সমসাময়িক চিন্তা
Now Reading
আপনি কি ধর্ষণ করতে চান?
1535 251 4

আপনি কি ধর্ষণ করতে চান?

by MasudRanaJune 13, 2017
What's your reaction?
লাইক ইট!
100%
FUNNY
0%
Sad
0%
Boring
0%

কিছু দিন আগে বনানীর রেইনট্রি হোটেলে দুই মেয়েকে আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে ও তার বন্ধুরা মিলে ধর্ষণ করে। আপনার কি মনে হয়নি ঐ মেয়ে দুইটির পোষাক ঠিক ছিল না? তাদের এতো রাতে বাহিরে যাওয়া উচিত হয়নি? আপনার যদি এই দুইটি প্রশ্নের উত্তর না হয়ে থাকে তাহলে আপনি সফল ভাবে ধর্ষণ করলেন এবং ধর্ষক হিসেবে এখন থেকে আপনি পরিচিতি পাবেন। ধর্ষক পরিচয় পাওয়া তো আবার অনেক বড় ব্যাপার আপনাকে নিয়ে অনেক লেখা লেখি হবে,পুলিশ এর অনেক আদর আপ্যায়ন পাবেন, আপনাকে নিয়ে অনেকেই তাদের বক্তব্য প্রকাশ করবেন আপনার চরিত্র ফুলের মত পবিত্র। কিন্তু আপনি এমন এক ধর্ষণ করলেন যার কোন প্রমাণ নেই, আপনার আশে পাশের কেউ কিছু জানলো না, আপনার জন্য কেউ একটু তো লেখা লেখি করলো না। আপনি একজন  ধর্ষককে সমর্থন করার মাধ্যমে, ঐ মেয়ে দুটিকে আপনি নিজেও ধর্ষণ করেছেন। আপনি একজন ধর্ষক।
গতকাল (১১ ই জুন) ফেসবুকের নিউজ ফিডটা দেখছিলাম হঠাৎ করে চোখের সামনে ভেসে উঠল ইফতারে ডেকে নিয়ে ৮ বছরের একটি নিষ্পাপ মেয়েকে  ধর্ষণ করার একটা খবর। মুহূর্তের মধ্যে নিজের শরীরটা কেমন যেন শিউরে উঠল। এই ছোট বাচ্চা মেয়েটির শরীর কি ভেবে একজন পঞ্চাশোর্ধ্ব নরপশু তার যৌন ক্ষুধা মেটানোর জন্য এই কাজ করল? একবারও কি তার ভিতরে মনুষ্যত্ব বোধ জাগলো না? আসলে তারই বা কি দোষ? প্রতিদিন এভাবে হাজারো মেয়েকে ধর্ষণ করা হচ্ছে কারোরই তো বিচার হয় না তাছাড়া আপনাদের মতো অনেকেই রয়েছে যারা এই ধর্ষকদের সমর্থন করে যাচ্ছেন। আপনি যদি এই ঘৃণিত কাজের ভিক্টিমকে দোষারোপ করার জন্য নানা অজুহাত দেখান তাহলে আপনি এই বাচ্চা মেয়েটিরও দোষ খোজা শুরু করবেন। সে কেন গিয়েছিল অন্যের বাসায় ইফতার করতে? তার বাবা মা কেন সেখানে পাঠিয়েছিল? এই সব প্রশ্ন করতে  আপনি হয়তো দ্বিধা বোধও করবেন না।
ইফতার প্রত্যেক মুসলিমদের কাছে অতি প্রিয় একটি মুহূর্ত। মহান আল্লাহ তা’আলার সন্তুষ্টি লাভের আশায় সারাদিন রোজা রেখে, নিজেকে সংযম রেখে অতি আগ্রহের সাথে আমরা অপেক্ষা করি ইফতার করার জন্য। কিন্তু এক পঞ্চাশোর্ধ্ব বয়স্ক মুসলিম নামধারী পশু এই ইফতার এর মতো পবিত্র জিনিস কে কলঙ্কিত করে ফেলেছে। আপনি একজন মুসলিম হিসেবে ভাবুনতো এটা আপনার কাছে কেমন লেগেছে? ইফতার করার কথা বলে, একটি নিষ্পাপ শিশুকে ধর্ষণ করার মত আর ঘৃণিত কাজ আর কি হতে পারে?

আমাদের সমাজে আবার এইসব কুলাঙ্গার, নিকৃষ্ট ধর্ষকদের দ্বারা যারা ক্ষতিগ্রস্থ হয় তাদেরকে এমন একটি শব্দে সংজ্ঞায়িত করে যার মাধ্যমে তাদের মনে করিয়ে দেই সে একজন ধর্ষিতা । তাকে বার বার ধর্ষিতা বলে আমরা তাকে কি মনে করিয়ে দিতে চাই? কিভাবে সেই নরপশুরা তার উপর বর্বর অত্যাচার করেছিল? কিভাবে সে চিৎকার করে সেই পশুদের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য? তারা একটি ঘটনার “ভিক্টিম”, একটি নিকৃষ্ট ঘটনার “ভিক্টিম”। তাকে বার বার ধর্ষিতা বলে হেয় করার অধিকার আমাদের নেই।

আমাদের সমাজে একদল মানুষ অন্য কেউ ধর্ষণ করেছে এটা জেনেও তাকে নগ্ন ভাবে সমর্থন করার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে যায়। যেই মেয়েকে ধর্ষণ করা হয় তার কি ভুল ত্রুটি ছিল, সে কোন ধরণের কাপড় পড়েছিল? তার সাথে কে ছিল? সে কি করে না করে সব কিছুতে আঙুল দিয়ে তার উপর দোষ চাপিয়ে দিতে সামান্যতম দ্বিধা বোধ করি না। তাকে সবার সামনে তুলে ধরি “ বেশ্যা” চরিত্রের কোন নারী।  ছি! এটা লেখতেও নিজের উপর ঘৃণা চলে আসে। সমাজের এই সব লোকগুলো ঐ মেয়েকে তার দোষ গুলো ধরিয়ে দিয়ে  সেই মেয়েকে ধর্ষণ করা জায়েজ বানিয়ে দেয়। ধর্ষকদের চরিত্র গুলোকে মহান বানিয়ে তোলে। তাদের সভ্য আচরণ কে খণ্ডনের জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। একবারও কি তারা যাদের পক্ষ নিয়ে কথা বলছে তাদের কথা চিন্তা করে না যে তারা কত জঘন্য কাজের সমর্থন করে যাচ্ছে? আজ আপনি হয়তো এইসব ধর্ষক দের খুব সুন্দর ভাবে সমর্থন করে যাচ্ছেন কিন্তু আপনি হয়তো খেয়াল করছেন না আপনার সন্তানরা বড় হচ্ছে। আপনার একটি সুন্দর কোমল মেয়ে সন্তান রয়েছে যাকে আপনি অনেক ভালোবাসেন। ঐ নরপশু দের সমর্থন করার আগে আপনার মেয়ের কথা একবার অন্তত চিন্তা করেন। ভবিষতে কোন এক জরুরী কাজে আপনার মেয়ে রাস্তায় বের হয়েছে কিন্তু কিছু বিকৃত মস্তিষ্কের মানুষের হাতে  পড়ে তখন কি করবেন আপনি? তখন ও কি আপনি ওইসব পশুদের পক্ষ নিবেন? আপনার মেয়ে যেন আগামীকাল সুস্থ সুন্দর ভাবে বাসায় ফেরত আসতে পারে তার জন্য এই সব পশুদের বিপক্ষে অবস্থান গ্রহন করুন। ধর্ষকদের প্রতি আপনার সমর্থন যেন রাস্তায় হাঁটার সময় কোন মেয়ে আমার দিকে সন্দেহের সৃষ্টি না করে সেই অনুরোধ রইল।

আসলে কোথায় যাচ্ছি আমরা?  আমরা কি আদৌতে সভ্য হচ্ছি? আজ ৮ বছরের বাচ্চাটি ধর্ষণ হল এর আগে তনু ধর্ষিত হল, গাজীপুরে ১১ বছরের মেয়েটি যার বাবা বিচার এর জন্য ১০০০ টাকা না দিতে পেরে মেয়েকে নিয়ে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিলো, অথবা আগামীকাল অন্য কেউ ধর্ষণ  হবে। কবে দেখবো এই এই জঘন্য ধর্ষণ এর উপযুক্ত শাস্তি? কবে পাবো এদের বিচার? আর কত ধর্ষণ হলে টনক নড়বে প্রশাসনের? আমাদের স্বাধীন সোনার বাংলাদেশে একদিন কোন মেয়ে এই নরপশুদের ভয়ে রাস্তায় বের হতে ভয় পাবে না, এটাই আমার বিশ্বাস।

 

বি.দ্রঃ এই লেখা সেই সকল মানুষদের জন্য যারা ধর্ষকদের পক্ষে কথা বলে এবং আমাদের ওই সকল বোনদের পোশাক নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করে

About The Author
Muhammad Masud Rana
MasudRana

I’m a shadow.

You must log in to post a comment