Now Reading
বাসে বা ট্রেনে কোন কিছু খাওয়ার আগে সতর্ক বার্তা, সাবধান বন্ধু সাবধান নচেৎ মৃত্যু অবধারিত
25 5 0

বাসে বা ট্রেনে কোন কিছু খাওয়ার আগে সতর্ক বার্তা, সাবধান বন্ধু সাবধান নচেৎ মৃত্যু অবধারিত

by Muhammad UddinDecember 26, 2017
What's your reaction?
লাইক ইট!
0%
FUNNY
0%
Sad
0%
Boring
0%

বর্তমানে দেশে নানা চক্র কাজ করে, যাদের কাজ হচ্ছে আপনার কাছে থাকা সবকিছু হাতিয়ে নিয়ে আপনাকে সর্বসান্ত করা, এমন কি জিনিসপত্র নিতে না পারলে আপনাকে তারা মেরেও ফেলতে পারে। বাসে নাকি এই ধরনের ঘটনা প্রায়ই ঘটে। যারা সুযোগ বুঝে প্রথমে আপনার পাশে খালি সিটে এসে বসে তারপর অবস্থা বুঝে ব্যাবস্থা করে।

আমার এক বন্ধু নারায়ণগঞ্জ থেকে বাসে করে ঢাকা আসছিলেন। পথে মধ্যে হঠাৎ তার পানির পিপাসা লাগল।  গাড়ির সমস্যার কারনে গাড়ি যখন কিছু সময়ের জন্য বিরতি নিল, সেই সময় সে মনে করল একটি ডাব খাবে। খুব ভাল কোন সমস্যা হওয়ার তো কথা না কারণ ডাব অনেক সেফটি একটি জায়গায় থাকে যেখানে কোন কিছু মিক্সড করা সম্ভব না। ডাব ওয়ালা সামনেই

Food-Poisoning.jpg

ডাব কাটল এবং তাকে খেতে দিল এবং সাথে একটি পাইপ ও দিল যাতে ডাবের পানি সহজে খাওয়া যায়। আমার বন্ধু ডাব খাওয়ার পরে টাকা দেওয়ার সাথে সাথে কেমন যেন ঘুমঘুম ভাব চলে আসল এবং সে সামনের সিটে মাথা দিয়ে  ঘুমিয়ে পড়ল এবং তারপর তার আর কিছু মনে নেই।

বাসের কোন মানুষ তার সাহায্যে এগিয়ে আসে নাই এমনকি বাসের ড্রাইভার কন্ট্রাক্টর ও না কারন তারা মনে করেছিল এটা পুলিশ কেস। বাসের লোকজন পুলিশকে খবরদিলে পুলিশ আমার বন্ধুকে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে দেয়।

গত দুই দিন ধরে আমার বন্ধু ঘুমিয়ে ছিল তাহলে চিন্তুা করেন কত শক্তিশালী ঘুমের বড়ি। পরে তদন্দ সাপেক্ষে জানা গেল যে, ডাবের ভিতরে কিছু মিশানো হয়নি বরং গুড়া দেওয়া ছিল পাইপে। পাইপটা যখনই ডাবের সাথে মিশালো তখনই ঘুমের শক্তিশালী অষুধ ডাবের পানির সাথে মিশে যায় এবং বিষক্রিয়া শুরু করে। বিষাক্ত জিনিসের ডোজ একটু বেশী হলে মানুষ মারাও যেতে পারে। পরে আরো জানা যায় এটা একটি বড় গ্রুপ এবং এলাকার আসে পাশে সাইনবোর্ড দেওয়া ছিল এখানে ডাব খাওয়ার আগে সাবধান হোন। কিন্তু আমার বন্ধু গাড়ীতে থাকার কারনে সে সাইনবোর্ড দেখতে পায়নি।

যাহোক আমার বন্ধু যখন প্রথম চোখ খুলল তখন তার ক্রেডিট কার্ডের কথা মনে পড়ে কারন তার মানিব্যাগে একটি ক্রেডিট  কার্ডও ছিল । তার সাথে একটি ব্যাগছিল এবং ব্যাগে কিছু টাকা রাখা ছিল। তার ব্যাগ নেই কিন্তু অন্য একটি কমদামি ব্যাগ ছিল। জানিনা কেন তার কমদামি ব্যাগটি রেখে গিয়েছি। তার কাছে একটি দামি মোবাইল ছিল সেটাও নাই। তাও ভাগ্য ভাল যে জামা কাপড় নেয় নাই। জামাকাপড় এবং জুতাও তো খুলে নিতে পারত।

একই রকমভাবে অন্য একটি ঘটনা ঘটেছিল আমার অন্য এক বন্ধুর সাথে সে যখন বাসে উঠল তখন তার সমবয়সী কিছু ছেলে তার সাথে কথা বলা শুরু করল। যেমন ভাই কি করেন? বাসা কোথায়? ইত্যাদী নানা রসালো আলাপ করা শুরু করলো আর সাথে সাথে তার কিছু খাবার বের করে খাওয়া শুরু করল এবং খাওয়ার জন্য তাকেও অফার করল। প্রথমে সে ভাবল সে খাবেনা কিন্তু তাদের পিড়াপিড়িতে শেষ পর্যন্ত খেতে বাধ্য হলো। তারা যা খাচ্ছিলো সেও সেটাই খেল যেমন পাওরুটি এবং জুস। কিন্তু আমার বোকা বন্ধু বুঝল না এই খাওয়াই তার সর্বনাশ ডেকে আসবে। তাছাড়া তার খিদাও লেগেছিল। সময়টা ছিল আনুমানিক দুপুর ২ টা। খাওয়ার সাথে সাথে তার কেমন যেন অসুস্থি লাগা শুরু করল এবং এমন ভাবে মাথা ঘুরা শুরু করল যে তার কাছে মনে হতে লাগল যেন ভুমিকম্প হচ্ছে এবং শেষ পর্যন্ত তার মনে হতে লাগল যেন সে জীবন্ত বোবা তার চোখে মুখে শরিষার ফুল দেখতে লাগল । তার মুখদিয়ে ফেনা বের হতে লাগলো এবং তার আশেপাশে কি হচ্ছে না হচ্ছে কিছুই তার মনে ছিল না। পরে নটরড্যাম কলেজের কিছু শিক্ষার্থী তার আইডি কার্ড দেখে তাকে বাস থেকে নামিয়ে নিয়ে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায়। পরিশেষে ডাক্তার তার পেট পরিস্কার করার পর এবং অনেক পানি পান করার পর সে কিছুটা সুস্থ হয়। তবে তার জন্যও তার ৭ দিন সময় লাগে।

এই রকম প্রতিনিয়ত ঘটনা একটির পর একটি ঘটেই চলছে।  অন্য একটি গ্রুপ আছে তার নাকি চোখে মলম লাগায় আর আপনার চোখ প্রায় অন্ধের মত হয়ে যায়। আপনি চোখে কিছুই দেখতে পাবেন না। আর এর মাধে দুষ্ট চক্র আপনার সবকিছু আপনার সামনে দিয়েই নিয়ে যাবে আর আপনি কিছুই করতে পারবেন না।

অন্য আরো একটি গ্রুপ এর কথা শুনেছিলাম তার আপনার নাকে রুমাল ধরতে পারে আর সাথে সাথে আপনি অজ্ঞান হয়ে যাবেন এবং দুষ্ট চক্র আপনার সাথে থাকা সবকিছুই নিয়ে নিবে আর আপনার কিছুই করার থাকবে না।

কাজেই বাস বা ট্রেনে উঠে অপরিচিত কারো দেওয়া কোন কিছু খাবেন না। যদি খান তাহলে আপনার উপরে উল্লেখিত দুর্ঘটানা ঘটতে পারে। তখন হায় হায় করেও কোন লাভ হবে না। আপনি বিশ্বাস করেন কিনা জানিনা বর্তমানে ধনী বা গরীব সবাই এই ফাঁদে পা দিচ্ছে। বাচেতে হলে আপনাদের আরো সতর্ক হতে হবে না হলে বাঁচার কোন উপায় নেই। সাবধান বন্ধু সাবধান নচেৎ মৃত্যু অবধারিত কেউ আপনাকে বাঁচাতে আসবে না কারন সবাই প্রচন্ড ভয় এর মধ্যে দিন কাটায়।

About The Author
Muhammad Uddin
Muhammad Uddin

I am Md. Musleh Uddin, I am now doing job and part time article writinging footprint, I love to work with footprint

You must log in to post a comment