো বলেন কাউকে পর করে দিলে হবে না। ছাত্রলীগের কর্মীদের মন অনেক বড়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ ঠিক রাখতে সবাইকে একসাথে নিয়ে কাজ করতে চাই বলে তিনি জানিয়েছেন এবং সেই সাথে নূরও আমাদের সাথে থাকবে।

Page Sidebar