1
New ফ্রেশ ফুটপ্রিন্ট
 
ফ্রেশ!
REGISTER

ফিলিস্তিনী রাষ্ট্রদূত বলেছেন, জেরুজালেমে ব্রাজিলের দূতাবাস সরানো বেআইনি

Now Reading
ফিলিস্তিনী রাষ্ট্রদূত বলেছেন, জেরুজালেমে ব্রাজিলের দূতাবাস সরানো বেআইনি

ব্রাজিলের দূতাবাস ইসরায়েলের তেলআবিব থেকে জেরুজালেমে সরিয়ে নেয়া আইন বিরোধী বলে মন্তব্য করেছেন সে দেশে নিযুক্ত ফিলিস্তিনী রাষ্ট্রদূত। তিনি বলেন, ফিলিস্তিনী জনগণের ওপর একটি বড় আঘাত এবং আন্তর্জাতিক আইনের লংঘন।
মঙ্গলবার ফিলিস্তিনী রাষ্ট্রদূত একথা বলেন। ব্রাজিলের কট্টর ডানপন্থী প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনারো ইসরাইলে রাষ্ট্রীয় সফরে যাওয়ার কয়েকদিন আগে ফিলিস্তিনী রাষ্ট্রদূত ইব্রাহিম আলজাবেন এমন মন্তব্য করলেন।
রাষ্ট্রদূত আলজাবেন বলেন, ‘কোন দেশের দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্তর আন্তর্জাতিক আইনের সুস্পষ্ট লংঘন ও ফিলিস্তিনী জনগণের ওপর বড় আঘাত।’
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও মার্কিন দূতাবাস তেলআবিব থেকে জেরুজালেমে স্থানান্তরের ঘোষণা দিয়েছেন।

ব্রাজিলে ৩০ মিলিয়ন মানুষ আপাতদৃষ্টিতে মরুভূমিতে থাকার মত বসবাস করছে……

Now Reading
ব্রাজিলে ৩০ মিলিয়ন মানুষ আপাতদৃষ্টিতে মরুভূমিতে থাকার মত বসবাস করছে……

২০১৮ সালের ১ডিসেম্ব ব্রাজিলের বৃহত্তর সাও পাওলোর উত্তর অংশে অবস্থিত ফ্রাঙ্কো দো রোচা অঞ্চলে একটি ভারী বৃষ্টি বন্যা হয়। যার ফলে রাস্তা অবরোধ করা হয়েছে, ব্যবসা বন্ধ রয়েছে। শহরটিতে বন্যার সময় পাবলিক ট্রান্সপোর্ট কীভাবে কাজ করছে তা জানা কঠিন ছিল। তাছাড়াও তথ্য খোঁজার অসুবিধার একটি ব্যাখ্যা আছে। ফ্রাঙ্কো দো রোচা বর্তমানে কেবল দুটি নিউজ আউটলেট আছে। একটি সাম্প্রতিক আটলাস দা নোটিসিয়া দ্বারা একটি “খাঁটি মরুভূমি” হিসাবে বিবেচিত হয় এবং একটি গবেষণা যা ব্রাজিলীয় শহরগুলির মিডিয়া আউটলেটগুলির পরিমাপকে পরিমাপ করে। প্রজোর পরিচালিত এই গবেষণাটি ২০১৭ সাল থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। গত বছর এটি প্রকাশ করেছে যে ব্রাজিলের ৩০ মিলিয়ন লোকের কোনো স্থানীয় মিডিয়া কভারেজ নেই।

ব্রাজিলের জনসংখ্যা ২০৯ মিলিয়ন। বৃহত্তর সাও পাওলো শহরের চারপাশে বিস্তৃত অঞ্চলে যার মধ্যে ৩৯ টি শহর রয়েছে তার জনসংখ্যার ২১,৫ মিলিয়ন। বৃহত্তর সাও পাওলোতে ১মিলিয়নেরও বেশি মানুষ তাদের শহরকে ঢেকে রাখে এমন কোনও নিউজ আউটলেট ঝুঁকির সম্মুখীন। কমপক্ষে ১০ টি পৌরসভাতে সর্বাধিক দুটি মিডিয়া আউটলেট রয়েছে যা স্থানীয় সংবাদগুলি জুড়ে দেয়। তিনটি শহরে কোনও সংবাদপত্র নেই: দক্ষিণপূর্ব ভার্গেম গ্রান্ডে পলিস্তা (৫০ হাজার অধিবাসী), পশ্চিমে পিরাপোরা ডো বম জেসস (১৮ হাজার) এবং পূর্বের (৩১ হাজার অধিবাসী) বারিটিবা মিরিম।

বিরিটিবা অঞ্চলে এমন স্থান রয়েছে যা পুরোপুরি “মরুভূমি” নয় তবে কাছাকাছি। শহরটিতে কোন সংবাদপত্র নেই। কাছাকাছি ১৮৭ হাজার বাসিন্দাদের একটি পৌরসভা ফেরেরাজ দে Vasconcelos, অনুরূপ পরিস্থিতি। এটিরও শুধুমাত্র দুটি সংবাদপত্র আছে। বিকল্প সামাজিক মিডিয়া উপর খবর অনুসরণ করা হয়। এক স্থানীয়র উক্তি, “আমি সাধারণত [কাছাকাছি শহরগুলিতে অবস্থিত] অঞ্চলের সংবাদপত্রের পৃষ্ঠাগুলি অনুসরণ করি এবং টিভি সেনেরিওর মতো ফেরেরাজের পৃষ্ঠাগুলি অনুসরণ করি।


এই পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করে এমন এক ফ্যাক্টর বৈষম্য যা যোগাযোগকে প্রভাবিত করে। বৃহত্তর সাও পাওলোতে মোট ১০০০টিরও বেশি তথ্যচিত্র রয়েছে। তবে এদের মধ্যে ৭৬ শতাংশ রাজধানীতে অবস্থিত। অন্যান্য ২৪ শতাংশ অঞ্চলের ৩৮ টি অন্যান্য শহরে ছড়িয়ে পড়েছে যা এর অধিবাসীদের ৪০শতাংশ প্রতিনিধিত্ব করে।

মানুষের মন্তব্যের মাধ্যমে এই জিনিসগুলি সম্পর্কে জানতে পারা যায়। ফ্রাঙ্কোর বাসিন্দা মারসিয়া পেরেরা কার্ডোসা ব্যাখ্যা করেছেন, “এখানে ফেসবুক এবং হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করা যায় তবে অন্যান্য আউটলেটগুলি পাওয়া কঠিন। যদি এখানে শহর সম্পর্কে রেডিও বা টেলিভিশন চালু করা হয় তবে ভালো হবে।”

পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলও খেল ধাক্কা

Now Reading
পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলও খেল ধাক্কা

ব্রাজিল আর্জেন্টিনার মত হেরে যায়নি। কিন্তু ব্রাজিলের ফলাফলটা সুখকর হয়নি। র‌্যাঙ্কিংয়ে ৭৩ ধাপের ব্যবধান—এমন দলের বিপক্ষে জয় না পেলে ফলটা গৌরবের হয় কীভাবে? হোক না প্রীতি ম্যাচ, পর্তুগালে কাল মাথা নিচু করে মাঠ ছাড়তে হয়েছে কুতিনহো-জেসুসদের। র‌্যাঙ্কিংয়ে ৩য় আর ৭৬তম দলের মধ্যে লড়াইয়ে অনুমিত ফলটা যে তাঁরা এনে দিতে পারেননি। পুঁচকে পানামার সঙ্গে ১-১ গোলে আটকে গেছে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল।
আর্জেন্টিনার তবু সান্ত্বনা, তাঁরা পানামার চেয়ে শ্রেয়তর দলের কাছে হেরেছে। ভেনেজুয়েলা ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ৩২তম দল। অন্যদিকে পানামা ৭৬তম, আর সবশেষ ১১ ম্যাচে জয়বঞ্চিত। এমন দলের বিপক্ষে ব্রাজিলের জয়বঞ্চিত থাকা আর্জেন্টাইন সমর্থকদের জন্য এক অর্থে হারের ক্ষত মোচনের দাওয়াই। আর্জেন্টিনা যে দলের বিপক্ষে হেরেছে, তাঁদের চেয়ে বাজে দলের বিপক্ষেও যে ব্রাজিল জিততে পারল না।
ব্রাজিলের ভক্তরা হয়তো ভেবেছিলেন, পানামার মতো দলের বিপক্ষে জিততে নেইমার না থাকলেও তো চলে! পিএসজি তারকা চোটের কারণে এখন মাঠের বাইরে। তবে জাতীয় দল সতীর্থদের খেলা দেখতে গ্যালারিতে ছিলেন। রীতিমতো হতাশই হয়েছেন। তাঁর ১০ নম্বর জার্সি পরে খেলা মিডফিল্ডার লুকাস পাকুয়েতার গোলে ৩২ মিনিটে এগিয়ে গিয়েছিল ব্রাজিল। মিরান্ডা-ফ্যাগনার-কাসেমিরোদের রক্ষণ এই এগিয়ে যাওয়া ধরে রাখতে পেরেছে মাত্র চার মিনিট। ৩৬ মিনিটের মাথায় গোল করে পানামা ঐতিহাসিক ফলের সুবাস পাইয়ে দেন অ্যাডলফো মাচাদো।
কাসেমিরো, ফ্যাগনার, রিচার্লিসন, রবার্তো ফিরমিনো, কুতিনহোদের নিয়ে শক্তিশালী একাদশই মাঠে নামিয়েছিলেন ব্রাজিল কোচ তিতে। গোটা ম্যাচে প্রত্যাশামতো পানামার চেয়ে ভালো খেলেছে তাঁর শিষ্যরা। দ্বিতীয়ার্ধে দুবার পানামার গোলপোস্ট কাঁপিয়েছেন রিচার্লিসন ও কাসেমিরো। কিন্তু পাকুয়েতা ছাড়া আর কেউ জাল খুঁজে পাননি। আর তাতে নেইমারের অনুপস্থিতিতে ব্রাজিলের গোল করার লোকের অভাবটা আবারও চোখে বিঁধেছে সমর্থকদের।
পরিসংখ্যান বলছে, এই পানামার বিপক্ষেই শেষ চারবারের মুখোমুখিতে ব্রাজিলের জয়ের ব্যবধান ছিল যথাক্রমে ৫-০, ৫-০, ৪-০, ২-০। চার ম্যাচে ১৬ গোল। এবার সেই দলটাকেই কিনা ব্রাজিল হারাতে পারল না! উল্টো, র‌্যাঙ্কিংয়ে তৃতীয় দলটির বিপক্ষে নিজেদের ইতিহাসে প্রথম ড্র তুলে নিল মধ্য আমেরিকার দেশটি।
কোপা আমেরিকার প্রস্তুতি হিসেবে প্রীতি ম্যাচে পাওয়া ফলটা ব্রাজিল কোচ তিতের জন্য সুখকর হলো না। ম্যাচ শেষে তাঁর ভাষ্য, ‘খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্স দুর্দান্ত না হলেও একেবারে খারাপও ছিল না। কোপা আমেরিকায় আমাদের আরও সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’ ১৪ জুন থেকে ব্রাজিলে শুরু হচ্ছে কোপা আমেরিকা।

ব্রাজিলের জাতীয় দল থেকে আবারো ছিটকে গেলেন আলভেজ

Now Reading
ব্রাজিলের জাতীয় দল থেকে আবারো ছিটকে গেলেন আলভেজ

দানি আলভেজ ব্রাজিলের জাতীয় দলের সেরা ডিফেন্ডারদের মধ্যে অন্যতম। ব্রাজিলের হয়ে স্বপ্নের রাশিয়া বিশ্বকাপ খেলা হয়নি দানি আলভেজের ইনজুরির কারণে।

বছরখানিক বিরতি দিয়ে ঐতিহ্যবাহী হলুদ জার্সিতে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন এই তারকা ডিফেন্ডার। তবে ফের ইনজুরিতে আবারও মাঠের বাইরে চলে গেলেন তিনি।
প্যারিস সেন্ট জার্মেইর (পিএসজি) লিগের ম্যাচে মার্শেইর বিপক্ষে ৩-১ গোলে জয়ের ম্যাচে বাম হাঁটুতে চোট পান আলভেজ।
এদিকে, আগামী ২৩ মার্চ পোর্তোতে পানামার মুখোমুখি হবে ব্রাজিল। আর ২৭ মার্চ চেক প্রজাতন্ত্রের সঙ্গে লড়বে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। আভেজের পরিবর্তে রাইট ব্যাক ফ্যাগনারকে দলে নেওয়া হয়েছে। ম্যানচেস্টার সিটির দানিলোও আছেন তিতের এই দলে।
দ্বিতীয় ডিফেন্ডার হিসেবে ব্রাজিল দল থেকে ছিটকে গেলেন আলভেজ। এর আগে অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের লেফট-ব্যাক ফিলপ লুইসও চোটে পড়ে মাঠে বাইরে চলে গিয়েছিলেন।

স্কুল প্রাঙ্গণে এলোপাতারি গুলিতে নিহত ৮জন এবং ১৭ জন আহত

Now Reading
স্কুল প্রাঙ্গণে এলোপাতারি গুলিতে নিহত ৮জন এবং ১৭ জন আহত

ব্রাজিল বিশ্বের সবচেয়ে সহিংস দেশগুলোর একটি হলেও সেখানে স্কুলে গোলাগুলির ঘটনা খুবই বিরল। ব্রাজিলের দক্ষিণাঞ্চলের একটি স্কুলে গোলাগুলির ঘটনায় শিক্ষার্থীসহ আটজন নিহত হয়েছে। মাস্ক পরিহিত দুই হামলাকারী বন্দুক নিয়ে এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গোলাগুলিতে ঘটনাস্থলেই আটজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া বন্দুকধারীরা হামলা চালানোর পর নিজেরাও আত্মহত্যা করেছে।

পুলিশ জানিয়েছে , সাও পাওলোর সুজানো এলাকায় ওই হামলার ঘটনার ঘটেছে। দু’জন অস্ত্র নিয়ে একটি স্কুল ভবনে প্রবেশ করে এলোপাতারি গুলি চালিয়ে আত্মহত্যা করেছে। গভর্নর জোয়াও দোরিয়া জানিয়েছেন, নিহতদের মধ্যে ছয়জন শিক্ষার্থী এবং দু’জন শিক্ষক। গোলাগুলির ঘটনায় আহত হয়েছে ১৭জন তাদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত শিক্ষার্থীদের বয়স ১৫ বা ১৬ বছর।

স্কুলে প্রবেশ করে হামলা চালানো ১৭ এবং ২৫ বছর বয়সী ওই হামলাকারীরা স্কুলটির প্রাক্তন ছাত্র ছিল। চারদিকে গোলাগুলির শব্দের মধ্যে চিৎকার করছিল শিশুরা। তারা ছোটাছুটি করছিল বন্দুকধারীদের কাছ জীবন ভিক্ষা চাইছিল। হামলার পর স্কুলটি বন্ধ রাখা হয়েছে। ব্রাজিল বিশ্বের সবচেয়ে সহিংস দেশগুলোর একটি হলেও সেখানে স্কুলে গোলাগুলির ঘটনা খুবই বিরল। এর আগে ২০১১ সালে একটি স্কুলে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছিল। সে সময় প্রাক্তন এক ছাত্রের গোলাগুলিতে ১২ শিশু নিহত হয়েছিল।
এই হামলার পেছনের কারণ এখনও জানা যায়নি।

ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী স্ট্রাইকার কৌতিনিয়ো মারা গেছেন

Now Reading
ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী স্ট্রাইকার কৌতিনিয়ো মারা গেছেন

৭৫ বছর বয়সে নিজ বাড়িতে মারা গেছেন ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী স্ট্রাইকার কৌতিনিয়ো ।
ব্রাজিলের ক্লাব সান্তোস সোমবার টুইটারে তার মৃত্যুর খবরটি জানায় । সান্তোস স্টেডিয়ামে তার শেষকৃত্য হবে বলেও জানিয়েছে তারা।
মৃত্যুর কারণ তাৎক্ষণিকভাবে জানানো হয়নি। গত জানুয়ারিতে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। ডায়াবেটিসেও ভুগছিলেন তিনি।
সান্তোসে ব্রাজিলের কিংবদন্তি ফুটবলার পেলের সঙ্গে আক্রমণভাগে দারুণ এক জুটি গড়ে তুলেছিলেন কৌতিনিয়ো। ১৯৫৮ থেকে ১৯৬৭ সাল পর্যন্ত দুজনে একসঙ্গে খেলেছেন এই ক্লাবে। দলটির হয়ে পেলে করেন ১০৯১ গোল, আর ৩৬৮টি গোল করেন কৌতিনিয়ো।
ব্রাজিলের ১৯৬২ সালের বিশ্বকাপ জয়ী দলে ছিলেন কৌতিনিয়ো। অবশ্য চোটের কারণে জাতীয় দলের হয়ে খুব বেশি খেলতে পারেননি তিনি। ব্রাজিলের জার্সিতে খেলেছেন মোটে ১৫ ম্যাচ।

বন্যায় ১২জন মারা গেছে এবং আহত ৬জন

Now Reading
বন্যায় ১২জন মারা গেছে এবং আহত ৬জন

ব্রাজিলে ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট বন্যায় ১২ জন মারা গেছে। গুরুতর আহত হয়েছে আরো ৬ জন। দেশটির বাণিজ্যিক নগরী সাও পাওলোতে হতাহতের এ ঘটনা ঘটেছে। দেশটির দমকল কর্মীরা এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, ব্রাজিলের রিবেরাও পিরেস শহরে একই পরিবারের চারজন নিহত হয়েছে; আহত হয়েছে আরো দু’জন। মধ্যরাতে একটি বাড়ি ধসে পড়লে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, ডাস আর্টেসে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। সাও কাইতানো ডু সুলে পানিতে ডুবে তিনজন মারা গেছে। সাও পাউলোতে একজন, সান্তো আন্দ্রেতে দুজন এবং সাও বার্নার্ডো ডো কাম্পোতে একজন মারা গেছে।

মাঠে না থেকেও নিষেধাজ্ঞায় পড়তে পারেন নেইমার

Now Reading
মাঠে না থেকেও নিষেধাজ্ঞায় পড়তে পারেন নেইমার

মাঠে খেলার সময় নেইমার প্রায় সময় তার মেজাজ হারিয়ে ফেলেন। আর এই কারনে তিনি অনেকবার বিভিন্ন শাস্তি এবং নিষেধাজ্ঞায় পড়েছেন।

কিন্তু এখন তিনি মাঠের বাহিরে আছেন। চোটের কারণে তিনি দলে নেই। তবে এবার মাঠে না খেলেও নিষেধাজ্ঞায় পড়তে পারেন ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার।

প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি) নেইমারকে ছাড়াই তৈরি করেছিল চ্যাম্পিয়নস লিগে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠার সুযোগ। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে তাদেরই মাঠে ২-০ ব্যবধানে জিতেছিল।
ফিরতি লেগে ২-১ হলেও শেষ আটে উঠে যেত পিএসজি। পার্ক ডি প্রিন্সেসে দলের খেলা দেখতে তাই গ্যালারিতে উপস্থিত হয়েছিলেন নেইমার। কিন্তু মাঠে বসে দেখলেন শেষ মুহূর্তের পেনাল্টিতে পিএসজিকে বাদ করে দিয়েছে ম্যানইউ।
রেফারির ওই শেষ সময়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে কিছুটা বিতর্ক ছিল। তাই মেজাজ ধরে রাখতে পারেননি নেইমার। গ্যালারির মধ্যেই তাকে চিৎকার চেঁচামেচি করতে দেখা যায়। পরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে তো রীতিমত গালাগালই করেন রেফারি আর ইউরোপিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফাকে।
ইনস্টাগ্রামের পোস্টে নেইমার ক্ষোভ প্রকাশ করে লিখেন, ‘এটা আসলেই লজ্জাজনক! উয়েফা এমন চারজনকে নিয়োগ দিয়েছে, যারা স্লো মোশনে ভিআরের সিদ্ধান্ত কিভাবে নিতে হয় তার কিছুই জানে না। এটা কোনোভাবেই হ্যান্ডবল ছিল না। পেছনে আপনি কিভাবে হ্যান্ডবল দেন? আহ।’
এমন পোস্টে স্পষ্টতই উয়েফার আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন নেইমার। এতে সামনের মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগে এক থেকে তিন ম্যাচ পর্যন্ত নিষিদ্ধ হতে পারেন তিনি। ২৭ মার্চ উয়েফার মিটিং আছে। সেখানেই হয়তো সিদ্ধান্ত হবে, নেইমারের জন্য কি শাস্তি অপেক্ষা করছে।

বন্ধুর টানে মার্সেলো এখন জুভেন্টাসে

Now Reading
বন্ধুর টানে মার্সেলো এখন জুভেন্টাসে

রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে যোগ দিয়ে বন্ধু ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সাথে ম্যাচও খেলে ফেললেন মার্সেলো। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সাথে মার্সেলোর একটা ভালো সম্পর্ক রয়েছে সবাই জানে।

মৌসুমের শুরু থেকেই গুঞ্জন ছিল জুভেন্টাসে যোগ দিতে চলেছেন রিয়াল মাদ্রিদের ব্রাজিলিয়ান তারকা মার্সেলো। বন্ধু ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর সঙ্গে একই জার্সিতে খেলতে জুভেন্টাসে যোগ দিতে চলেছেন তিনি। এবার সেই গুঞ্জন সত্যি হচ্ছে বলে দাবি করেছে ইতালির গণমাধ্যম।
তাদের দাবি, এরই মধ্যে মার্সেলোর সঙ্গে চুক্তি হয়েছে জুভেন্টাসের। ইতালির জনপ্রিয় পত্রিকা ‘লা স্টাম্পার’ দিয়েছে এ খবর। পত্রিকাটি দাবি করেছে, এরই মধ্যে চুক্তির বিষয়ে ঐকমত্যে পৌঁছেছে মার্সেলো ও জুভেন্টাস। ঠিকঠাক হয়ে গেছে চুক্তির অঙ্ক এবং মেয়াদও। ব্রাজিল তারকা নাকি জুভেন্টাসের সঙ্গে চুক্তিটা করবেন ৪ বছরের। প্রতিবছরে ১২ মিলিয়ন ইউরো করে চুক্তির মোট অঙ্কটা নাকি ৪৮ মিলিয়ন ইউরো।
মার্সেলো রিয়ালের হয়ে অসংখ্য ট্রফি জয়ের সঙ্গে সবধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে প্রায় ৫০০টি ম্যাচ খেলে ফেলেছেন। এ নিয়ে ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, বর্তমান রিয়াল কোচ সান্তিয়াগো সোলারির সঙ্গে তার সম্পর্ক খুব ভালো না। এছাড়া নতুন এই কোচের অধীনে চলতি মৌসুমে মাত্র ১৩টি ম্যাচ খেলতে পেরেছেন মার্সেলো।
রোনালদোকে দলে নেওয়ার মাধ্যমে রিয়ালের অটুট দুর্গে যে ছিদ্রটি জুভেন্টাস করতে পেরেছিল, সে ছিদ্র দিয়েই মার্সেলো আর ইসকোকে নিয়ে আসতে চাইছে ইতালীয় জায়ান্টরা। রোনালদো রিয়াল ছেড়ে চলে যাওয়ার পর থেকেই মন খারাপ মার্সেলোর। যেটার প্রভাব পড়েছে তার ফর্মের ওপর। নিজের চেনারূপে দেখা যাচ্ছে না মার্সেলোকে। যার মাসুল দিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের মূল একাদশ থেকে জায়গা হারানোর মাধ্যমে।
রিয়াল মাদ্রিদের মূল লেফটব্যাক এখন আর মার্সেলো নন, বরং রিয়াল একাডেমির তরুণ স্প্যানিশ লেফটব্যাক সার্জিও রেগুলিয়নের ওপরই আস্থা রাখছেন বর্তমান কোচ সান্তিয়াগো সোলারি। মূল একাদশ থেকে জায়গা হারিয়ে মার্সেলো প্রচ- ক্ষুব্ধ, তার স্ত্রীও ইনস্টাগ্রামে রাগ ঝেড়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের প্রতি। সব মিলিয়ে বলা যায়, মাদ্রিদে সুখে নেই মার্সেলো। আর এই সুযোগটাই নিতে যাচ্ছে জুভেন্টাস।

নেইমার একটি নষ্ট ছেলে

Now Reading
নেইমার একটি নষ্ট ছেলে

নেইমার বর্তমান বিশ্বের তারকা ফুটবলারদের মধ্যে একজন। পৃথিবী জুড়ে নেইমারের সমর্থকেরও অভাব নেই। কিন্তু এক সাবেক ব্রাজিল তারকা নেইমারকে বলেছেন ‘নষ্ট ছেলে’।

১৬ বছরের বিশ্বকাপ খরা ঘোচানোর জন্য গত বিশ্বকাপে গিয়েছিল ব্রাজিল। দলের মূল তারকা নেইমার ব্রাজিলকে আরেকটা বিশ্বকাপ এনে দেবেন, এ প্রত্যাশাই ছিল ব্রাজিলের শত-কোটি ভক্ত সমর্থকের। কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের কাছে হেরে বিদায় নেয় নেইমারের ব্রাজিল।

ব্রাজিলের বিশ্বকাপ-ব্যর্থতার জন্য কম মানুষ নেইমারকে দোষ দেননি। এবার সেই তালিকায় নাম লেখালেন নব্বই দশকের ব্রাজিল তারকা নেতো। বিশ্বকাপে ব্রাজিলের বাদ পড়ার জন্য নেইমারকে অভিযুক্ত করে নেতো বলেছেন, নেইমার একজন নষ্ট ছেলে!

নেইমারকে ফুটবলার হিসেবে মানতেই কষ্ট হচ্ছে নেতোর। ফুটবল খেলোয়াড় নন, নেইমার শুধুই একজন তারকা, এমনটাই ভাবছেন নেতো, ‘রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে মেসির খেলা দেখেছেন? সেভিয়ার বিপক্ষে ওর খেলা দেখেছেন? ৩৩ বছর বয়সে এসে রোনালদো জুভেন্টাসের হয়ে কি করছে দেখছেন? রোনালদো এখন ইতালিয়ান লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা। আর নেইমার? ও তো কোনো ফুটবলারই না। ও শুধুই একজন তারকা। ও একটা নষ্ট ছেলে। আবার ওকে আপনি কিছু বলতেও পারবেন না কেননা কিছু বলতে গেলেই ওর বাবা রেগে যাবে। ওর মুখের ওপর উচিত কথা বলার সাহস শুধু আমার আর ওয়াল্টার ক্যাসাগান্দ্রের (পোর্তোর হয়ে ইউরোপিয়ান কাপ ও তুরিনোর হয়ে উয়েফা কাপ জেতা সাবেক ব্রাজিল তারকা) আছে।’ব্রাজিলের বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পেছনেও নেতো দায়ী করেছেন নেইমারকে, ‘আমরা শুধুমাত্র নেইমারের জন্যই বিশ্বকাপটা হারিয়েছি। কারণ ও দেশের হয়ে কিছুই করতে পারে না।’
ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা ফ্রি-কিক বিশেষজ্ঞ মানা হয় নেতোকে। সব্যসাচী খেলোয়াড় ছিলেন তিনি, আক্রমণভাগের বেশ কয়েকটা জায়গায় খেলতে পারতেন। নব্বইয়ের দশকে ব্রাজিলের হয়ে ১৬ ম্যাচ খেলে ৭ গোল করেছেন। ব্রাজিলের ক্লাব করিন্থিয়ানসের কিংবদন্তি তিনি। রোমারিও, দুঙ্গা আর তাফারেলের মতো খেলোয়াড়দের সতীর্থ হয়ে ১৯৮৮ সালে সিউল অলিম্পিকে ব্রাজিলের হয়ে রুপা জিতেছিলেন নেতো।
ওদিকে নেইমার মনে করেন ব্রাজিল ব্যর্থ হলেই সমালোচনার তিরটা তাঁর দিকেই বেশি তাক করা হয়, ‘ব্রাজিল হারলে বলতে গেলে আমার ওপরেই সব দোষ চাপানো হয়। আমার মনে হয় আমাকে একটু বেশিই সমালোচনা সহ্য করতে হয় বাকিদের চেয়ে। অবশ্য আমি জানি এমনটাই হবে যে। ক্যারিয়ারজুড়ে তীব্র সমালোচনার তীর সহ্য করে এসেছি আমি, তাই না?’

ফুটপ্রিন্ট লেখক লগিন