Now Reading
ইউটিউব এনালাইটিক্স এবং Audience Retention
435 65 0

ইউটিউব এনালাইটিক্স এবং Audience Retention

by Ashraful KabirMay 28, 2017
What's your reaction?
লাইক ইট!
0%
FUNNY
0%
Sad
0%
Boring
0%

একটি অনবদ্য নাম ইউটিউব। যেখানে কোটি কোটি ভিডিওর সমাহার। এমন কিছু নেই যা ইউটিউব এ খুঁজে পাওয়া যাবে না। আপনার দৈনন্দিন জীবনের যে কোন প্রয়োজনে ইউটিউব থেকে ইনফরমেশন নিতে পারবেন এবং তা কাজে লাগাতে পারবেন। এ পর্যন্ত ইউটিউব এ যত ভিডিও আপলোড করা হয়েছে তা দেখতে মোটামুটি সতের বছর সময় কেটে যাবে। আর বর্তমানে ইউটিউব এ মানুষ টাকা উপার্যন করছে। ইউটিউব এ চ্যানেল খুলে এবং নিজের চ্যানেল এ ভিডিও আপলোড এর মাধ্যমে টাকা উপার্যন করা সম্ভব। তবে তা এক দিনে সম্ভব হয়ে ওঠে না। এর পেছনে অনেক পরিশ্রম ও ধ্যৈর্যতার পরিচয় দিতে হয়।

আমার এই আর্টিকেল এ আপনাদের বলব কিভাবে ইউটিউব এ দর্শক ধরে রাখা যায়। কারণ আপনার ভিডিও যদি অনেক বেশি দর্শক দেখে তবেই আপনি ইউটিউব এ ভিডিও আপলোডের মাধ্যমে টাকা উপার্যন করতে সক্ষম হবেন।

ইউটিউব এ আপনার চ্যানেল এ দর্শক ধরে রাখার ক্ষমতা কে বলা হয়ে থাকে Audience Retention. এর পেছনে কিছু Hardwork ও Analytics কাজ করে। আপনি আপনার প্রতিটি আপলোড করা ভিডিও এনালাইসিস করার মাধ্যমে দর্শকের আকর্ষণ সৃষ্টি করতে পারেন। তবে এর জন্য আপনাকে অনেক গুলো জটিল ও কৌশলী পন্থা কাজে লাগাতে হবে। অনেক ধরণের উপায় অনুসরণ করতে হয়। তবে আপনার চ্যানেল যদি জনপ্রিয় হয় তাহলে কাজগুলো অনেক সহজ হয়ে যায়।

Audience Retention ব্যাপার টি খুবই এনালাইটিক্যাল। আর এর জন্য আপনাকে আপনার চ্যানেল এর প্রতি ডেডিকেটেড হতে হবে। আপনার আপলোড করা প্রতিটি ভিডিও প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত গ্রাফিক্যাল বিশ্লেষণ করতে হবে। চলুন জেনে নেয়া যাক ঠিক কি ধরণের টুলস কাজে লাগিয়ে আপনি আপনার চ্যানেল এর Audience Retention  বাড়াতে পারবেন।

প্রথমেই যে বিষয় টি আসে তা হচ্ছে আপনার দর্শকদের বুঝতে পারা। এর মানে হচ্ছে ঠিক কি ধরণের দর্শক আপনার চ্যানেল এর প্রতি  আকর্ষিত। আপনার দর্শক আপনার কাছ থেকে ঠিক কি চায়। কোন ধরণের ভিডিও তারা আশা করে। এছাড়াও আপনাকে বুঝতে হবে কেমন বয়সী মানুষ আপনার ইউটিউব চ্যানেল এর ভিডিও দেখছে। কারণ  বর্তমানে ছোট থেকে শুরু করে বৃদ্ধ পর্যন্ত সবাই ইউটিউব ব্রাউজ করে। তাই আপনাকে আপনার দর্শক বুঝতে হবে এবং সে অনুযায়ী কন্টেন্টফুল ভিডিও আপনার চ্যানেল এ আপলোড করতে হবে যাতে  করে আরো বেশি সংখ্যক দর্শক আপনার ভিডিও দেখার জন্য আগ্রহী হয়।

Average View Duration: এটি দ্বারা বুঝায় ঠিক কত মানুষ আপনার ভিডিও দেখেছে। ইউটিউব অর্থ উপার্যনের একটি অংশ ভিডিও দেখার ওপর নির্ভর করে। আপনার ভিডিও দেখার জন্য যত বেশি মানুষ আপনার ভিডিওতে ক্লিক করবে আপনার অর্থের পরিমাণ তত বেরে যাবে। তবে ভিডিও ভাইরাল করতে হলে অবশ্যই রিসোর্সফুল কন্টেন্ট এর ভিডিও তৈরি করতে হবে। আর ভিডিও কভার যত আকর্ষণীয় করতে পারবেন আপনার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার ক্ষেত্রে তত এগিয়ে যাবে।

Average Percentage Viewed: এই টুলস টি দ্বারা বুঝায় যে আপনার ভিডিও ঠিক কত সময় ধরে আপনার দর্শক দেখছে। এটি মূলত নির্ভর করে ভিডিওর মাধ্যমে আপনার দর্শক ধরে রাখার ওপর। আপনার ভিডিওতে রিসোর্সফুল কন্টেন্ট থাকলে দর্শক আপনার পুরো ভিডিও দেখতে আগ্রহী হয়। এতে করে আপনার ভিডিও বেশি পরিমাণে দর্শক দেখে। যা Average Percentage View এর হার বাডিয়ে দেয়।

এছাড়াও Average audience retention and Relative audience retention নামের দুটি টুলস আছে। যেগুলোর মাধ্যমে আপনি বিশ্লেষণ করতে পারবেন আপনার ভিডিও ঠিক কত সময় ধরে দেখা হয় এবং আপনার ভিডিওর প্রতি দর্শকের প্রতিক্রিয়া কেমন। আপনার ভিডিও যদি শুধু ভিউ হয় কিন্তু ভিডিও দেখার সময়ের পরিমাণ কম হয় তবে সেক্ষেত্রে আপনি দর্শকের আকর্ষণ সৃষ্টি করতে পারেন নি। আপনার ভিডিও দেখার গড় সময়ের ওপর আপনার উপার্যন নির্ভর করবে।

টিপস এবং স্ট্র্যাটেজী

আপনারপুরো ভিডিওর উপর দর্শকের প্রতিক্রিয়া কেমন হবে তা নির্ভর করে ভিডিওর প্রথম ১০-১৫ সেকেন্ড কন্টেন্ট এর উপর। আপনি যদি দর্শক ধরে রাখতে চান তবে আপনাকে এমন ভিডিও তৈরি করতে হবে যা দেখে প্রথম ১০ সেকেন্ড বা প্রথম ১৫ সেকেন্ডেই দর্শক অভিভূত হয় এবং পরবর্তী পুরো ভিডিও দেখতে আগ্রহী হয়।

আপনাকে অবশ্যই বুঝতে হবে যে আপনার দর্শক ঠিক কি দেখতে পছন্দ করে। তারা কি বিষয়ের উপর ভিডিও দেখতে বেশি আগ্রহী। সেগুলো যেকোন কন্টেন্ট এর হতে পারে। হতে পারে আপনার দর্শক শিক্ষামূলক ভিডিও বেশি পছন্দ করে কিংবা হেল্পফুল ভিডিও বা মজার ভিডিও। আপনাকে এই বিষয়টি বুঝে উঠতে হবে তবেই আপনি ইউটিউবিং এ উন্নতি করতে পারবেন।

আপনাকে ইউটিউব এর জিওগ্রাফী বুঝতে হবে। বুঝতে হবে ভৌগোলিক দিক থেকে ঠিক কোন জায়গার বা কোন এলাকার মানুষ আপনার ভিডিও বেশি দেখে বা বেশি পছন্দ করে। এছাড়াও আপনাকে এছাড়াও আপনাকে আপনার দর্শকের ব্যবহৃত ডিভাইস সম্পর্কে ভালো ধারণা লাভ করতে হবে। তারা ঠিক কোন ডিভাইস গুলো বেশি ব্যবহার করে থাকে।

Screenshot_2017-05-26-10-55-35.png

Screenshot_2017-05-26-10-56-45.png

উপরের বিষয়গুলো আপনাকে অনেক ভালোভাবে আয়ত্ব করতে হবে। ইউটিউবিং এ অর্থ উপার্যনের ক্ষেত্রে নানা ধরণের কলাকৌশল ও ট্রিকস অনুসরণ করতে হয়। অনেক ধরণের টিপস কাজে লাগাতে হয়। সস্তায় শর্টকাটে অর্থ উপার্যনের কথা কখনোই চিন্তা করবেন না। আপনাকে পরিশ্রমী হতে হবে। এছাড়াও আপনাকে অনেক বেশি ধৈর্যশীল হতে হবে। কারণ ইউটিউবিং এ কেউ একদিনে অর্থ উপার্যন করতে পারে না। অবশ্যই ধৈর্য নিয়ে কাজ করতে হয়। আর তবেই আপনি টাকার মুখ দেখতে পারবেন। আশা করি আমার টিপস গুলো অল্প হলেও আপনাদের কাজে আসবে।

রেটিং
পাঠকের রেটিং
Rate Here
পোস্টের টাইটেলের সাথে মুল লেখার মিল
85%
পোস্টের ছবি কতটা সামঞ্জস্য পূর্ন
100%
লেখনীটা কেমন?
90%
পোস্টটি পড়ে আপনি কতটুকু স্যাটিসফায়েড?
95%
93%
পাঠকের রেটিং
1 rating
You have rated this
About The Author
Ashraful Kabir
Ashraful Kabir

Want to be learn how to write….. also trying…..

You must log in to post a comment