আন্তর্জাতিক
Now Reading
সনু নিগমের গলায় আজানের মাইক বেঁধে দেয়া হোক!
210 42 0

সনু নিগমের গলায় আজানের মাইক বেঁধে দেয়া হোক!

by Ferdous Sagar zFsMay 19, 2017
What's your reaction?
লাইক ইট!
0%
FUNNY
0%
Sad
0%
Boring
0%

প্রথমেই বলে রাখি, আমি হিন্দি গান শুনিনা গত দেড় বছর। কানের কাছে বাজলেও অসহ্য লাগে। হ্যাঁ, আরেকটা কথা, হিন্দি আর উর্দূ কিন্তু একইরকম, লেখাটা ভিন্ন। কেন হিন্দি গান শুনিনা সে নিয়ে আরেকদিন বিস্তারিত বলবো। তবে এটা সত্য, আগে শুনতাম মাঝেমাঝে। তবে হিন্দি না বুঝেই, সুর ভালো লাগতো কিছু গানের তাই শুনতাম আরকি!

যাইহোক, যা বলছিলাম, মানসিক বিকারগ্রস্ত শিল্পী সনু নিগমের কথা। তাকে আমি ২০০৭ সালের আগে চিনতাম না। তার একটা গান শোনার পর আমি তার দারুণ ভক্ত হয়ে গেলাম, দেখলাম, সারা উপমহাদেশ তথা বাংলাদেশ, ভারত , পাকিস্তান এই তিন দেশ এমনকি নেপাল ও শ্রীলঙ্কাতেও তার ভক্ত সংখ্যা অনেক। পরবর্তীতে সে বাংলাদেশে এসে গানের এলব্যামও বের করে গেছে !!

সবকিছু ভালোই চলছিল কিন্তু তার সেই বিতর্কিত টুইটের পর বদলে গেল সবকিছু।

কি ছিল সেই টুইটে যে পুরো ভারত, বাংলাদেশ, পাকিস্তানে তাকে নিয়ে বিতর্কের ঝড় বয়ে গেল?

প্রথম টুইটে বলা হয়েছিলঃ

God bless everyone. I’m not a Muslim and I have to be woken up by the Azaan in the morning. When will this forced religiousness end in India

এখানে সে ঠিক উন্মাদের মত লিখেছে। আজানকে সে forced religiousness  বা জোরপুর্বক ধর্ম চাপিয়ে দেয়া বলে উল্লেখ করেছে! আবার এটাও বলেছে, When will this forced religiousness end in India অর্থ্যাৎ, ভারতে কবে এই জোরপূর্বক ধর্ম চাপিয়ে দেয়া শেষ হবে?

আচ্ছা সনু , আপনি কি বলুন তো? আপনার মাথায় কি গোবর ভর্তি হয়ে আছে? নাকি আপনার বয়স বেড়ে গেছে, আগের মত সেই জোর নেই, আগের মত গান বা কনসার্টে ডাক পান না, তাই গলায় যতটুকু জোর আছে, তাই গলাবাজি থুক্কু টুইটবাজি করছেন? আপনার কি বুদ্ধি লোপ পেয়ে গেছে , খেয়াল নেই যে ভারতে কত মুসলমান মানুষের বাস?

আচ্ছা, এরপর কিছুক্ষণ পর তাল সামলাতে না পেরে আরেকটা টুইট,

And by the way Mohammed did not have electricity when he made Islam Why do I have to have this cacophony after Edison?

বেচারা এই টুইটে এসে নিজের মানসিক বিকলঙ্গতার পরিচয় দিলেন। পরিচয় দিলেন তার ইসলাম বিদ্বেষী মনোভাবের। সে ইসলামকে আসলেই কোনোদিন ভালো চোখে দেখেনি। সারা জীবনের মনের সব ক্ষোভ ঢেলে দিলেন ইসলাম ধর্ম আর আজানের প্রতি।

কত বড় আহাম্মক হলে সে এই কথা বলে যে Mohammed did not have electricity when he made Islam – এখানে when he made Islam দ্বারা কি বোঝানো হচ্ছে? আমাদের নবী করিম মোহাম্মদ (সাঃ) ইসলাম ধর্ম “তৈরী” করেছেন? কোথায় যাবো এই মূর্খকে নিয়ে বলেন তো! এ শয়তান তো এটাও জানেনা যে ইসলাম ধর্ম আল্লাহর তৈরী এবং আল্লাহর নির্দেশে নবী করিম মোহাম্মদ (সাঃ) মানুষের নিকট এই শান্তির ধর্মের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। ইংরেজিতে যাকে Messenger বা ধর্ম প্রচারক বলা হয়ে থাকে। একে তো জুতা পেটা করা উচিত বলে মনে করি; আহাম্মক কোথাকার!!

একটা কথা এখানে বলে রাখি, সে কিছুক্ষণ পর পর টুইট করেছে।

প্রথম টুইট ছিল 5:55 AM – 17 Apr 2017 তে,

দ্বিতীয় টুইট 6:01 AM – 17 Apr 2017,

তৃতীয় টুইট 6:06 AM – 17 Apr 2017 এবং

চতুর্থ টুইট যে কিনা ছোট একটি “Gundagardi hai bus…” 6:19 AM – 17 Apr 2017 তে।

অর্থ্যাৎ সে সময় নিয়ে ভেবেছে এবং লিখেছে কিন্তু সেটা মনের সব ক্ষোভ উগরে দিয়ে। নিজেকে সামলাতে পারেনি। আচ্ছা, এরপর তৃতীয় টুইট তো আরো মজার!

তৃতীয় টুইটে কি লিখলেন?

I don’t believe in any temple or gurudwara using electricity To wake up people who don’t follow the religion. Why then..? Honest? True?

বুঝলেন, হাসি আটকে রাখতে পারছি না; তার শেষ টুইটের আমি দুইটা ব্যাখ্যা দাড় করাতে পারি।

প্রথম ব্যাখ্যাঃ  ইসলাম নিয়ে বলা হয়েছে বলে সেটা একপেশে হয়ে গেছে। বা একপেশে শোনাচ্ছে। তাই ব্যাপারটাকে সামাল দিতে কি বলা হলো? সে নাকি মন্দির আর গুরুদুয়ারাতেও মাইক বাজানো পছন্দ করে না।

দ্বিতিয় ব্যাখ্যাঃ  who don’t follow the religion কথা দ্বারা ফুটে উঠেছে তার নাস্তিকতার পরিচয়; হ্যাঁ সনু নিগম কোনো ধর্মে বিশ্বাসী নন। হয়তো বা এটাই এই টুইটটার মাধ্যমে একটু নাটকীয় ভাবে উপস্থাপন করা আরকি!

তার চতুর্থ টুইট নিয়ে আর কথা বলতে চাচ্ছি না; তবে একজনের করা মন্তব্যে সে লিখেছে Learn to accept & respect our religious differences. Living in a multi-religious society demands some tolerance (6:39 AM – 17 Apr 2017)

Living in a multi-religious society demands some tolerance……! ওহ মাই আল্লাহ!! আমি তো এইটা জানতাম না! জীবনে প্রথম শুনলাম এমন কথা। সনু দাদা ( তোরে দাদা বলতেও মন সায় দিচ্ছে না, কিন্তু আমি তো ভদ্র তাই সম্মান দিয়ে বললাম আরকি! ) আপনাকে সামনে পেলে বলতাম, আমি মুসলমান সংখ্যাগরিষ্ঠ বাংলাদেশের এক বিভাগীয় শহরের খ্রিষ্টানদের এলাকায় বড় হয়েছি; সেখানে শহরের বড় গীর্জা ছিল, মন্দির ছিল আর মসজিদ তো ছিলই। বড় দিন এলে ২৫ ডিসেম্বর এর আগে প্রতি সন্ধ্যাঁয় গানের দল এসে খ্রিষ্টানদের বাড়িতে বাড়িতে গান করতো, আমরা সবাই বারান্দায় দাড়িঁয়ে সেই গান শুনতাম, হিন্দু বাড়িতে , অনুষ্ঠানে নিয়মিত গিয়েছি কারণ সবচাইতে কাছের বন্ধু একজন হিন্দু। শুধু আপনিই মাল্টি-রিলিজিয়াস সমাজে বাস করেন না, আমরাও করি; কই কোনদিন তো দেখলাম না শুনলাম না এমন কথা আপনি যেটা বললেন!

শুনুন, সর্বশেষে একটা কথা বলি,

আজান এর জন্য মাইকের ব্যবহার যদি আপনার কাছে শব্দদূষণ বা cacophony হয়ে থাকে, তবে আপনার গলায় আজান সহ একটা মাইক বেঁধে দেয়া উচিত বলে মনে করি; শব্দদূষণ নাকি কি বুঝতে পারতেন; যে আজানের ধ্বনিতে মনে প্রশান্তি আসে, তাকে বলেন শব্দদূষণ আর জোর করে ধর্ম চাপিয়ে দেয়া! বাহ সনু বাহ!

About The Author
Ferdous Sagar zFs
Ferdous Sagar zFs

Hi, I am Ferdous Sagar zFs. I am a Proud Bangladeshi living in abroad for study purpose. I love to write and it’s my passion or hobby. Thanks.

You must log in to post a comment