ভিন্ন লুকে রংবাজে হাজির শাকিব খান

Now Reading
ভিন্ন লুকে রংবাজে হাজির শাকিব খান

রংবাজ এমন একটি সিনামা যার শুরু হয়েছিল সমলোচনা ও আলোচনা দিয়ে। রংবাজ নিয়ে কম আলোচনা হয় নি। রংবাজ কে কেন্দ্র করেই শাকিব-অপুর বিয়ের খবর মিডায় আসে। আসে তাদের সন্তান আব্রাহাম খান জয়ের নাম। মিডিয়া পাড়া গরম ছিল এনিয়ে। তারপরও রংবাজ থেমে থাকেনি। এরপর আবার আসে বাধা। তাহল কলকাতার অভিনেতা রজতব দত্ত কে নিয়ে। ওয়ারক পার্মিট ছাড়া সে কিভাবে কাজ করে এদেশে। যদিও এনিয়ে আইনতো ভাবে কিছু করার আগেই রজতব দত্তের অংশের শুটিং শেষ করে ফেলে। এরপর আসে শাকিব খানের নিষেধাজ্ঞা। এফডিসি থেকে নিষিদ্ধ করার পরও শাকিব খান কে নিয়ে শুটিং কয়ায় নিষিদ্ধ হয় রংবাজের পরিচালক শামীম আহমেদ রনি। পরবর্তিতে শাকিব এর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলেও। নিষেধাজ্ঞা  বহাল থাকে রনির। এভাবেই একপর এক বাধাকে টপকে শুরু হয় রংবাজের নতুন যাত্রা। পাল্টে যায় মুক্তির তারিখ, পাল্টে যায় পরিচালক । নতুন পরিচালক হয় আবদুল মান্নান। কিন্তু এত কিছুর পরও থামাতে পারে নি রংবাজকে। রংবাজ এগিয়ে গিয়েছে তার নিজের গতিতে। হাজার বাধা পেরিয়ে আসচ্ছে কোরবানির ঈদে মুক্তি পাবে রংবাজ ।

দুদিন আগে মুক্তি পেল রংবাজের ট্রিজার। তাদের অনলাইন পার্টনার লাইভ টেকনোলজি এই ট্রিজার টি অনলাইনে মুক্তি দেয় ।

কি ছিল এই ট্রিজারে ?

পুরো ট্রিজারের দেখা গিয়েছে শাকিব খানের শরীর ভরতি ট্যাটু। কানে ছিল দুল। হেয়ার স্টাইল ছিল অন্য রকম। শাকিব ছাড়া এ ছবির বাকি চরিত্র গুলোর লুক ও ড্রেস আপ ছিল অন্য রকম।  যা আগে কোন বাংলা মুভি তে দেখা যায় নি। শাকিব খানের কেরিয়ারের আগে কোন মুভিতে এরকম লুকে দেখা যায় নি। বাংলাদেশে এরকম মুভি আগে দেখা যায় নি। এই মুভির প্রতিটি চরিত্র ছিল অন্যরকম। বলা যায় যে এই মুভি টা হবে শাকিব খানের অন্যতম সেরা মুভি। মুভিটি তে কলকাতার বিখ্যাত কোম্পানি শ্রী ভিক্টর লগনি করেছে। তারা এই প্রথম বাংলাদশের মুভিতে লগনি করল।

রংবাজের গল্প লিখেছে পেলে এবং সংলাপ লিখেছেন পেলে ও আব্দুল জহির।  সম্পূর্ণ মৌলিক গল্পের মুভি । মুভি তে দেখা যায় সাল্লু ( শাকিব খান ) এর মা           ( নতুন ) চায় যে তার ছেলে রংবাজ হবে  বংশের নাম উজ্জ্বল করবে, সে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় রংবাজ হবে। সাল্লু সেই কথা রাখে। সে হয় রংবাজ । কিন্তু সে বুবলির ( বুবলি ) প্রেমে পড়ে হয়ে যায় প্রেমবাজ । এগুলাই দেখা যায় ট্রিজারে। এ ছবির ভিলেন হল অন্যরকম ভিলেন ( অমিত হাসান ) । সে হল রবিন্দ্রপ্রেমি ভিলেন। খুন খারাপি যাই করুক তার মুখে থাকে রবিন্দ্রনাথের কবিতা। পুরো গল্প যান্তে হলে হলে গিয়ে মুভিটি দেখতে হবে।

মুভির গান গুলোর লোকেশন অসাধারন। এই প্রথম বাংলাদেশের মুভির শুটিং হয় সুইজারল্যান্ড ও ইতালি। ট্রিজারে গান গুলোর অংশ বিশেষ দেখে বুজা যাচ্ছে যে, গান গুলো হবে অনেক সুন্দর। গানগুলো লিখেছেন প্রাসেন ও ঋদ্ধি। গানগুলোর সংগীত পরিচালক স্যাভি, গান গেয়েছেন অরিজিৎ সিং, সান ও অংকিত ।

ফাইট সিন গুলো ছিল অসাধারণ। রংবাজের ফাইট ডিরেক্টর হলঃ জুদ রামু।

বুলির ৪র্থ মুভি এটি। বুলির অভিনয় আগের চেয়ে উন্নত মনে হল ট্রিজার দেখে। এছাড়া নতুন এর অভিনয় ছিল দেখার মত। একজন রংবাজের মার যেই রূপ হয় উচিৎ নতুন কে সেই রুপেই দেখা গেছে। এছাড়া কাজি হায়াতের কমেডি চরিত্র ভাল ছিল। চিকন আলীর একবারে ভিন্ন একলুক। যা আগে দেখে নি কেউ। রংবাজের শুটিং থেকে ডাবিং সবেই শেষ।

রংবাজে  এখন মুক্তির অপেক্ষায়। রংবাজ নিয়ে দর্শকের আগ্রহের শেষ নেই। এই রংবাজ একমাত্র মুভি যেখানের প্রত্যেকটি চরিত্র লুক থাকবে আলাদা। আর সেই লুক গুলায় আগে কেউ তাদের দেখেনি। পরিচালক তার মন দিয়ে ও মেধা দিয়ে করেছে। এই ছবির জন্য শাকিব তার হেয়ার স্টাইল পরিবর্তন করেছে।

এই মুভি নিয়ে যা যা হয়েছে,

এই মুভির প্রথম নাইকা হবার কথা ছিল অপু বিশ্বাসের। কিন্তু না না জামেলার কারণে হয় নাই। এখন নাইকা বুবলি। শাকিব খান নিষদ্ধ হবার পর তাকে নিয়ে মুভি বানানোর জন্য নিষদ্ধ রনি। আসলো নতুন পরিচালক মান্নান। এই মুভি দিয়ে বাংলাদেশের মুভিতে লগনি শুরু করল কলকাতার বিখ্যাত প্রোডাকশন শ্রী ভিক্টর। এই মুভিতেই প্রথম কোন রবীন্দ্র প্রেমী ভিলেন দেখা যাবে।

রংবাজে শাকিব খান,

এর আগে আমরা শাকিব খান বিভিন্ন লুকে দেখেছি। শাকিব খান এর আগে সন্ত্রাসী চরিত্রে অভিনয় করেছে । কিন্তু রংবাজে এ এক ভিন্ন শাকিব। কারণ এই প্রথম তাকে দেখা যাবে এই লুকে। গা ভরতি ট্যাটু, থ্রি-কোয়াটার জিন্স, লং গ্যাঞ্জি, গোলায় এক গোছা চেন। এই ধরণের লুকে শাকিব খান আগে দেখা যায়নি এবং কি আগে কোন নায়ক কে এই লুকে দেখা যায় নি বাংলা মুভিতে। যারা মনে করে শাকিব খানের লুক শুধু কলকাতার পরিচালকরা পরিবর্তন তাদের বলছি রংবাজ দেখুন। তাহলে বুঝবেন এদেশের পরিচালকরাও তার ভিন্ন লুক আনতে পারে ।

শাকিব বুবলি জুটির ৪র্থ মুভি এটি। এর আগে বসগিরি, শুটার ও অহংকার মুভিতে অভিনয় করে এই জুটি। আগের ঈদে এই জুটির বসগিরি সিনামাটি ভালই সারা পায়। তাই রংবাজ টিম আসা করছে, যে  এই মুভিও দর্শক সারা পাবে। তাই তো ট্রিজারের শেষে রংবাজ দেখার আমন্তন যানান শাকিব।

শুভ কামনা রইল রংবাজের জন্য।