রমজান মাসে খেজুর খাওয়ার উপকারিতা

Now Reading
রমজান মাসে খেজুর খাওয়ার উপকারিতা

images(2).jpg

রমজান মাস চলছে। সারাদিন সিয়াম সাধনা করে, রোজা রেখে সূর্যাস্তের পর কিছু মুখে দেয়া। এটাই রমজান মাসের নিয়ম। যুগ-যুগ ধরে দেশে দেশে রমজানে খেজুর খাওয়ার রীতি আছে। কেন সবাই রোজা ভাঙার সময় ইফতারিতে খেজুর খায়? এর পিছনেও রয়েছে বৈজ্ঞানিক কিছু যুক্তি। দেখুন খেজুর খাওয়ার উপকারিতা নিয়ে কিছু বৈজ্ঞানিক যুক্তি।

১.এনার্জি: খেজুরে পুষ্টিগুণ প্রচুর।সুগারের পরিমান এত বেশি থাকে যে এক কামড়ে অনেক বেশি এনার্জি পাওয়া যায়। খেজুরের মধ্যে আয়রন,পটাশিয়াম, ক্যালশিয়াম,ফাইবার,গ্লুকোজ,ম্যাগনেশিয়াম,ও সুক্রোজ থাকে।যেকারনে খেজুর খাওয়ার ৩০ মিনিটের মধ্যে শরীরে এনার্জি বৃদ্ধি পায়। সারাদিন রোজা রেখে শরীরে ক্লান্তি দূর করে এনার্জি জোগাতে খেজুরের তুলনা অপরিহার্য।

এসিডিটি: উপোষ করলে সাধারণত এসিডিটি হয়।যার ফলে অস্বস্তি হতে থাকে। খেজুর শরীরে এসিডের মাত্রা কমিয়ে শরীরের অস্বস্তি কমায়।

৩.বেশি খাওয়া: সারাদিন না খেয়ে রোজা রেখে খাওয়ার সময়,অনেকের বেশি খাওয়ার প্রবণতা দেখা যায়। তাই খেজুর খেয়ে ইফতারি শুরু করলে এরমধ্যে থাকা কার্বোহাইড্রেটহজম হতে বেশি সময় নেয়।ফাইবার থাকার কারনে পেট ভরা লাগে। তাই বেশি খাওয়ার আগেই পেট ভরে যায়। তাতে আপনার শরিরের জন্য উপকার হয়।

হজম:- অনেক্ষন না খেয়ে থাকলে তা পৌষ্টিকতন্ত্রের কার্যকারিতায় ব্যাঘাত ঘটায়। কোষ্ঠকাঠিন্য ও হতে পারে। তাই খেজুর খেলে আপনার সে সমস্যা দূর হবে।

তাছাড়া আরো অনেক পুষ্টিগুনে ভরা খেজুর।।