লিওনেল মেসি স্বীকার করেছেন, স্প্যানিশ লিগে রোনালদোকে ছাড়া ঠিক জমছে না তাঁর!

Now Reading
লিওনেল মেসি স্বীকার করেছেন, স্প্যানিশ লিগে রোনালদোকে ছাড়া ঠিক জমছে না তাঁর!

লিওনেল মেসি স্বীকার করেছেন, স্প্যানিশ লিগে রোনালদোকে ছাড়া ঠিক জমছে না তাঁর! আর্জেন্টাইন রেডিও চ্যানেল এফএম ৯৪৭–কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে লিওনেল মেসি এ কথা বলেন। তাঁদের দ্বৈরথ কি আজ থেকে? সেই ২০০৮ সাল থেকে দুজন মেতেছেন একে অপরকে ছাড়িয়ে যাওয়ার লড়াইয়ে, যে লড়াই এখনো একই গতিতে চলছে। মাঝে নয় বছর দুজন খেলেছেন একই লিগে। মেসি বার্সেলোনায়, রোনালদো তাঁর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদে। গত বছর রিয়াল ছেড়ে ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাসে যোগ দেন পর্তুগিজ তারকা। রোনালদোর সঙ্গে মুখোমুখি লড়াইটা বেশ ‘মিস’ করছেন বলে জানিয়েছেন মেসি।
রোনালদোর মতো খেলোয়াড়ের উপস্থিতি লা লিগার সম্মানকে আরও বৃদ্ধি করে বলে মনে করেন মেসি, ‘আমি আসলেই ক্রিস্টিয়ানোর অভাব অনুভব করি। যদিও মানতে দ্বিধা নেই, ওকে ট্রফি জিততে দেখলে খারাপ লাগত। কিন্তু এটাও অস্বীকার করার জো নেই, ও লা লিগার সম্মান বাড়িয়ে দিত বহুগুণ।’
মেসির কথাকে গুরুত্ব না দিয়েও পারা যাচ্ছে না। শুধু মেসিই নয়, রোনালদোর সাবেক দল রিয়াল মাদ্রিদের বেশ কিছু খেলোয়াড় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে বলেছেন, রোনালদোর অভাব ভোগাচ্ছে তাঁদেরও। কয়েক সপ্তাহ আগে বলেছিলেন সর্বশেষ ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা লুকা মদরিচ, কয়েক দিন আগে বলেছেন রিয়ালের ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার কাসেমিরো। রোনালদোহীন রিয়াল একদম রং হারিয়েছে যেন টানা তিনবারের চ্যাম্পিয়নস লিগজয়ী দল এবার এই প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই বিদায় নিয়েছে। ওদিকে লিগে বার্সেলোনার চেয়ে ১২ পয়েন্টে পিছিয়ে রয়েছে তারা।
এই মৌসুমে রিয়াল শিরোপাশূন্য থাকবে, এটা নিশ্চিত। আশার কথা এই, সান্তিয়াগো সোলারির জায়গায় আবার রিয়ালের কোচ করে আনা হয়েছে জিনেদিন জিদানকে, যে জিদানের অধীনে হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়নস লিগ জয় করেছিল রিয়াল। ওদিকে রোনালদোর নতুন ক্লাব জুভেন্টাসকে নিয়েও প্রশংসা ঝরেছে মেসির কণ্ঠ থেকে, ‘রোনালদো জুভেন্টাসে যোগ দেওয়ার পর ওদের শক্তি অনেক বেড়েছে। চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতে যেতে পারে তারা। বিশেষ করে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে ম্যাচটা ওদের অনেক আত্মবিশ্বাস জুগিয়েছে।’

আর্জেন্টিনার জাতীয় দলে ফিরছেন লিওনেল মেসি

Now Reading
আর্জেন্টিনার জাতীয় দলে ফিরছেন লিওনেল মেসি

বিশ্বের সেরা ফুটবলার লিওনেল মেসি অনেক দিন ধরেই তার দেশ আর্জেন্টিনার জাতীয় দলের হয়ে খেলছেন না। গত বিশ্বকাপের পর থেকে জাতীয় দলের হয়ে খেলছেন না লিওনেল মেসি। তবে কোপা আমেরিকার আগেই দুটি প্রীতি ম্যাচে মেসিকে দেখা যাবে, এমনটাই ভাবা হচ্ছিল। কিন্তু শোনা যাচ্ছে, সদ্য চোট থেকে ফেরা মেসি জাতীয় দলের জার্সিতে খেলুন, চায় না বার্সেলোনা।

রাশিয়া বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে ফ্রান্সের বিপক্ষে ম্যাচটিতে সর্বশেষ জাতীয় দলের জার্সিতে খেলেছিলেন লিওনেল মেসি। এরপর আর্জেন্টিনার আকাশি-সাদা জার্সিতে আর দেখা যায়নি তাঁকে। জাতীয় দল থেকে আপাতত স্বেচ্ছা-অবসরে আছেন তিনি।

কিছুদিন আগে সংবাদমাধ্যম জানিয়েছিল কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনার জার্সিতে ফিরবেন তিনি। এর আগে মাঠে নামবেন দুটি আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে। আগামী ২৩ মার্চ আর্জেন্টিনার মুখোমুখি হবে ভেনেজুয়েলা।এই মার্চেই জাতীয় দল আর্জেন্টিনার জার্সিতে ফিরতে যাচ্ছেন লিওনেল মেসি। সবকিছু ঠিক থাকলে আবারো আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরছেন বার্সেলোনার অধিনায়ক।

তবে এখন শোনা যাচ্ছে অন্য খবর, বার্সেলোনা নাকি চায় না সদ্য চোট থেকে ফেরা মেসি দেশের হয়ে খেলতে নামুন।সদ্য চোট থেকে ফিরেছেন মেসি, এখনো শতভাগ ফিট নন। ফিটনেসের অজুহাত দিয়ে মেসিকে আর্জেন্টিনার হয়ে এখনই খেলতে দিতে চাচ্ছে না বার্সেলোনা। বেশ কয়েক ম্যাচ ধরেই মেসি ঠিক তাঁর মতো করে খেলতে পারছেন না। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে গত সপ্তাহে টানা দুটি এল ক্লাসিকো জিতলেও এই দুই জয়ে মেসির তেমন কোনো ভূমিকা ছিল না। প্রথম ক্লাসিকোতে তারা জিতেছে লুইস সুয়ারেজের কৃতিত্বে, পরের ক্লাসিকোর নায়ক ছিলেন ইভান রাকিতিচ। কয়েক সপ্তাহ আগে ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে এক লিগ ম্যাচে ভ্যালেন্সিয়ার স্প্যানিশ লেফটব্যাক টনি লাতোর সঙ্গে বল দখলের লড়াই করতে গিয়ে ঊরুতে চোট পান মেসি। সেই ব্যথা এখনো থেকে থেকে যন্ত্রণা দিচ্ছে তাকে। মাঠে নামলেও নিজের পুরোটা দিতে পারছেন না। খেলায় দেখা যাচ্ছে না সেই পুরোনো ঝলক। তাই বার্সা চাচ্ছে না এই অবস্থায় আর্জেন্টিনার হয়ে গুরুত্বহীন ম্যাচ খেলে চোটের ঝুঁকি বেড়ে যাক মেসির। আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচকে খুব একটা গুরুত্ব দিতে চায় না বার্সেলোনা।
ভেনেজুয়েলা ও মরক্কোর বিপক্ষে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলবে আর্জেন্টিনা। প্রথমটা খেলবে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের মাঠ ওয়ান্ডা মেট্রোপলিটানোতে, আরেকটা খেলবে মরক্কোতে গিয়ে। আর্জেন্টিনার কোচ হিসেবে এ দুই ম্যাচ দিয়ে আনুষ্ঠানিক অভিষেক ঘটবে লিওনেল স্কালোনির। কোপা আমেরিকার প্রস্তুতি হিসেবে এ ম্যাচ দুটি খেলবে আর্জেন্টিনা। ১৪ জুন ব্রাজিলে শুরু হবে কোপা আমেরিকার ৪৬তম আসর।তার ক্লাব বার্সা চাইছে মেসি শুধু প্রথম ম্যাচটি খেলুক। জাতীয় দলের হয়ে মরক্কোর বিপক্ষে তাই হয়তো দেখা যাবে না আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকর মেসিকে।

ভাগ্য বদলে দিতে পারে আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ মিশন!

Now Reading
ভাগ্য বদলে দিতে পারে আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ মিশন!

বিশ্বকাপের ডি গ্রুপের শেষ রাউন্ডের ম্যাচে আজ মুখোমুখি হবে ক্রোয়েশিয়া-আইসল্যান্ড এবং অপর ম্যাচে আর্জেন্টিনা-নাইজেরিয়া। ক্রোয়েশিয়া ইতিমধ্যেই দ্বিতীয় রাউণ্ড এর টিকিট নিশ্চিত করেছে, আইসল্যান্ডের বিপক্ষে শুধু ড্র করলেই তারা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে যাবে। কিন্তু গ্রুপের বাকী তিন দল রয়েছে যারা এখনো অপেক্ষমাণ তালিকায় আছে দ্বিতীয় রাউণ্ডে যেতে। এ নিয়ে দল তিনটির মধ্যে চলছে চুল ছেড়া বিশ্লেষণ, বিশেষ করে আর্জেন্টিনা বেশ বেকায়দায় রয়েছে। তিন দলেরই এখনও সুযোগ রয়েছে নক আউট পর্বে খেলার। তবে এর জন্য স্বয়ং বিধাতাই কেবল পাল্টে দিতে পারেন ম্যাচের চিত্র। এরই মধ্যে আর্জেন্টিনার তিনজন খেলোয়াড় বিগত ম্য্যাচে হলুদ কার্ড পেয়েছে যা তাদের জন্য মোটেও সুখকর নয়। আর্জেন্টিনার অন্যতম তারকা খেলোয়াড় মেসি এখনো দলের ত্রাতা হয়ে নিজেকে প্রমাণ করতে পারেননি, আজকেই তার শেষ সুযোগ নিজের হাতে বিশ্বকাপ ছোঁয়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নের। যেহেতু বিশ্বকাপের অন্যতম দাবীদার আর্জেন্টিনার এই টুর্নামেন্ট হতে বিদায় নেয়ার পথ প্রশস্ত হয়েছে তাই এই ‘ডি’ গ্রুপের প্রতিটা ম্যাচের ভাগ্য নিয়ে সকলের আগ্রহটা কিঞ্চিৎ বেশি বৈকি! সারা বিশ্বের মত বাংলাদেশে রয়েছে অসংখ্য আর্জেন্টিনার সমর্থক, যাদের চোখ আজ রাতে আটকে থাকবে টিভির পর্দায়। সকলের একটাই আশা, যেন সবকিছুর হিসেব চুকে আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপের এই আসরে টিকে থাকে। আর্জেন্টিনাকে দ্বিতীয় রাউণ্ডে উঠতে হলে যেতে হবে এক জটিল সমীকরণের মধ্য দিয়ে। শুধু জিতলেই যে হবে তা কিন্তু নয়, এর জন্য নিজেদের ম্যাচ ছাড়াও চোখ রাখতে হবে গ্রুপের অন্য ম্যাচটির দিকেও। আসুন জেনে নিই কেমন ফলাফল বা দৃশ্যপট তৈরি হলে আর্জেন্টাইন ফুটবলার’রা দেশের পথে বিমান না ধরে রাশিয়াতেই থেকে যাবে নক আউট পর্ব খেলার জন্য…

প্রথমত, নাইজেরিয়ার বিপক্ষে আর্জেন্টিনার জয় ছাড়া বিকল্প নেই।

দ্বিতীয়ত, গ্রুপের অন্য ম্যাচে আইসল্যান্ডকে হারতে হবে ক্রোয়েশিয়ার কাছে।

তৃতীয়ত, আইসল্যান্ড ক্রোয়েশিয়াকে পরাজিত করলেও আর্জেন্টিনার জন্য দ্বিতীয় রাউন্ডে যাবার সম্ভাবনা টিকে থাকবে যদি তারা নাইজেরিয়াকে দুয়ের অধিক গোল দিয়ে পরাজিত করতে পারে।

চতুর্থত, যদি আর্জেন্টিনা এবং আইসল্যান্ড উভয়ই জয়লাভ করে এবং তাদের গোল সংখ্যা যদি সমানও হয়, তবে উভয় দলের শৃঙ্খলা এবং অন্যান্য বিষয়গুলো তখন বিবেচ্য হবে। সেক্ষেত্রে আর্জেন্টিনার সুযোগ তৈরি হতে পারে।

 

আর না হারলেও যে কারণে বিদায় নিতে পারে আর্জেন্টিনাঃ

১. আর্জেন্টিনার বিপক্ষে জয়লাভ করলে নাইজেরিয়া দ্বিতীয় রাউন্ডে যাবে।

২. আইসল্যান্ড যদি ক্রোয়েশিয়াকে পরাজিত না করে তাহলে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে নাইজেরিয়ার কেবল ড্র করলেই দ্বিতীয় রাউণ্ড নিশ্চিত।

৩. আর্জেন্টিনা এবং নাইজেরিয়ার ম্যাচ যদি ড্র হয়, এবং আইসল্যান্ড যদি ক্রোয়েশিয়াকে ২-০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করে, তাহলে আইসল্যান্ড দ্বিতীয় রাউন্ডে পৌঁছে যাবে। সেক্ষেত্রে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে জয় এবং একই সাথে নাইজেরিয়ার চেয়ে একটি গোল বেশি থাকাটাই আইসল্যান্ডের দ্বিতীয় রাউন্ডে পৌঁছার পথ প্রশস্ত করবে।

 

Page Sidebar