প্রধানমন্ত্রীকে ডাকসুর আজীবন সদস্য করার প্রস্তাবে আপত্তি জানালেন নুর

Now Reading
প্রধানমন্ত্রীকে ডাকসুর আজীবন সদস্য করার প্রস্তাবে আপত্তি জানালেন নুর

নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) আজীবন সদস্য করার প্রস্তাবে আপত্তি জানিয়েছেন এবং তার আপত্তির সাথে একমত পোষণ করেছেন সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেনও।
আজ শনিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে ২৮ বছর পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) নবনির্বাচিত কমিটির প্রথম কার্যকরী সভা। বেলা ১১টায় শুরু হয়ে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ডাকসুর সভাকক্ষে এই সভা চলে । সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় ২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচন হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ডাকসুর আজীবন সদস্য করার দাবি জানান ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক (জিএস) ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। কিন্তু কোটা সংস্কার আন্দোলন নেতা ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর এই দাবির বিরোধিতা করেন । যেহেতু এই নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ এবং বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা নির্বাচন বর্জন করেছেন, সেহেতু এ রকম প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রীকে সদস্য করার জন্য আপত্তি জানাই বলে মন্তব্য করেন নুরুল হক নুর।’
যদি পুনরায় নির্বাচন হয় এবং সেই নির্বাচন সুষ্ঠু হয় তাহলে প্রধানমন্ত্রীকে আজীবন সদস্য করার ব্যাপারে প্রস্তাব দেয়া যাবে বলে সভায় পুনরায় ডাকসু নির্বাচনের দাবি জানিয়ে এ কথা বলেন নুর।
ক্যাম্পাসে রিকশা ও সাইকেলের জন্য আলাদা লেন করার দাবি জানানো হয় উক্ত সভায়। এ ছাড়া নির্দিষ্ট রিকশাভাড়ার ব্যবস্থা করা ও যান চলাচল নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারেও আলোচনা হয়। এসব ব্যাপারে উপস্থিত সবাই একমত প্রকাশ করেন।
সভায় গেস্টরুম ও গণরুম বন্ধ করার ব্যাপারেও কথা বলেন ভিপি নুর। এ ছাড়া একটা নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দলের ছত্রছায়ায় হলে উঠার বিরোধিতাও করেন তিনি। তবে এসব ব্যাপারে কথা বলেনি ছাত্রলীগ।
এই কার্যকরী সভায় প্রতিনিধিদের মধ্যে গণতন্ত্রের চর্চা হয়েছে বলে কর্যকরী সভা শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মো: আখতারুজ্জামান এ কথা বলেন। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এটি গণতন্ত্রের একটি শুভ সূচনা বলেও মন্তব্য করলেন তিনি।’
প্রধানমন্ত্রীকে আজীবন সদস্য করার ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে। তবে পরের কার্যকরী সভায় আমরা এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেব বলে জানালেন ভিসি।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকে লংমার্চ করবে: শামসুজ্জামান দুদু

Now Reading
বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকে লংমার্চ করবে: শামসুজ্জামান দুদু

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু ডাকসুর পুনর্নির্বাচনের দাবিতে অনশনকারীদের সমর্থন জানিয়েছেন । সেই সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে দাবি মেনে নেওয়ারও আহবান জানিয়েছেন শামসুজ্জামান দুদু।
আজ বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) দুপুরে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন। জাতীয়তাবাদী নবীন দল নামের একটি সংগঠন উক্ত আলোচনা সভার আয়োজন করেছে ।
যদি নির্বাচন বাতিল না করেন, প্রয়োজনে সাবেক ডাকসু ভিপি, জিএস ছাত্রনেতারা মাঠে নামবে বলে ঘোষনা দিলেন শামসুজ্জামান দুদু। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে উদ্দেশ্য করে বললেন কথাগুলো। তিনি আরো বলেণ বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকে লংমার্চ করবে। কারণ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আমাদের স্বপ্নের জায়গা। এখানে আপনারা যা ইচ্ছা তাই করবেন তা আমরা মেনে নেব না।
ছাত্রছাত্রীরা যে দাবি করছে তা মেনে নেওয়ার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষকে আহবান জানালেন দুদু। আর মেনে নেবেন না কেন? শুধু যে বিরোধী দল বলেছে, সুষ্ঠু নির্বাচন হয়নি তা নয়। এ নির্বাচন সুষ্ঠ হয়নি এ কথা ছাত্রলীগ ও নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর থেকে শুরু করে পর দিন দুপুর পর্যন্ত বলেছে। এছাড়া এমন কোন সংগঠন নাই, যারা এ নির্বাচন বাতিলের কথা বলে নাই।
দেশের নির্বাচনী ব্যবস্থা, আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থা, বিচার ব্যবস্থা, শিক্ষা, শিল্প এমন কিছু নাই যা ভেঙ্গে ফেলা হয় নাই। বাংলাদেশে এখন যে পরিস্থিতির মধ্যে পড়েছে এই দেশ এখন অস্তিত্বের বিপন্ন মুখে।
সিইসি নিজে স্বীকার করেছেন ইভিএম থাকলে তাতে ভোট ডাকাতি হত না অর্থাৎ ইভিএম নাই বলে মন্তব্য করেন তিনি । এখন রাত্রে ভোট ডাকাতি হয় এবং একই ঘটনায় ভিসির নেতৃত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে় হয়েছে।’
হাইকোর্ট, সুপ্রিম কোর্টের দিকে তাকিয়ে কোন লাভ হবে না বলে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করেন তিনি । শুধু আন্দোলন করে দেশে স্বাধীনতা আসেনি। লড়াই ও রক্ত দিতে হয়েছে দেশে স্বাধীনতা আনতে । লড়াই ও রক্তের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকে পাকিস্তান আমলে জেল থেকে মুক্ত করা হয়েছে । বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে লড়াই ও রক্ত দিয়েই । এটা যদি আপনি মাথায় না নিতে পারেন তাহলে ভুল হয়ে যাবে।
উক্ত আলোচনা সভার সভাপতিত্ব করছেন আয়োজক সংগঠনের সভাপতি হুমায়ুন আহমেদ। উক্ত আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, হাবিবুর রহমান হাবিব, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুন রায় চৌধুরী প্রমুখ সহ অনেকে।

অত্যন্ত শৃঙ্খলা রেখে উৎসবমুখর পরিবেশের শেষ হলো ডাকসু নির্বাচন

Now Reading
অত্যন্ত শৃঙ্খলা রেখে উৎসবমুখর পরিবেশের শেষ হলো ডাকসু নির্বাচন

শৃঙ্খলা ও শ্রদ্ধা রেখে উৎসবমুখর পরিবেশে শিক্ষার্থীরা ভোট দিয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাবি ভিসি অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান । এই শৃঙ্খলা ও উৎসবমুখর পরিবেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে বলে তিনি জানান। গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের প্রতি শিক্ষার্থীদের শ্রদ্ধায় তিনি অভিভূত হয়েছেন বলে জানান ড. মো. আখতারুজ্জামান। ছাত্রছাত্রীদের মাধ্যমে তিনি উৎসাহিত হচ্ছেন বলেও তিনি বলেন।
সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি এসব মন্তব্য করেন, আজ সোমবার দুপুরে ।
শিক্ষার্থীদের শৃঙ্খলাবোধ এবং গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ দেখে তিনি আশ্চর্য হয়ে গিয়েছেন বলে জানান ড. আখতারুজ্জামান । তিনি বলেন শিক্ষার্থীদের এই শৃঙ্খলা ও মূল্যবোধ একটি উদাহরণ হিসেবে থাকবে এবং আমাদের নতুন মাত্রায় অনুপ্রেরণা দিচ্ছে। আমারা গণতান্ত্রিক রীতি-নীতি নতুন মাত্রায় এগিয়ে নেওয়ার অনুপ্রেরণা পেয়েছি এই নির্বাচনের মাধ্যমে। সামনের দিনগুলোতে গণতান্ত্রিক রীতি-নীতি এগিয়ে নেওয়া আরো সহজ হয়েছে এই নির্বাচনের মাধ্যমে। তিনি বলেন আমি অনেক ভোটকেন্দ্র পরিদর্শন করেছি। সব জায়গায় দেখেছি-একবারে সারিবদ্ধভাবে ও সুশৃঙ্খলভাবে আমাদের ছেলেমেয়েরা ভোট দিচ্ছে।
এর আগে নানা অনিয়মের অভিযোগ ও চিত্র তুলে ধরে ঢাকা বিশ্বদ্যিালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনের ভোট বর্জন করেছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, কোটা আন্দোলনকারীদের বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, বাম সংগঠনগুলোর জোট প্রগতিশীল ছাত্রজোট, স্বাধিকার স্বতন্ত্র পরিষদ, স্বতন্ত্র জোটসহ বিভিন্ন প্যানেল।
বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হল নিয়ে ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, সেখানে একটি অনিয়ম ঘটেছে। আমরা কোনো ধরনের কালক্ষেপণ না করে প্রভোস্টকে সরিয়ে সেখানে অন্য আরেকজনকে দায়িত্ব দিয়েছি। সেইসঙ্গে পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটিও গঠন করে দিয়েছেন বলে তিনি মন্তব্য করেন।
প্রসঙ্গত ২৮ বছর পর অনুষ্ঠেয় ডাকসু নির্বাচন শুরু হয় সকাল ৮টায়। বেলা ২টা পর্যন্ত চলে ভোটগ্রহণ। এতে ৪৩ হাজার ২৫৬ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। মোট ভোটারের মধ্যে ছাত্র ২৬ হাজার ৯৪৪ এবং ছাত্রী ১৬ হাজার ৩১২ জন।
বাম সংগঠনগুলো জোট প্রগতিশীল ছাত্র ঐক্য, কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের প্লাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, স্বাধিকার স্বতন্ত্র পরিষদ ও সতন্ত্র জোট আজ সোমবার দুপুর ১টার পর সংবাদ সম্মেলন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে তারা ভোট বর্জনের ঘোষণা দেয় এবং সেইসাথে ছাত্রদলও তাদের সমর্থন দিয়ে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয়।

ডাকসু নির্বাচন নিয়ে গুজব ছড়ানো হচ্ছে বললেন, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী

Now Reading
ডাকসু নির্বাচন নিয়ে গুজব ছড়ানো হচ্ছে বললেন, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী

২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচন হচ্ছে। এরই মধ্যে ডাকসু নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ আসছে।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগ সমর্থিত জিএস প্রার্থী ও ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেছেন, যেভাবে কোটা বিরোধী আন্দোলন ও নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে প্রোপাগান্ডা ছড়িয়ে আওয়ামী লীগ অফিসে গুম করা হয়েছে, বোনদের ধর্ষণ করা হয়েছিল বলে প্রচার করা হয় তেমনটাই এখানেও করার চেষ্টা করা হয়েছে।
আজ সোমবার দুপুরে ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক রাব্বানী সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।
তিনি বলেছেন, নূরুল হক নুরু, অনিক, রাশেদ ও লিটন নন্দীর প্রার্থিতা বাতিল করার দাবি করছি। তিনি অভিযোগ করেন, ওরা প্রশাসনকে জিম্মি করে এবং ব্যালট পেপার ছিনতাই করে তা ছড়িয়ে দেয়। এ কারণে তাদের প্রার্থিতা বাতিল করে মামলা করা হোক।
রোকেয়া হল শিক্ষার্থীরা তিনটি ট্রাঙ্কে রাখা ব্যালট উদ্ধার করা বিষয়ে তিনি বলেন, দরজা ভেঙে বের করেছে, এসব হল সংসদে ছিল। এ ধরনের পরিস্থিতি তৈরির জন্য কোটা আন্দোলনের নুর, ছাত্রদলের অনীক ও বামজোটের লিটন নন্দী জড়িত।
দীর্ঘ ২৮ বছর পর আজ সোমবার সকাল ৮টা থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এবং হল সংসদের প্রতিনিধি নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরু হয়। তবে ব্যালটে সিল মারার অভিযোগে বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হলে ভোট গ্রহণ বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরে বেলা ১১ টা ১০ মিনিট থেকে ওই হলে ফের ভোট গ্রহণ শুরু হয়।

Page Sidebar