Now Reading
ভালবাসার ফেরিওয়ালা – সিরিজ -১ম – পর্ব -১ম
1115 157 0

ভালবাসার ফেরিওয়ালা – সিরিজ -১ম – পর্ব -১ম

by Rohit Khan fzsJune 15, 2017
What's your reaction?
লাইক ইট!
100%
FUNNY
0%
Sad
0%
Boring
0%

ভার্সিটির প্রথম ক্লাস । ক্লাসের ভেতরে ঢুকতে কেমন যেন লজ্জা লাগছে । লজ্জা লাগবে এইটাই স্বাভাবিক । প্রথমত একদম নতুন পরিবেশ , তার উপর ক্লাসের কাউকে চিনি না । আমি ক্লাসে ঢুকে মাঝের সারিতে গিয়ে বসলাম । স্কুল বা কলেজ জীবনে একদম প্রথম দিকে বসে অভ্যাস । কিন্তু আজ কাউকে চিনি না বা স্যার কেমন হয় তাও জানি না , যার ফলাফল স্বরূপ আমি মাঝের সারিতে । আমি সোহান । এতক্ষণ আমি আমার কথা বলছিলাম । মধ্য বিত্ত পরিবারের ছেলে আমি । আমার সম্পর্কে বলতে গেলে বলবো , ছাত্র হিসেবে মোটামুটি । বাবা ক্ষুদ্র বিজনেস করে । কোনো রকম দিন চলে যায় । পাবলিক ভার্সিটি তে না টিকার কারণে একটি বেসরকারি ভার্সিটি তে ভর্তি হই ।

যত ক্লাস করছি ততো সবার সাথে পরিচিত হচ্ছি । আস্তে আস্তে সবার সাথে ফ্রি হয়ে গিয়েছি । কিছু বন্ধু হয়েছে । তার মধ্যে আবার দুই জন মেয়ে ফ্রেন্ড । এর আগে আমি মেয়েদের সাথে তেমন একটা মিশিনি । আবার ছেলে ফ্রেন্ড যে বেশি ছিল তাও না । কিছু দিন ক্লাস করার পর স্যার আমাদের বলল সামনে নাকি আমাদের প্রেজেন্টেশন করতে হবে । আমি সহ আমার বন্ধুদের কাছে একদম নতুন ছিল বিষয়টি । এর আগে আমরা কখনো প্রেজেন্টেশন করিনি । স্যার আমাদের কয়েকটা নমুনা ও কিভাবে করতে হবে তা বুঝিয়ে দিয়েছে । যেহেতু এইটা আমাদের প্রথম প্রেজেন্টেশন , তাই আমাদের দলীয় ভাবে করতে হবে । এক দলে ৫ জন এর বেশি থাকতে পারবে না । তাই আমি সহ আমার বাকি ৪ ফ্রেন্ডস মিলে আমাদের গ্রুপ বানিয়ে ফেললাম । স্যার বলে দিয়েছিলো মেয়েদের শাড়ি পরে আসতে , আর ছেলেদের অফিসিয়াল ড্রেস । এখানে স্যার মারাত্মক একটা ভুল করে । কেন করে গল্পের গভীরে আসলে বোঝা যাবে । যাই হোক । এইটা নিয়ে আমরা সবাই অনেক বেশি এক্সাইটেড ছিলাম । সবাই মিলে প্রেজেন্টেশন তৈরি করলাম আমার এক বন্ধু বাসায় । বলে নেয়া ভালো আমার গ্রুপে ৩ জন ছেলে আর বাকি দুই জন মেয়ে ।

দিনটি ছিল শুক্রবার । ইচ্ছা ছিল পাঞ্জাবি পরে প্রেজেন্টেশন করি কিন্তু স্যার এর আদেশ , অমান্য করলে নাম্বার শেষ । আমি খুব সকাল সকাল চলে আসলাম সেই সাথে আমার বন্ধু রিফাত , হিমেল চলে আসলো । বান্ধবীদের মধ্যে শুধু রুপা আসলো , মেঘলার কোনো দেখা নেই । ওরে কল দিয়ে যাচ্ছি কল ধরার কোনো নাম গন্ধ নেই । এর মধ্যে একে একে সবার প্রেজেন্টেশন প্রায় শেষ । আর কিছুক্ষণ এর মধ্যে আমাদেরটা শুরু হবে , ঠিক তখনি দেখলাম মেঘলা আসলো । এর আগেও মেঘলা কে দেখেছি , কিন্তু এমন কখনই দেখেনি । মানে সেদিন মেঘলা নীল একটা শাড়ি পড়েছে । সেই সাথে কপালে একথা নীল রঙের টিপ । হাতে আকাশী রঙের চুরি , চোখের নিচে কাজল । কাজল দেখে মনে হচ্ছিলো একটা পূর্ণিমার টুকরা কাল রাতের আকাশে । আমি কিছুক্ষণ এর জন্য স্ট্যাচু হয়ে গিয়েছিলাম ।কিভাবে একটা মানুষ এতো সুন্দর হয় । পাশে রিফাত যদি আমাকে ধাক্কা না দিতো তাহলে আমি বোধ হয়ে চেয়ে থাকতাম । কিছুক্ষণ এর মধ্যে মাইকে আমাদের নাম ডাকা হলো । মানে এইবার আমাদের পালা । আমরা আমাদের কাজ ভাগ করে নিয়েছিলাম । সর্ব শেষে মেঘলার পর্ব ছিল । প্রথম দিকে ছিলাম আমি । আমি শেষ করে ওর জন্য অপেক্ষা করছিলাম মানে ও কখন প্রেজেন্টেশন করবে । ও যখন করলো আমি এক পলকে তাকিয়ে ছিলাম আর দেখলাম , শুধুই চেয়ে দেখলাম ।

আমাদের প্রেজেন্টেশন শেষ হতে হতে প্রায় সন্ধ্যা হয়ে গেলো । সবাই খুব ক্লান্ত । আমি বের হয়ে মেঘলা কে বললাম , মেঘলা বাহিরে একটু অপেক্ষা করিস আমার জন্য , তোর সাথে কথা আছে । মেঘলা বলল আচ্ছা । সবাই সবার মতো চলে গেলো। ভার্সিটি এর সাথে ছিল লেক । ওরে নিয়ে লেকের সোডিয়াম আলোতে বসলাম । হাতে ছিল কফি । আমি তখন মেঘলা কে বললাম

মেঘলা আজ কেন যেন তোমাকে অন্য রকম লাগছে । আমার তুমি বলা শুনে ও কিছুটা অবাক , কিছু একটা আমাকে বলতে যাবে আমি ওরে থামিয়ে দিয়ে বললাম । মেঘলা আজ আমি তোমাকে বলবো তুমি শুধু শুনবে ।

এর আগে কখনো কোনো মেয়ে কে দেখে এমন লাগেনি , আজ তোমাকে দেখে আমার যেমন লেগেছে । মনে হচ্ছে আমার মরুভূমির মধ্যে এক পশলা বৃষ্টি এসে ভিজিয়ে দিয়েছে অনেক দিনের হা হা করা ক্যাকটাস দের । মনে হচ্ছিলো কোনো এক জোনাকি আমার ঘরের অন্ধকার কে নিজের আলো দিয়ে আলোকিত করার চেষ্টা করছে । আমি জানি না এর নাম কি ভালোবাসা না অন্য কিছু ? যদি এর নাম ভালোবাসা হয় তাহলে আমি তোমাকে ভালোবাসি ।
এক নিশ্বাসে সব কথা বলে গেলাম । মেঘলা আমার দিকে তাকিয়ে ছিল ।

কিছুক্ষণ পর মেঘলা বলে উঠলো , আমি জানি না তোমাকে কি বলবো , কিভাবে বলবো । তোমার চলা ফেরা আমাকেও মুগ্ধ করেছে । আমি ভাবতে পারি না, একটা ছেলেকে খুব সাধারণ পোশাকের মাঝে , সাধারণ ভাবে চলার মাঝে এতো অসাধারণ লাগবে । আমি ও মনে হয় তোমাকে ভালোবেসে ফেলেছি ।

এই কথা শোনার পর আমার …..

চলবে

ব্রিদ্রঃ সত্য গল্পের অবলম্বনে লেখা গুলো । প্রত্যেক মুহূর্তে মনে হবে আপনার জীবনে ঘটে গিয়েছে । প্রত্যেক গল্পের দুইটি পর্ব থাকবে । এটি একটি সিরিজ । প্রথম গল্প প্রকাশের দ্বিতীয় দিন তার দ্বিতীয় পর্ব প্রকাশ হবে । লেখা গুলো কেসই স্টাডি মূলক লেখা । প্রতি গল্পের শেষে অবশ্যই আপনার জন্য একটি করে ম্যাসেজ থাকবে ।

রেটিং
পাঠকের রেটিং
Rate Here
পোস্টের টাইটেলের সাথে মুল লেখার মিল
100%
পোস্টের ছবি কতটা সামঞ্জস্য পূর্ন
100%
লেখনীটা কেমন?
100%
পোস্টটি পড়ে আপনি কতটুকু স্যাটিসফায়েড?
100%
100%
পাঠকের রেটিং
3 ratings
You have rated this
About The Author
Rohit Khan fzs
Rohit Khan fzs

বি.এস.সি করছি ইলেকট্রনিক এন্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং। লিখতে ভালবাসি। নতুন নতুন মানুষদের সাথে পরিচিত হতে পছন্দ করি।

0 Comments

You must log in to post a comment