চরিত্রহীন সুলতান

Now Reading
চরিত্রহীন সুলতান

ব্রুনাই দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার একটি রাষ্ট্র। এটি একটি রাজতান্ত্রিক ইসলামী দেশ। ব্রুনেইয়ের সুলতান হাসানাল বোলখিয়া। ৭২ বছর বয়সী এই শাসক দীর্ঘ ৫২ বছর ধরে ব্রুনেইয়ের রাষ্ট্রক্ষমতায় অধিষ্ঠিত আছেন। ইতিহাসে এত দীর্ঘ সময় ধরে তার আগে রাষ্ট্রক্ষমতায় আছেন শুধু ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। সুলতান হাসানাল বোলখিয়া ভোগ-বিলাসের জীবনযাপন করে যাচ্ছেন।
২০১৪ সালে ব্রুনেইয়ে শরিয়াহ আইন চালু করেছেন দেশটির এ শাসক। নিজে যৌনবিলাস আর অসৎকর্মে লিপ্ত থেকে এ আইন চালু করায় তার বিরুদ্ধে চলছে সমালোচনা।
আর এসব আলোচনায় উঠে এসেছে সুলতানের নানা কুকর্মের কথা। জানা গেছে, সুলতানের রাজপ্রাসাদেই নাকি রয়েছে একাধিক ‘হেরেম (রাজকীয় পতিতালয়)’ , যেগুলোতে রয়েছে বিশ্বের নানা দেশ থেকে আনা সুন্দরী যৌনদাসীরা।
সুলতানের যৌনবিলাস ও হেরেমের খবর প্রথম প্রকাশ্যে আসে ১৯৯৭ সালে। সে বছরের মিস যুক্তরাষ্ট্র নির্বাচিত হওয়া শ্যানন মার্কেটিক মার্কিন আদালতে অভিযোগ করেছিলেন সুলতানের বিরুদ্ধে।
তিনি জানান, যৌনতার জন্য প্রতিদিন তিন হাজার ডলারের বিনিময়ে ব্রুনেইয়ে নেয়া হলেও যৌনদাসীর মতো করে তাকে ব্যবহার করেছেন সুলতান।
এ ছাড়া ২০১০ সালে ব্রুনেই রাজপ্রাসাদের হেরেমে (রাজকীয় পতিতালয়) থাকার অভিজ্ঞতা রয়েছে মার্কিন লেখিকা জুলিয়ান লরেনের। ব্রুনেইয়ের সুলতানের ব্যক্তিগত সম্পদের পরিমাণ ২৭ দশমিক ৭ বিলিয়ন ডলার। বিশ্বের সবচেয়ে সম্পদশালী শাসকদের একজন তিনি। বিপুল সম্পদ আর ভোগবিলাসে লিপ্ত থাকা ব্রুনেইয়ের সুলতানের রয়েছে প্রাইভেট জেট বিমানের বহর।
উত্তারাধিকার সূত্রে বাবার কাছ থেকে পাওয়া এই ক্ষমতায় নিজের একচ্ছত্র আধিপত্য ব্রুনেইয়ের এই সুলতানের। সুলতান হাসানাল বোলখিয়া ব্রুনেইয়ের সব ক্ষমতার একচ্ছত্র অধিপতি। তিনিই দেশটির সর্বোচ্চ ইসলামিক নেতা।
একাধারে তিনি দেশটির প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী, পররাষ্ট্র ও বাণিজ্যমন্ত্রী। শুধু তাই নয়, সুলতান হাসানাল বোলখিয়া ব্রুনেইয়ের সুপারিন্টেন্ড্যান্ট অব পুলিশ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী এবং কমান্ডার অব দি আর্মড ফোর্সেস। এমনকি ব্রুনেইয়ের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরও তিনি।