বাঘের গর্জনে নিউজিল্যান্ড এর হার

Now Reading
বাঘের গর্জনে নিউজিল্যান্ড এর হার

বাংলাদেশের এই প্রথম বিদেশের মাটিতে নিউ জিল্যান্ড কে হারানো । এই জয় শুধু ১১ জন খেলোয়াড়ের জন্য নয় এই জয় বাংলাদেশের ১৭ কোটি জনগণের ।

bd vs nz

New Zealand

আজ বাংলাদেশ দুইটি চ্যালেঞ্জ নিয়ে খেলতে নেমেছে । প্রথমটি হলো নিউ জিল্যান্ড কে হারিয়ে শীর্ষ ৬ য়ে উঠে আসা । সেই সাথে বিদেশের মাটিতে প্রথম নিউ জিল্যান্ড কে হারিয়ে জয়ের স্বাদ পাওয়া । আজ বাংলাদেশ তাদের পরিকল্পনা মতো কাজ করতে পেরেছে বলে তাদের কাছে জয় ধরা দিয়েছে । মাশরাফির নেতৃত্বে বাংলাদেশ একের পর এক জয় পেয়ে চলছে । সেই সাথে হাতুড়ে সিংহ যেমন বিতর্ক জন্ম দিয়েছে সেই সাথে একের পর এক দল কে জয় পাইয়ে দিতে রাখছে অসামান্য ভূমিকা ।

নিউ জিল্যান্ডকে হারিয়ে বাংলাদেশের ২ পয়েন্ট বেড়ে গিয়ে হয়েছে ৯৩ পয়েন্ট । শ্রীলংকা ও একই পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশের নিচে অবস্থান করছে । কারণ বাংলাদেশ দশমিক পয়েন্ট এ এগিয়ে আছে শ্রীলংকা থেকে । এই জয়ের সাথে সাথে সরাসরি বাংলাদেশ প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেছে ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ খেলা । আর এই সাথে ১০০% কনফিডেন্স নিয়ে চ্যাম্পিয়ন ট্রফির জন্য প্রস্তুতি সারলো বাংলাদেশ । ঘরের মাঠে যেমন বাংলাদেশ ভয়ঙ্কর ঠিক বাহিরের মাঠিতে আস্তে আস্তে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে বাংলাদেশ ।

এখন ফিরে আসি আজকের ম্যাচের কথায়। আজকের ম্যাচের শুরুতে হানা আনে বাংলাদেশের অন্যতম বোলার ও ম্যান অফ দা সিরিজ মুস্তাফিজুর রহমান ওরফে দি ফিজ । আজ বাংলাদেশ জিতলেও তাদের ছিল অসংখ্য ভুল । বাজে ফ্লিডিং সেই সাথে ক্যাচ মিসের মহড়া। প্রথম বল মাশরাফির ওভারে নাসিরের ক্যাচ মিস দিয়ে শুরু আর শেষের ওভারে রুবেলের বলে মাহমুদউল্লাহ ক্যাচ মিস দিয়ে শেষ হয় আর মাঝে তো রান আউট এর অনেক সম্ভাবনা কাজে লাগাতে পারেনি বাংলাদেশ ।

নিউ জিল্যান্ড তাদের ২য় উইকেটে করেন ২৮ ওভারে ১৫৮ রান । এই জুটি ভাঙেন অনেক দিন পর ডাক পাওয়া নাসির হোসেন । ডাক পেয়ে তিনি তার জাত চিনিয়ে দেন । ব্রুম কে ফিরিয়ে রানের লাগাম টেনে ধরেন নাসির হোসেন । আবার ঠিক তার পরের ওভারে ফিরিয়ে দেন এই নাসির । ল্যাথাম অফ এর বল পিছনের পায়ে ভর দিয়ে খেলতে চেয়েছিল যার দরুন ব্যাটের কানায় লেগে কিছুটা পায়ে লেগে উইকেটে লাগে বল আর সেই সাথে ৮৪ রান করে ফিরে যান প্যাভিলিয়নে ।

সাকিবের বল হাওয়ায় ভাসিয়ে খেলতে গিয়ে আউট হন অ্যান্ডারসন । ক্যাচ লুফে নেন মাহমুদউল্লাহ । মাত্র ২৪ রান করে ফিরে যান এই ব্যাটসম্যান । তখন দলীয় রান ২০৮/৪ । মাত্র ৬ রানে মাশরাফি ফিরিয়ে দেয় নিশামকে । আর সেই সাথে খেলার লাগাম টেনে ধরে বাংলাদেশ । দলের তখন ২২৪/৫ । স্যান্টনার ০ রানে ফিরিয়ে দিয়ে নিজের বেক্তিগত ২য় উইকেট এর মালিক হন সাকিব আল হাসান । ব্যাটের কানা দিয়ে গিয়ে সজোরে স্টাম্পে হানা দেয় ।৪৪ তম ওভারে মাশরাফির বলে আউট হয়ে যান মানরো । উইকেটের খাতায় নাম লেখান রুবেল হোসেন । রুবেলের বলে বোল্ড হয়ে যান হেনরি । ৫০ ওভার শেষে তাদের রান গিয়ে দাঁড়ায় ২৭০/৮ ।

বাংলাদেশের সামেন খুব একটা বড় রান এইটা মনে হলো না তাদের দেহের ভাষা ছিল খুব পজিটিভ । তামিম যখন ব্যাট করতে নামলেন ঠিক প্রথম ওভারের প্রথম বলে প্যাটেলের বলে ছয় মেরে এক দারুন সূচনার ইঙ্গিত দেন । কিন্তু একই ওভারের ৩য় বলে সৌম সরকারে শুনো রানে আউট যেন বাংলাদেশকে বিপদের মুখে নিয়ে যাবে সেই রকম ইঙ্গিত দিচ্ছিলো । কিন্তু তামিম ও সাব্বির রহমান এর ব্যাটিংয়ে সেই ভয় কেটে যায় অনেকটা । তাদের ব্যাটিং নৈপুণ্যে বাংলাদেশ পায় প্রায় ১৩৬ রানের জুটি । ১৪৮ রানে ফিরে যান অর্ধ শতক করা তামিম ইকবাল । তখন বাংলাদেশ সেভ পজিশনে । ঠিক তামিম এর বিদায়ের পর সাব্বির একই পথে হেটে গেলো । রান আউট এর ফাঁদে পরে ফিরে গেলেন । সাব্বির আর মোসাদ্দেক এর ভুল বোঝাবুঝির কারণে আউট হন সাব্বির রহমান । দল তখন খুব চাপে ।

এই চাপ আরো বাড়িয়ে দেন মোসাদ্দেক । আজ উপরের দিকে ব্যাট করতে আসেন তিনি। নিজেকে প্রমান করতে পারেনি । অফ এর দিকে বাক খাওয়া বল পিছনের পায়ে ভর করে ফেলতে গিয়ে এলবিডাব্লিউ এর ফাঁদে পরে যান তিনি । তখন দলের রান ৩০ ওভারে ১৬১ চার উইকেটে । ক্রিজে তখন মুশফিক ও সাকিব আল হাসান । কিন্তু আজও নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি বিশ্বের এক নম্বর অল রাউন্ডের সাকিব আল হাসান । মাত্র ১৯ রান করে ফিরে যান এই বা হাতি ব্যাটসম্যান । দল তখন পিছিয়ে ৭১ রান ১১ ওভারে ।

ক্রিজে নামেন মাহমুদউল্লাহ । তার সঙ্গী মুশফিক । দুই ভায়রা ভাই থেকে আজ দল যেমনটা চেয়ে ছিল ঠিক তেমন টাই দল কে দিয়েছেন । দল কে জয় দেখিয়ে মাঠ ছাড়েন এই দুই খেলোয়াড় । মুশফিক ৪৫ ও মাহমুদউল্লাহ ৪৬ রানে অপরাজিত থেকে বাংলাদেশ কে জয় উপহার দেন ।

মাহমুদউল্লাহ

one of the match wiener

আর এই জয়ের সাথে বাংলাদেহ উঠে আসে রাঙ্কিং এর ৬ । আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর এর আগে পুনরায় প্রকাশ পাবে রাঙ্কিং । যদি বাংলাদেশ ৬ এ থাকে তাহলে সরাসরি খেলতে পারবে বিশ্বকাপ ।

আজ বাংলাদেশের মানুষ দেখলো এক অসাধারণ ম্যাচ ।

বাংলাদেশ দলকে অভিন্দন ফুটপ্রিন্ট এর পক্ষ থেকে । জয়তু বাংলাদেশ ।