উন্নয়নে নারী শক্তির ভূমিকা

Now Reading
উন্নয়নে নারী শক্তির ভূমিকা

নারী শক্তি !!!
একটি সময় ছিল যখন নারীকে কেবল গৃহ খাদ্য সহায়ক আর শিশু লালন পালন কারী হিসেবে ই দেখা হতো ; কিন্তু এই প্রচলিত ধারণা আজ বদলে গেছে আর তা কেবল সম্ভব হয়েছে নারী সচেতনতার ফলেই | দিনে দিনে নারী নিজেকে বদলে ফেলেছে সময়ের প্রয়োজনে আর এই শক্তি ও সাহস কে কাজে লাগিয়ে নারী তার নিজের এবং দেশের প্রয়োজন মিটিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ও অনেক পরিচিতি লাভ করছে | নারীর এই সফলতার পেছনে লুকিয়ে আছে অনেক ব্যর্থতার গল্প আর নারী তার সকল ব্যর্থতাকে সফল করেছে তার ভেতরে থাকা শক্তিকে কাজে লাগিয়ে | একজন নারীকে তার পুরুষ সকর্মীর তুলনায় অনেক বেশি কর্মঠ হয়ে কাজ করতে হয় ; দ্রুত চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি নিকট ভবিষ্যৎ চাহিদা মেটানোর জন্য সদা প্রস্তুত থাকতে হয় | নারীকে তার সেরাটা দেবার জন্য সবসময় যুক্ত হতে হয় বর্তমান প্রযুক্তির সাথে ; একদিকে বর্তমান চাহিদা অন্যদিকে গতানুগতিক গৃহ পরিচালনা এই দুটোর মাঝে এক পরিপূর্ণ ভারসাম্য এনে তবেই এগুতে হয় | বর্তমানে বাংলাদেশী নারীরা দেশীয় ও আন্তর্জাতিক কোম্পানিতে ভালো অবদান রাখছে তাদের কাজের মাধ্যমে আর তা কেবল সম্ভব হচ্ছে তার ভেতরে থাকা শক্তি আর স্বপ্নকে কাজে লাগানোর মাধ্যমে | গতানুগতিক গৃহ সমস্যা ছাড়াও কর্মক্ষেত্রে ও নারীকে অনেক বাধা মোকাবেলা করে কাজ করতে হয় ; পুরুষ সহকর্মীর বেঁধে দেয়া প্রতিবন্ধকতা মোকাবেলা করে ও নিজেকে একজন সফল কর্মী হিসেবে গড়ে তুলতে নারীর ভেতরের লুকানো শক্তি অনেক কার্যকর ভূমিকা পালন করে | একজন পুরুষ কর্মীর তুলনায় একজন নারী কর্মীকে অনেক বেশি ভাবতে হয় আর এই ভাবনার বিষয় জুড়ে থাকে একজন নারীর পারিবারিক এবং তার সামাজিক জীবন আর এই দুটোর মাঝে পরিপূর্ণ সমতা আনাটাই একজন নারীর ভেতরে থাকা শক্তির বাস্তব প্রতিফলন |
একটু সহযোগিতা, ভালো পরার্মশ, ভালো ব্যবহার এগিয়ে নিতে পারে নারীকে তার ভেতরে থাকা শক্তি আর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে ;আর এর মাধ্যমে পরিবার,দেশ, জাতি ও উপকৃত হতে পারে | নারীকে তার জন্মের পর হতে জীবনের প্রতিটি অধ্যায় পারি দিতে হয় অনেক প্রতিবন্ধকতায় ; আর সকল কিছু জয় করা সম্ভব হয় নিজের ওপর বিশ্বাস আর নারীর নিজের ভেতর লুকানো শক্তি কে কাজে লাগিয়ে | গৃহ ক্ষেত্রে নারীকে একজন ভালো স্ত্ৰী হতে হয় , ভালো মা হতে হয় আর কর্ম জীবনে একজন ভালো কর্মী হতে হয় | আর এ সব কিছুই সম্ভব হয় অনেক ত্যাগ আর ব্যক্তি স্বাধীনতার বিসর্জন দিয়ে | একজন নারীকে তার সকল কাজে একজন পুরুষের তুলনায় অনেক বেশি প্রমান করতে হয় আর এই কারণে বার বার নিজেকে যোগ্য করে তুলতে হয় | একজন নারীকে যোগ্য করে তুলতে হলে তার ভেতরে লুকিয়ে থাকা শক্তির পাশাপাশি পারিপার্শ্বিক সহযোগিতা অনেক অবদান রাখতে পারে | প্রতিটি ধর্মেই নারী জাতিকে অনেক মর্যাদা প্রদান করা হয়েছে এবং তাদের প্রতি সন্মান অক্ষুন্ন রাখতে বলা হয়েছে | নারীর প্রতি যথাযথ সন্মান নারীকে তার দায়িত্ব পালনে আরো বেশি ত্বরান্বিত করেছে | ইসলামের প্রাথমিক যুগে বিবি খাদিজা (রা:) অনেক ভূমিকা পালনে সক্ষম হয়েছেন তার প্রতি প্রিয় নবীর বিনয়ী ব্যবহার, শ্রদ্ধা আর ভালোবাসার জন্যই | নারীর প্রতি যথাযথ সন্মান তার ভেতরে থাকা শক্তিকে জাগাতে সহায়তা করে | আর এসবের প্রমান স্বরূপ বর্তমান সময়ে অনেক নারী তার নিজেকে তুলে ধরেছেন অনেক উঁচু পর্যায়ে | তাদের মধ্যে আছেন দেশের প্রধান মন্ত্রী, মাননীয় স্পিকার, বিভিন্ন ফ্যাশন হাউস উনার, প্রজেক্ট উনার, ওমেন চেম্বার অফ কমার্স ইন্ডাস্ট্রি প্রফেশনাল ব্যাক্তিত্ব এছাড়াও বর্তমানে নারীরা পর্বত পারি দিতে ও সক্ষম হচ্ছে শুধু মাত্র তাদের নিজ শক্তিকে কাজে লাগিয়ে | আধুনিক তথ্য প্রযুক্তিতে নারীকেই রোবটিক আইকন হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে ; এসবের পাশাপাশি দেশে বিদেশে খেলা-ধুলা ও বেশ এগিয়ে আছেন নারীরা | ফুটবল, ক্রিকেট, বাস্কেটবল, সাঁতার সকল ক্ষেত্রেই বর্তমানে নারীরা অনেক সফলতা অর্জন করছে এক কথায় ঘর হতে বাহির সব খানেই নারী সফল শুধু তার ভেতরের লুকায়িত শক্তি সাধনার ফলেই | একজন নারীকে যোগ্য ও প্রতিষ্ঠিত করে তুলতে দেশ ও জাতিকে এগিয়ে আসতে হবে ;নারীর ভেতরে থাকা শক্তির উপযুক্ত ব্যবহার করতে আনুষঙ্গিক উপাদান গুলো সক্রিয় করে তুলতে হবে | সরকারি ও বেসরকারিভাবে সকল সহায়ক উদ্যোগ নিতে হবে | আধুনিক তথ্য ও প্রযুক্তি এবং যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজলোভ্য করে গড়ে তুলতে হবে | একজন নারী যাতে তার পরিবারকে সামলে কর্মস্থলে তাকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারে তার ব্যবস্থা করতে হবে | উন্নত দেশের মতো আধুনিক শিশু পরিচর্চা কেন্দ্র গড়ে তুলতে হবে ; অর্থাৎ নারীকে তার ভাবনার পরিধিকে বহুদূর পর্যন্ত প্রসারিত করতে সুযোগ করে দিতে হবে তাকে তার গতানুগতিক গৃহ পরিবেশ থেকে বের হতে সহায়তা করতে হবে ; নারীকে তার নিজ যোগ্যতার উপযুক্ত ব্যবহার জানতে সাবলম্বী করে গড়ে তুলতে হবে আর এসবের মধ্যে দিয়ে একটি দেশ ও জাতি আরো সামনে এগিয়ে যেতে পারবে | এবং সেই সাথে একজন নারী তার ভেতরের শক্তিকে যথাযথভাবে কাজে লাগাতে পারবে ও নারী তার নিজেকে এক সাবলম্বী নারী হিসেবে আবিষ্কার করতে সক্ষম হবে |